airtel
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক : প্রায় একই রকম সুবিধে যুক্ত একাধিক প্ল্যান এয়ারটেলে রয়েছে। কিন্তু গ্রাহক কোনটি নিলে বেশি লাভবান হবেন সেটি অনেকেই বুঝতে পারেন না। এয়ারটেলের প্রিপেড প্ল্যানে যেমন ২৮ দিনের প্ল্যান রয়েছে তেমনই রয়েছে ৩৬৫ দিনের প্ল্যানও।

তবে কোনটি বেশি ভালো বা লাভজনক? এই বিষয়টি একটি বড়ো প্রশ্ন অবশ্যই। কারণ সুবিধেগুলি দেখলে প্রায় একই মনে হবে। কিন্তু না, এর মধ্যে কিছু তো পার্থক্য আছে। সেটি তা হলে কী? আসুন দেখে নেওয়া যাক।

এর আগে এয়ারটেলে ৩৯৯৯ টাকার একটি প্রিপেড দীর্ঘমেয়াদি প্ল্যান ছিল। কিন্তু এখন সেটি বন্ধ হয়ে গিয়েছে। রয়েছে ১৬৯৯ টাকার একটি প্রিপেড প্ল্যান। এটির মেয়াদ ৩৬৫ দিন। প্রতিদিন এক জিবি হাইস্পিড ডেটা পাওয়া যাবে। সঙ্গে রয়েছে সীমাহীন কলিং বিনামূল্যে। পাশাপাশি ফ্রি সাবস্ক্রিপশন করা যাবে এয়ারটেল টিভি প্রিমিয়াম, জি৫, এক বছরের নর্টন মোবাইল সিকিউরিটি আর উইংক মিউজিক বিনামূল্যে।

পড়ুন – অবিবাহিত মহিলারাই সুখি বেশি! বলছে গবেষণা

অন্যদিকে ১৬৯ টাকার প্ল্যানটিও এক জিবি ডেটা প্রতিদিন, বাধাহীন কলিং বিনামূল্যে দিচ্ছে ২৮ দিনের জন্য।

তাহলে সবই প্রায় এক। কিন্তু একটু তলিয়ে দেখলেই বোঝা যাবে এর মধ্যে ১৬৯৯ টাকার প্ল্যানটি একটু সস্তা। দামি হয়েও সস্তা কোথায়?

১৬৯৯-র প্ল্যানে ৩৬৫ দিনের জন্য ৩৬৫ জিবি ডেটা দিচ্ছে টানা। এতে প্রতিদিনে এক জিবি ডেটার জন্য গড়ে খরচ পড়ছে চার টাকা ৬৫ পয়সা। অন্য দিকে ১৬৯-র প্ল্যানে ২৮ জিবি ২৮ দিন। হিসাব মতো গড়ে এর খরচ ছয় টাকা। সঙ্গে ১৬৯৯ টাকার প্ল্যানটি খুচরো রিচার্জের থেকে প্রায় ৩৩০ টাকার মতো সাশ্রয় করবে। আবার বার বার রিচার্জের যন্ত্রণা থেকেও মুক্তি দেবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here