কনফেডারেশন কাপ: রোনাল্ডোর মাথার ছোঁয়ায় জয়ে ফিরল পোর্তুগাল

0
545

পোর্তুগাল – ১ (রোনাল্ডো)   রাশিয়া – ০

সানি চক্রবর্তী: খেলা দ্বিতীয়ার্ধের মাঝামাঝি, ক্যামেরায় হটাৎই ধরা পড়ল এক যুগল। মাঠে দেশের খেলা ছেড়ে প্রেমিকের কোলে বসে গল্পে মত্ত এক রাশিয়ান যুবতী। আনকোরা প্রেমিকযুগলকে খুঁজে নিতে অভিজ্ঞ ক্যামেরাম্যানের কোনো ভুল হয়নি। তেমনই রাজধানী মস্কোর জনতাও হর্ষধ্বনিতে সেই যুগলকে অভ্যর্থনা জানাতে ভুল করেনি। কারণ, দীর্ঘ সময়ের পরে মন ভালো করার মতো কিছু যেন একটা যুগলের খোসগল্পেই খুঁজে পেয়েছিলেন রাশিয়ানরা। মাঠে ইউরো চ্যাম্পিয়ন পোর্তুগিজদের ট্যাকটিকাল ফুটবলের কাছে যে বড়োই ম্যাড়ম্যাড়ে হয়ে যাচ্ছিল রাশিয়ান ফুটবলারদের প্রয়াস। আনকোরা ফুটবলাররা একেবারে শেষলগ্নে গিয়ে বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করে করলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। না বলা ভালো, পেপের নেতৃত্বে অভিজ্ঞ পোর্তুগিজ রক্ষণ ভালোই পরিস্থিতি সামাল দিয়েছে। তাই তো তিন স্ট্রাইকারে বেশ কিছুক্ষণ খেলেও গোলমুখ আর খুলতে পারেনি রাশিয়া।

ম্যাচের শুরুটা যদিও ছিল একেবারে অন্যরকম। উগ্র ফুটবল সমর্থক হিসেবে পরিচিত রাশিয়ানরা চড়া জাতীয়তাবোধের পরিচয় রেখে দলকে ভালোই উদ্ধুদ্ধ করছিল। এমনকি, ম্যাচের মাত্র ৮ মিনিটের মাথায় ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর গোলের পরে কার্যত তাঁর দিকে উড়ে এসেছে একাধিক তির্যক শব্দব্রহ্ম। ন্যু ক্যাম্প বাদে এরকম ‘অভ্যর্থনা’ হয়তো চারবারের বিশ্বসেরা ফুটবলারকে খুব বেশি জায়গায় পেতে হয়নি। এমনিতেই কর ফাঁকি বিতর্কে জেরবার রোনাল্ডো এদিনও ম্যাচসেরা হওয়ার পরে পুরস্কার নিলেও কোনো প্রশ্নের উত্তর দেননি।

রাফায়েল গুয়েরোর বাঁ প্রান্ত থেকে মাপা ক্রস। তাতে রোনাল্ডোসুলভ ক্ষিপ্রতায় লাফিয়ে উঠে হেডে বল জড়ানো সিআরসেভেনের। দেশের জার্সিতে আন্তর্জাতিক মঞ্চে ৭৪ তম গোল। কনফেডারেশনস কাপের রাশিয়া-পোর্তুগাল ম্যাচের মুহূর্ত বলতে শুধু এটুকুই। প্রথমার্ধে বেশ কয়েকবার পোর্তুগালের প্রয়াস রাশিয়ার গোলরক্ষক ইগর অ্যাকিনফিপ দক্ষতার সঙ্গে আটকে দিয়েছেন। বিশেষ করে রক্ষণ ভেঙে ভিতরে ঢুকে রোনাল্ডোর একটা গোলার মতো নেওয়া শট। দ্বিতীয়ার্ধে উন্নতি করে রাশিয়ার আক্রমণ বাড়ানো। এগুলো হলেও ম্যাচের সময় যত এগিয়েছে ততই ম্যাড়ম্যাড়ে হয়ে গিয়েছে খেলা। বলা যায়, দু’জন ডিফেন্সিভ ব্লকার নামিয়ে তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করাটাই শ্রেয় মনে করেছেন ফার্নান্দো স্যান্টোস। সঙ্গে অবশ্যই ম্যাঞ্চেস্টার সিটির নতুন রিক্রুট বানার্ডো সিলভা ও বার্সার আন্দ্রে গোমেসের বল ধরে খেলার প্রশংসা করতেই হবে। বর্তমান পোর্তুগাল শিবির অন্তত রোনাল্ডোকে নীচে নেমে রক্ষণে বাধ্য করায় না। ইউরো চ্যাম্পিয়নদের অধিনায়ক এখন শুধুমাত্র আক্রমণ গড়াতেই নজর দিতে পারেন তরুণ প্রতিভাদের উত্থানে। তাই অভিজ্ঞতা ও তারুণ্যের মিশেলেই ফেভারিটের তকমাটা রয়েছে তাদের সঙ্গেই। মেক্সিকোর কাছে প্রথম ম্যাচে হোঁচটের পরে রাশিয়া বধ। আপাতত ২ ম্যাচের শেষে ৪ পয়েন্ট। গ্রুপের শেষ ম্যাচে প্রতিপক্ষ দুর্বল নিউজিল্যান্ড। যে ম্যাচে একাধিক তারকাকে বিশ্রাম দেবেন বলে আগে থেকেই ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছেন পোর্তুগালের কোচ।

যদিও গ্রুপের অপর ম্যাচে মেক্সিকোর জয় তাকে পরিকল্পনা পালটানোর কথা ভাবাতে পারে। নিউজিল্যান্ডের কাছে পিছিয়ে পড়েও ২-১ ব্যবধানে জিতেছে মেক্সিকো। আর উল্লেখ্য, গ্রুপ থেকে দুটি করে দলই পরের পর্বে যাবে।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here