আইএসএল: সভ্য-সমর্থকদের কাছে টেনে দাবি জোরালো করল দুই প্রধান

0
174

সানি চক্রবর্তী:

আইএসএলে সংযুক্তিকরণের পথে নিজেদের দাবিদাওয়া আরও জোরালো করল দুই প্রধান। ইস্টবেঙ্গল-মোহনবাগান দুই দলই নিজেদের কার্যকরী কমিটির সভায় বিস্তারিত আলোচনা সারল আইএমজিআরের পাঠানো খসড়া ঘিরে। এত দিন ক্লাবের শীর্ষ পর্যায়ের কর্তারাই শুধু যাবতীয় প্রস্তাব সম্পর্কে ওয়াকিবহাল ছিলেন। কার্যকরী কমিটির সভায় সমস্ত বিষয় ঘিরে আলোচনার মাধ্যমে নিজেদের আসল খুঁটি তথা ক্লাবের সভ্য-সমর্থকদের কাছে সর্বসমক্ষে সমস্ত খসড়া রাখা হল। প্রাথমিক কয়েকটি বিষয়ের পাশাপাশি বেশ কিছু বিষয় যা নিয়ে আপত্তি আগেই করেছে দুই প্রধান, তার বিরুদ্ধ ভিত্তি শক্ত করে নিল ইস্ট-মোহন।

বাকি ফ্র্যাঞ্চাইজিদের মতো কলকাতার দুই প্রধানকে লিগে সুযোগ পেতে যে ১৫ কোটি টাকা গ্যারান্টি অর্থ দিতে বলা হয়েছিল তার বিরোধিতা করেছে দুই দলই। দীর্ঘদিন ধরে খেলা চালিয়ে আসা ক্লাব দু’টির সঙ্গে এ ক্ষেত্রে আইএমজিআর কর্তারা নতুন ক্লাবগুলোকে একাসনে বসাচ্ছে বলে অভিযোগ করে তারা। শতাব্দীপ্রাচীন ও প্রায় শতবর্ষে পৌঁছোনো দুই ক্লাব দীর্ঘদিন ধরে সফল ভাবে চলে আসছে। তাই নতুন করে প্রতিষ্ঠা পেতে গ্যারান্টি অর্থ দেওয়ার মানে ক্লাবগুলির অস্বিত্ব নিয়েই প্রশ্ন তোলা, এমনটাই মনে করছেন তাঁরা। পাশাপাশি প্রাথমিক কথার ভিত্তিতে যে খসড়া এসেছে, তাতে ক্লাবের লোগো, জার্সির রং বদলানোর যে কথা বলা হয়েছে, তার ঘোরতর বিরোধিতা করা হয়েছে। দুই ক্লাবের লক্ষ-লক্ষ সমর্থকের কাছে লোগো, জার্সির রং আবেগের জায়গা থেকে জড়িয়ে আছে। তাই তা পালটানোর কোনো প্রশ্নই নেই, পরিষ্কার করে দিয়েছে দুই প্রধানই।

আইএসএলকে আরও আর্কষণীয় করে তুলতে গেলে যে তা মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গলকে বাদ দিয়ে কোনো মতেই করা যাবে না, তা বুঝতে পেরেই তাদের লিগে যুক্ত করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে আইএমজিআর। আগের কাঠিন্য ছেড়ে নিজেদের পরিবর্তনের সঙ্গী করে যুগের সঙ্গে তাল মেলাতে এগিয়ে এসেছে দুই প্রধানও। তবে দুই ক্লাবের খোলনলচে বদলাতে বিপুল পরিমাণ অর্থ ঢালার পাশাপাশি দুই ক্লাবের মালিকানায় বড়োসড়ো ভাগ চাইছে আইএমজিআর। দুই ক্লাবের কর্তারাই নিজেদের দখল আলগা করতেও নারাজ। তাই তাঁরা খসড়া পড়ার পরে আইএফএ সভাপতি তথা এআইএফএফ সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট সুব্রত দত্তের কাছে নিজেদের অভিযোগ আগেই রেখেছেন। আইএমজিআরের প্রতিনিধিদের সঙ্গে তিনি কথা বলে মধ্যস্থতার আশ্বাসও দিয়েছেন। তার উপরে নির্ভর করার পাশাপাশি নিজেদের দাবি আরও জোরালো করতেই সভ্য-সমর্থকদের কাছে গোটা বার্তা পৌঁছে দিয়েছে দুই প্রধান। আপাতত আইএসএল কর্তৃপক্ষ কতটা নমনীয় হয়ে তাদের পরবর্তী পদক্ষেপ নেয় সেটাই দেখার। পাশাপাশি তার পরিপ্রেক্ষিতে দুই প্রধানও কতটা সহযোগিতার হাত বাড়ায় সেটাও দেখার। আপাতত আই লিগের খেতাবি দৌড় নির্ধারক ডার্বির সপ্তাহখানেক আগে মাঠের বাইরে এক সঙ্গে দুই প্রধান। দুই দলের কোচেরা হালকা কথা চালাচালি করলেও আইএসএলে সংযুক্তিকরণের ব্যাপারে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াইয়ে নামার কথা বলে রেখেছেন দুই প্রধানের শীর্ষ কর্তারাই।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here