নাম- কে এল রাহুল। জন্ম- বেঙ্গালুরু। নেশা- ক্রিকেট। পেশা- শিখর ধাওয়ান- মুরলি বিজয়ের আড়ালে ভারতের রিজার্ভ ওপেনার।

এই হচ্ছেন রাহুল। ভারতের নতুন রাহুল। ধাওয়ান আর বিজয়ের যখন কেউ চোট পেয়ে দলের বাইরে যাবে, সুযোগ আসবে রাহুলের। আর সেই সুযোগ কাজে লাগাতে কোনও ভুল করবেন না তিনি। অথচ চোট পাওয়া ধাওয়ান বা বিজয় দলে ফিরে এলেই বসে যাবেন তিনি। রবিবার ১৫৮ রানের ঝকঝকে ইনিংসটা খেলার পরেও কিন্তু কোনও গ্যারান্টি নেই যে তৃতীয় টেস্টে তিনি সুযোগ পাবেনই।

এক উইকেটে ১২৬, এই অবস্থায় রবিবার ইনিংস শুরু করে ভারত। শনিবার যেখানে অপরাজিত ছিলেন, রবিবার সেখান থেকেই শুরু করেন রাহুল। এ দিন যেন আরও সাবলীল। উলটো দিকে তাঁকে সঙ্গত দিয়ে যান পুজারা। তবে রানের গতি ছিল খুবই মন্থর। এক দিকে রাহুল যখন লুজ বল পেলেই চালাচ্ছিলেন, পুজারা তখন ঠুকুর-ঠুকুর। বছর দুয়েক আগের পুজারার সেই ঝাঁঝটা উধাও হয়ে গেছে। মধ্যাহ্নভোজনের বিরতির আগেই ১৮২ বলে শতরান পূর্ণ করেন রাহুল। মাত্র ষষ্ঠ টেস্টে এটি রাহুলের তৃতীয় শতরান।

৪৬ করে পুজারা রান আউট হতে ব্যাট হাতে আসেন কোহলি। ভারতের স্কোর যখন ২৭৭, গ্যাব্রিয়েলের বলে উইকেটকিপারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান রাহুল। ৩০৩ বলে ১৫টি চার আর ৩টি ছক্কার সাহায্যে ১৫৮ করেন রাহুল। ক্রিজে তখন কোহলি থাকলেও এ দিন তাঁর মধ্যে আগের টেস্টের  ছায়া দেখতে পাওয়া যায়নি। চরিত্রবিরোধী ইনিংস খেলে মাত্র ৪৮-এর স্ট্রাইক রেটে ৪৪ করে রোস্টোন চেসের স্পিনের শিকার হন কোহলি। ভারতের নতুন ছয় নম্বর ব্যাটসম্যান অশ্বিনের এ দিন সংগ্রহ মাত্র ৩। দিনের শেষে ভারতের স্কোর পাঁচ উইকেটে ৩৫৮। ৪২ রানে অপরাজিত রাহানে আর ১৭ রানে ক্রিজে ব্যাট করছেন ঋদ্ধিমান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম ইনিংসের থেকে ভারত এখন ১৬২ রানে এগিয়ে। অঘটন না ঘটলে সাবাইনা পার্কেই সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে যেতে চলেছে ভারত।

তবে রবিবার সব আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে এক জনই। রাহুল। মাত্র ছ’টি টেস্টে তিনটি শতরান। তিনটিই বিদেশে। যার মধ্যে একটি আবার অস্ট্রেলিয়ায়। তাঁর ব্যাটে আরেক কর্ণাটকীর ছায়া দেখা যাচ্ছে। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে তাঁর নামও রাহুল। রাহুল শরদ দ্রাবিড়।

ছবি:  সৌজন্যে ক্রিকিনফো

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here