মুম্বই: যতই সৌরভের অপছন্দ হোন, বিরাটদের কোচ হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রবি শাস্ত্রীই। সোমবার মুম্বই কোচ পদপ্রার্থীদের ইন্টাভিউ নেবেন সচিন, সৌরভ ও লক্ষ্মণের ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটি। তার আগের দিন অবধি যা খবর, তাতে কোহলি-অশ্বিনদের কোচ হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে ভারতীয় দলের এই প্রাক্তন কোচই।

তথ্যের খাতিরে বলে নেওয়া যাক, ২০১৬ সালে ভোরতীয় দলকে কোচিং করানোর জন্য ৫৭ জনের আবেদন জমা পড়েছিল। এবার পড়েছে মাত্র ১০টি। তাঁরা হলেন, রবি শাস্ত্রী, বীরেন্দ্র শেহওয়াগ, টম মুডি, রিচার্ড পাইবাস, লালচাঁদ রাজপুত, ডোড্ডা গণেশ, ল্যান্স ক্লুজেনার, রাকেশ শর্মা(ওমান জাতীয় দলের কোচ). ফিল সিমন্স ও উপেন্দ্রনাথ ব্রহ্মচারী(ইনি পশ্চিমবঙ্গের একজন ইঞ্জিনিয়ার, ক্রিকেটের কোনো অভিজ্ঞতা নেই)।

আরও পড়ুন: কোচ হওয়ার দৌড়ে আছেন, দিচ্ছেন দরখাস্ত, নিজেই জানালেন রবি

সূত্রের খবর, পরামর্শদাতা কমিটি, ১০ জনের মধ্যে ৬ জনের সঙ্গে কথা বলবেন। এই ৬ জন হলেন, শাস্ত্রী, শেহওয়াগ, রাজপুত, মুডি, সিমন্স ও পাইবাস। প্রয়োজনে ক্লুজেনারের সঙ্গে কথা বলা হতেও পারে, তবে তাঁর কোচ হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

বিদেশি আবেদনকারীদের মধ্যে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছেন টম মুডি। ২০১১ সালে তিনি শ্রীলঙ্কাকে বিশ্বকাপ ফাইনালে তোলেন। অন্যদিকে আইপিএল চ্যাম্পিয়ন করেছেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে। মুডি যদি কোচ হন, তাহলে বোলিং হওয়ার সম্ভাবনা ম্যাকডারমটের। অন্যদিকে শাস্ত্রী কোচ হলে ওই জায়গায় আসতে পারেন ভরত অরুণ।

দেশের কেউ কোচ হলে লড়াই মূলত শাস্ত্রী ও শেহওয়াগের। তবে অন্যতম কোচ-নির্বাচক সৌরভের সঙ্গে শাস্ত্রীর খারাপ সম্পর্কের কথা সকলেই জানেন। তাই সোমবারের বৈঠকে শাস্ত্রী সম্পর্কে সৌরভের বক্তব্য কী হয়, সেদিকেই তাকিয়ে ভারতের ক্রিকেট মহল।

 

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন