three girls who won gold
তিন স্বর্ণকন্যা। নিজস্ব চিত্র।
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: শিবানী ক্ষেত্রপাল, নমিতা সাঁতরা, রূপসা দে। খবরের শুরুতেই তিনজন মেয়ের নাম হয়তো অনেকের কাছেই বিস্ময়কর লাগছে। তার থেকেও বিস্ময়কর ঘটনা ঘটিয়েছে বাঁকুড়ার কোতুলপুরের এই তিন সোনার মেয়ে। জাতীয় স্তরে দলগত ভাবে সোনা জিতল বাঁকুড়ার প্রত্যন্ত ব্লকের এই তিন জন। কেরলের তিরুঅবন্তপুরমের জিমি জর্জ ইনডোর স্টেডিয়ামে গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে ৩ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হল এগারোতম জাতীয় অ্যাক্রোবেটিক জিমন্যাস্টিকস চ্যাম্পিয়নশিপ। আর তাতেই ট্রাইও ইভেন্টে সোনা জিতল বাংলা থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে যাওয়া কোতুলপুরের দিনমজুর বাড়ির তিন সোনার মেয়ে। আগামী নভেম্বরে আজারবাইজানে বিশ্ব মিটে যোগ দিতে পারবে ওই তিন সোনার মেয়ে।

এরা প্রত্যেকেই কোতুলপুরের বাঁকুড়া ডিস্ট্রিক্ট জিমন্যাস্টিকস অ্যাসোসিয়েশন বিবেকানন্দ ক্লাবের শিক্ষার্থী। কেরল থেকে তাদের প্রশিক্ষক কৃষ্ণা দত্ত এই তিন কন্যার সোনা জেতার খবর দেন অপর আর এক প্রশিক্ষক তথা তাঁর স্বামী ড. সদানন্দ ভদ্রকে। শিক্ষিকার কথায়, “জেদ, অধ্যবসায়, সাহস আর পরিশ্রমের জেরেই স্বর্ণপদক লাভ করেছে তাঁর শিক্ষার্থীরা।” তাদের এই সাফল্যে খুশি এলাকার মানুষ।

আরও পড়ুন স্বপ্নার স্বপ্নপূরণের দৃশ্য দেখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন মা
acrobatic gymnastics
জিমন্যাস্টিক্সে কসরত। নিজস্ব চিত্র।

যদিও তাদের আর এক প্রশিক্ষক ড. সদানন্দ ভদ্র বলেন, ৩৫ বছর হল বাঁকুড়া জিমন্যাস্টিকস অ্যাসোসিয়েশন বিবেকানন্দ ক্লাবের প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এর আগে এই ক্লাবের ৫ জন সদস্য জাতীয় স্তরে পুরস্কার পেয়েছে। এই বারই প্রথম দলগত ভাবে বিভাগে সোনা জিতে আন্তর্জাতিক স্তরে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার সুযোগ পেয়েছে। গত ১ সেপ্টেম্বর এই বিভাগের খেলা অনুষ্ঠিত হয়। আগামীকাল মঙ্গলবার তারা কেরল থেকে কোতুলপুরের উদ্দেশে রওনা দেবে বলে জানিয়েছেন এই প্রশিক্ষক। সদানন্দবাবু আরও বলেন, “এত কিছুর পরেও চিন্তায় রয়েছেন ওই তিন ছাত্রীর পরিবারের লোকজন। এরা সবাই দিনমজুর পরিবারের। কেউ আবার হকার। তাই ১২ নভেম্বর আজারবাইজানে বিশ্ব মিটে যোগ দিতে যাওয়ার টাকা আদৌ জোগাড় করা যাবে কিনা তা নিয়ে ভীষণ চিন্তায় আছি। সরকারের পক্ষ থেকে কোনো সাহায্য পেলে ভালো হয়। সাধারণ মানুষের কাছেও আমরা অর্থ সাহায্যের আবেদন করব। তবে বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ ও মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন।”

আরও পড়ুন ‘মুখ ঝামটা’র তাস খেলে সোনা জয়, প্রণবের বাড়িতে রসগোল্লা নিয়ে হাজির মন্ত্রী, দেখুন ভিডিওয়

জলপাইগুড়ি সদর ব্লকের পাতকাটা গ্রাম পঞ্চায়েতের ঘোষপাড়া গ্রামে এশিয়াডে সোনা জয়ী স্বপ্না বর্মণের মতো আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় সোনা জয়ের স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন বাঁকুড়ার প্রত্যন্ত কোতুলপুর ব্লকের মানুষ। আন্তর্জাতিক স্তরে যাওয়ার জন্য যে অর্থের প্রয়োজন তার জন্য সমাজের সমস্ত স্তরের মানুষের কাছে সাহায্যের হাত পেতেছেন তিন দিনমজুর পরিবার।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন