কলকাতা: আলোচনা শুরু হয়ে গেছিল ময়দানে এবার সত্তর দশক ফিরে এসেছে। ফুটবল নিয়ে পুরোনো উন্মাদনা দেখা যাচ্ছিল তিন প্রধানের মাঠেই। বেড়ে গেছে দর্শক। দলে দলে মাঠে খেলা দেখতে আসছেন মহিলারা। দল চাপে পড়লে গালাগালির বদলে দর্শকরা দল বেঁধে তাঁদের উৎসাহ দিচ্ছেন। বিদেশের ফুটবল মাঠের মতো গ্যালারিতে গান হচ্ছে, হচ্ছে ওয়েভ। মোহনবাগান মাঠে তো দর্শক সংখ্যা এত বেড়ে যায়, যে জায়ান্ট স্ক্রিনের ব্যবস্থা অবধি করতে হয়েছে।

কিন্তু সোমবার সব পালটে দিলেন বাংলার ফুটবল-জনতা। এদিন ডার্বির আগে শেষ ম্যাচে টালিগঞ্জ অগ্রগামীকে ৫-০ গোলে হারায় লালহলুদ। ফলে সমীকরণ এমন দাঁড়িয়েছে, যে চতুর্থীর দিন ডার্বিতে ড্র করলেও টানা আটবার লিগ জিতবে ইস্টবেঙ্গল। সেই আনন্দে আত্মহারা হয়েই হয়তো, খেলা দেখে ফেরার পথে মোহনবাগান তাঁবুতে ভাঙচুর চালালেন একদল ইস্টবেঙ্গল সমর্থক। তাতে ভেঙে যায় মোহনবাগান ক্লাবের নেমপ্লেটও। সেই সময় ক্লাবের মালি ও কর্মীদের পুজোর পোশাক দেওয়ার কর্মসূচিতে হাজির ছিলেন দুটি ফ্যান ক্লাবের সদস্যরা। তাঁরা বেরিয়ে আসতে পালিয়ে যান ওই ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরা।

স্বাভাবিক এই ঘটনায় বিস্মিত দুই ক্লাবের কর্মকর্তারা। মোহনবাগান ক্লাবের পক্ষে মাঠ সচিব স্বপন ব্যানার্জি ময়দান থানায় ডায়রি করেছেন। দেখুন সেই এফআই আরের কপি।

অন্যদিকে সমর্থকদের একাংশের এমন আচরণে লজ্জিত বহু ইস্টবেঙ্গল সমর্থকও।

দেখুন ভিডিও:

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here