shakina khatun

ওয়েবডেস্ক: তিনি বিশেষ ভাবে সক্ষম হলেও চার বছর আগে কমনওয়েলথ গেমসে ব্রোঞ্জ জিতেছিলেন। তাঁকেই এ বারের গেমসে ভারতীয় দলে রাখা হয়নি। তাঁর বিরুদ্ধে অন্যায় করা হয়েছে, এর প্রতিবাদে তিনি আত্মহত্যাও করতে রাজি বলে জানিয়ে দিলেন ভারোত্তলক শাকিনা খাতুন।

এপ্রিলের ৪ তারিখ থেকে অস্ট্রেলিয়ার গোল্ড কোস্টে বসতে চলেছে কমনওয়েলথ গেমসের আসর। সেই প্রতিযোগিতার জন্য নির্বাচিত ভারতীয় দলে রাখা হয়নি শাকিনাকে। এর প্রতিবাদেই গর্জে উঠেছেন তিনি। এএনআইকে শাকিনা বলেন, “আমি এখনও আশাবাদী আমি ভারতীয় দলে সুযোগ পাব। শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাব। যদি তাতেও লাভ না হয় আমি আদালতে যাব। ওরা (ভারতীয় অলিম্পিক সংস্থা) আমার জীবন নষ্ট করে দিয়েছে। যদি কোনো ভাবেই কিছু না হয়, তা হলে আমি আত্মহত্যা করব।”

২০১৪-তে গ্লাসগোতে কমওয়েলথ গেমসে ভারতের একমাত্র বিশেষ ভাবে সক্ষম প্রতিযোগী হিসেবে পদক জিতেছিলেন তিনি। কমনওয়েলথ গেমস ফেডারেশনের যাবতীয় যোগ্যতা মেটালেও তাঁর নাম তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে ভারতীয় অলিম্পিক সংস্থা (আইওএ), এমনই অভিযোগ শাকিনার।

তাঁর কোথায়, “আমি খুব মর্মাহত। এই প্রতিযোগিতার জন্য আমি চার বছর ধরে অপেক্ষা করে আছি। আমি শুধু অনুশীলনই করে গিয়েছি। এখন আমি বুঝতে পারছি না আমি অনুশীলন করব না কি অন্য কাজে মন দেব।” খাতুন জানান, এই ব্যাপারে ভারতীয় প্যারালিম্পিক কমিটির কাছেও চিঠি দিয়েছেন তিনি। খাতুনের নাম বিবেচনা করার জন্য আইওএকে চিঠি দিয়েছে প্যারালিম্পিক কমিটি।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রতি আবেদন করে খাতুন জানিয়েছেন, “আমি খুব গরিব। আমাদের প্রধানমন্ত্রী তো ‘বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও’-এর কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার আবেদন এই ‘বেটির’ কথা একটু ভাবুন।” শেষে তিনি বলেন, “আমি এখনও অনুশীলন করে চলেছি। এর পরেও যদি আমি ভারতীয় দলে জায়গা না পাই, তা হলে আইওএ অফিসের সামনে আত্মহত্যা করব।”

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন