prafulla patel

ওয়েব ডেস্ক: অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপ ফুটবলের ড্র-এর আসর। রয়েছেন ফিফার বাঘা বাঘা কর্মকর্তা। রয়েছেন দেশের ক্রীড়ামন্ত্রী ও অন্যান্য ফুটবল কর্তা। রয়েছেন অংশগ্রহণকারী ২৪টি দেশের প্রতিনিধি। তার মধ্যেই বলতে উঠলেন আয়োজক দেশ ভারতের জাতীয় ফুটবল সংস্থা এআইএফএফ-এর প্রেসিডেন্ট প্রফুল প্যাটেল। ঝকঝকে, স্মার্ট প্রফুল মঞ্চে উঠে ভারতের ফুটবলের ঐতিহ্য তুলে ধরতে চাইলেন বিশ্বের দরবারে। উদ্দেশ্য ভালো হলেও, তিনি দেশের যে খেলাটির দায়িত্বে রয়েছেন, ভারতে সেই খেলাটির অতীত এবং আন্তর্জাতিক ফুটবলের ইতিহাস সম্পর্কে তিনি যে রীতিমত অজ্ঞ, তা প্রকাশ করে ফেললেন সকলের সামনে।

আরও পড়ুন: ভারত-আমেরিকা ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপ ফুটবল

প্রফুল ভারতীয় ফুটবলের ঐতিহ্যের উদাহরণ দিতে গিয়ে বলেন, “১৯৫০-এর দশকে সম্ভবত ১৯৫৮ সালে, ভারত বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিল। সে বার বিশ্বকাপ ব্রাজিলে হয়েছিল। কিন্তু ভারত খেলতে যায়নি, কারণ বিশ্বকাপে জুতো পরে ফুটবল খেলতে হয় কিন্তু আমাদের দেশের ফুটবলাররা তখন খালি পায়ে খেলতেন।” রসিকতার হাসতে হাসতে কথাগুলি বলেন তিনি।

কিন্তু প্রকৃত ঘটনা হল, ব্রাজিলে বিশ্বকাপ ফুটবল হয়েছিল ১৯৫০ সালে। তার আগে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধা চলার জন্য দু’টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়নি। সেবার বিশ্বযুদ্ধে জেরবার বহু দেশ বিশ্বকাপে অংশ নিতে পারেনি। তাই ফিফা ভারতকে বিশ্বকাপে অংশ নিতে আমন্ত্রণ জানায়। কিন্তু সদ্য স্বাধীন ভারতের পক্ষে ওরকম একটি আন্তর্জাতিক মঞ্চে যোগ দেওয়ার অনেক অসুবিধা ছিল। বিশ্বকাপ ফুটবলের গুরুত্বও সেদিনের শাসকরা অনুধাবন করতে পারেননি। খালি পায়ের কারণটি ছিল নিশ্চয়, কিন্তু সেটা গৌণ। ভারত কখনওই বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন করেনি।

আরও পড়ুন: তৃতীয় বিদেশি চূড়ান্ত, ইস্টবেঙ্গলে নতুন বিশ্বকাপার

ভারতীয় ফুটবলের এই ইতিহাসের কথা উপস্থিত আন্তর্জাতিক প্রতিনিধিরা না জানলেও, ১৯৫৮ সালের বিশ্বকাপ যে সুইডেনে হয়েছিল, ব্রাজিলে নয়, সেটা সকলেরই জানা। ভারতীয় ফুটবলের দায়িত্ব কার হাতে রয়েছে, সেটা নিশ্চয় বুঝে গেলেন তাঁরা। আর ভারতের ফুটবলমোদীদের সঙ্গে তাঁরাও জানলেন, এত বড়ো মঞ্চে বক্তব্য রাখার আগে ন্যূনতম প্রস্তুতিরও সময় পাননি প্রফুল প্যাটেল।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here