airtel

ওয়েবডেস্ক: নানা টেলেকম সংস্থা নানা প্রিপেড প্ল্যানের মাধ্যমে কাঁড়ি কাঁড়ি ইন্টারনেট ডেটা সরবরাহ করে চলেছে ঠিকই, দিন পিছু ভিত্তিতে। কিন্তু সমস্যা একটাই! ওই দিনে যতটা করে ইন্টারনেট ডেটা বরাদ্দ, সেটা ফুরিয়ে গেলেই বসে পড়তে হয় মাথায় হাত দিয়ে। কেন না, তার পরে ইন্টারনেট স্পিড এক ধাক্কায় নেমে আসে ৬৪কেবিপিএস-এ। সেই স্পিড যে কতটা ঢিমে তালের, তা আমরা সকলেই জানি, নতুন করে এ নিয়ে বেশি কিছু কী বা বলার আছে! এ অবস্থায় আমাদের সবারই মনে হয়, এই স্পিড থাকা আর না থাকা- দুটোই সমান! কেন না, সংস্থা বলে বটে কাজ করা যাবে, কিন্তু আখেরে লাভ কিছুই হয় না- স্রেফ ইন্টারনেটের চাকা ঘুরে যায় আর ঘুরেই যায়!

এই অবস্থা থেকে গ্রাহককে রেহাই দিতে এবং আলবাত প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী রিলায়েন্স জিও ও বিএসএনএলকে একহাত নিতে এ বার এয়ারটেল যেন সত্যিই আনলিমিটেড ডেটা প্যাক নিয়ে এল বাজারে। জানা গিয়েছে, রিলায়েন্স জিওর ক্ষেত্রে দৈনিক বরাদ্দ ডেটা ফুরিয়ে যাওয়ার পরে স্পিড ৬৪ কেবিপিএস-এ নেমে এলেও সম্প্রতি বিএসএনএল স্পিড বাড়িয়েছে। ঘোণা করেছে- দৈনিক বরাদ্দ ডেটা ফুরিয়ে যাওয়ার পরেও গ্রাহকরা ১২৮কেবিপিএস স্পিডে কাজ করতে পারবেন। এয়ারটেলও এ বার একই সুবিধা দিচ্ছে গ্রাহককে। মানে, এয়ারটেলের গ্রাহকরাও এ বার থেকে দৈনিক বরাদ্দ ডেটা ফুরিয়ে গেলে ১২৮কেবিপিএস স্পিডে ইন্টারনেট সার্ফ করতে পারবেন।

শুধু একটা কথা খেয়াল না রাখলেই নয়। এয়ারটেল স্পষ্ট করে বলছে- এই সুবিধা কেবল সেই সব গ্রাহকরাই পাবেন, যাঁদের প্রিপেড রিচার্জ প্ল্যানে ডেটা সরবরাহ করা হয় দৈনিক ভিত্তিতে। মানে, দৈনিক ১ জিবি বা ২ জিবি বা ৩ জিবি বা ৪ জিবি এ রকম আর কী! কিন্তু যদি প্রিপেড রিচার্জ প্ল্যানে সরবরাহ করা ডেটা মাসিক ভিত্তিতে হয়, সে ক্ষেত্রে এই সুবিধা পাওয়া যাবে না।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন