Connect with us

প্রযুক্তি

এয়ারটেল নিয়ে এল দু’টি দীর্ঘমেয়াদি প্রিপেড প্ল্যান- জানুন বিশদে

ওয়েবডেস্ক : এয়ারটেল নতুন দু’টি দীর্ঘমেয়াদি প্রিপেড প্ল্যান নিয়ে এসেছে। ৯৯৮ টাকা আর ৫৯৭ টাকার প্ল্যান। ১৬৯৯ টাকার প্ল্যান তো ছিলই, তবে সর্বত্র পাওয়া যাচ্ছিল না। এখন থেকে দেশের সর্বত্রই পাওয়া যাবে এই প্ল্যানটির সুবিধা। সব ক’টি প্ল্যানই সকলের জন্য। অর্থাৎ এয়ারটেলের প্রিপেড গ্রাহক যেখানেই থাকুন না কেন এই প্ল্যানের সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। দেখব এই প্ল্যানগুলির কোনটিতে কী সুবিধা রয়েছে।

৫৯৭ টাকার প্ল্যান – এটি ১৬৮ দিনের প্ল্যান। এতে পাওয়া যাচ্ছে সীমাহীন ভয়েস কল। ছয় জিবি ডেটা ১৬৮ দিনের জন্য। ৩০০ এসএমএস প্রতিমাসে। পাওয়া যাচ্ছে এয়ারটেল টিভি অ্যাপ ব্যবহারের সুবিধাও।

আরও পড়ুন – জিও ফোন ব্যবহার করেন? তা হলে অবশ্যই দেখুন এই নতুন দু’টি প্ল্যান

৯৯৮ টাকার প্ল্যান – ৩৩৬ দিনের প্ল্যান এটি। পাওয়া যাচ্ছে ১২ জিবি ডেটা গোটা মেয়াদের জন্য অর্থাৎ ৩৩৬ দিনের জন্য। ৩০০ এসএমএস প্রতি মাসে। ২৮ দিন অন্তর নতুন মাস ধরা হচ্ছে। দেশের যে কোনো জায়গায় সীমাহীন ভয়েস কল।

১৬৯৯ টাকার প্ল্যান – এটি বাৎসরিক প্ল্যান। এতে এক জিবি করে দৈনিক ডেটা পাওয়া যাচ্ছে। বাধাহীন ভয়েস কল বিনামূল্যে। ১০০টি এসএমএস প্রতি দিন। এই প্ল্যানে পাওয়া যাচ্ছে এয়ারটেল টিভি অ্যাপলিকেশনের সুবিধাও।

Uncategorized

নগদ লেনদেনে সংক্রমণের ভয়! জেনে নিন ই-ওয়ালেটের ব্যবহার কী ভাবে করবেন

ewallet

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নগদ টাকাপয়সার মাধ্যমে কোভিড ১৯ সংক্রমণ যাতে ছড়াতে না পারে, কিছু কিছু ক্ষেত্রে তার জন্যই পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে অনলাইন পেমেন্টের। পাশাপাশি বাজার অর্থাৎ বাইরে থেকে আনা টাকাপয়সা অন্তত ২৪ ঘণ্টা না ধরে একটি ‘ট্রে’তে রেখে দেওয়ারও পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে অনলাইন লেনদেন যে খুবই সহায়ক সে কথা বলাই বাহুল্য। কিন্তু ডিজিট্যাল ইন্ডিয়া শুরু হওয়ার পর কয়েক বছর কেটে গেলেও অনেকেই এখনও নগদে লেনদেন করেন। অনেকেই অনলাইন পেমেন্ট বা ডিজিট্যাল পেমেন্ট অথবা ই-ওয়ালেটের পদ্ধতিটি জানেনও না।

এই ডিজিট্যাল পেমেন্টের ক্ষেত্রে একটি অন্যতম হল ই-ওয়ালেট।  

ই-ওয়ালেটের ব্যবহার কী ভাবে করবেন?

গ্রাহক ও বিক্রেতা উভয়েরই ই-ওয়ালেট থাকতে হবে। ই-ওয়ালেটের জন্য আজকাল বহু অ্যাপ এসেছে। গ্রাহক ও বিক্রেতার একই অ্যাপের অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।

গ্রাহকদের জন্যঃ

মোবাইলে অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে।

যাবতীয় তথ্য দিয়ে সাইন-আপ করতে হবে।

সাইন আপের পর পাসওয়ার্ড দেওয়া হবে।

ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড বা নেট ব্যাঙ্কিং এর মাধ্যমে এই ই-ওয়ালেট অ্যাকাউন্টে টাকা ভরতে হবে।

কেনাকাটার পর দেখা যাবে ওয়ালেটে যাবতীয় তথ্য নিজে থেকেই এসে গিয়েছে।

অনলাইনে পেমেন্ট করা যায়। আলাদা করে কোনো ফর্ম ভরতে হয় না বা তথ্য দিতে হয় না।

বিক্রেতাদের জন্যঃ

বিক্রেতাও মোবাইলে অ্যাপ ডাউনলোড করবেন।

তথ্য দিয়ে সাইন-আপ কবেন।

সাইন আপের পর পাসওয়ার্ড দেওয়া হবে।

বিক্রেতাকে জানাতে হবে তিনি যে বিক্রেতা।

এর পর অ্যাকাউন্ট ওপেন হয়ে যাবে।

পেমেন্ট আসতে থাকবে।

ই-ওয়ালেট ব্যবহারের জন্য কী কী লাগবে ?

১। ব্যাংক অ্যাকাউন্ট

২। স্মার্ট ফোন

৩। ২জি, ৩জি, ৪জি সংযোগ

৪। একটি ফ্রি ওয়ালেট অ্যাপ

যে বিষয়গুলি অবশ্যই মনে রাখতে হবে

প্রতিটি লেনদেনের বিষয়ে এসএমএস পাওয়া যায়। তার জন্য মোবাইল নম্বরটিকে ব্যাঙ্কে রেজিষ্টার করাতে হবে। কারোর সঙ্গে PIN শেয়ার করবেন না।

খুব সচেতন ভাবে কেনাকাটা করবেন।

ATM ব্যবহারের সময় সচেতন হন, কেউ যেন PIN নম্বর দেখতে না পায়।

অবশ্যই পড়ুন -অনলাইনে লেনদেনের সময় এই আটটি নিয়ম অবশ্যই মেনে চলতে হবে

পড়তে থাকুন

প্রযুক্তি

ফ্রি সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে এই ৫টি ওয়েবসাইট বেশ নির্ভরযোগ্য

pc

খবর অনলাইন ডেস্ক : এখন লকডাউনের জেরে চলছে ওয়ার্ক ফর্ম হোম। বাড়ি বসে চলছে অনলাইন পড়াশোনা, যাবতীয় কাজ কারবার। ফলে বাড়ির ল্যাপটপ কম্পিউটার ব্যবহার হচ্ছে সারা দিন। ফলে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কারণে লাগছে বিশেষ কিছু সফটওয়্যারও। সেগুলি খারাপ হলেই চিত্তির। সঙ্গে টেকনিশিয়ান প্রায় অমিল। এই সময় সফটওয়্যার লোড করা এক ঝকমারি কাজ। অনেকেই ওয়েবসাইট থেকে ফ্রি সফটওয়্যার ডাউনলোড করেন। কিন্তু সব ক’টি নিরাপদ থাকে না।

একাধিক সমস্যা থাকে –

১।  অধিকাংশ সাইটেই ফেক ডাউনলোড বাটন যুক্ত করা থাকে। এক জিনিস ডাউনলোড হতে দিলে অন্য জিনিস ডাউনলোড হতে থাকে।

২। আবার ঠিক জিনিস ডাউনলোড হলেও তা ঠিকমতো কাজ করে না।

৩। বিশেষ করে ভাইরাস থাকে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই। এই ভাইরাস পিসি অর্থাৎ আপনার কম্পিউটার ল্যাপটপকে এলোমেলো করে দেয়।

সেই সমস্ত সমস্যা থেকে বাঁচতে কয়েকটি নির্ভরযোগ্য অথচ ফ্রি সাইটের হদিশ রইল এখানে।

Ninite

Ninite, এটি অত্যন্ত নিরাপদ একটি ওয়েবসাইট। Ninite থেকে নিয়মিতই ফ্রিতে যে কোনো সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে পারবেন। এই সাইটে ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস নিয়ে চিন্তার ব্যাপার নেই। এই সাইট থেকে যে কোনো সিঙ্গেল সফটওয়্যার ডাউনলোড করা যাবে। আবার বেশ কয়েকটি সফটওয়্যার এক সঙ্গেও ডাউনলোড করা যাবে।

ক্লিক করতে পারেন এইখানে

Softpedia

Softpedia-ও তেমনই একটি নিরাপদ ওয়েবসাইট। এতে রয়েছে প্রায় ৮ লক্ষ ৫০ হাজার ফাইল। শুধু উইন্ডোজ নয়, ম্যাক, লিনাক্স-সহ সব অপারেটিং সিস্টেমের জন্যেই প্রয়োজনীয় যাবতীয় সফটওয়্যার রয়েছে এই ওয়েবসাইটে। সব রকমের ড্রাইভারও পাবেন Softpedia-এ।  তা ছাড়া অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের জন্য যাবতীয় পেড অ্যাপসও আছে। সঙ্গে হাজার হাজার গেম।

ক্লিক করতে পারেন এখানে

FileHippo

অবশ্যই নাম করতে হয় FileHippo-র। উইন্ডোজ, ম্যাক ও ওয়েভের জন্যে ১৬টি ক্যাটেগরিতে ভাগ করে প্রায় ২০ হাজার সফটওয়্যার রয়েছে এতে। এই সাইট আপনার পিসির সিস্টেম অটোমেটিক ডিটেক্ট করতে পারে। সঙ্গে সঙ্গে জানিয়ে দিতে পারে কোন কোন সফটওয়্যার আপডেট করা দরকার।

সফটওইয়্যার ডাউনলোডের সময় কোনো ডাউনলোড ম্যানেজার নেওয়ার দরকার নেই। সরাসরি ডাউনলোড লিংক থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

সাইটে পৌঁছতে ক্লিক করুন এইখানে

Download Crew

এই সাইট থেকে নতুন কোনো সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে হলে আপনাকে ‘Most Popular Downloads’ সেকশনে যেতে হবে। যদি অত্যন্ত ভালো মানের সফটওয়্যার পেতে ‘Editor’s Choice’ সেকশনে খুঁজতে হবে।

ক্লিক করুন এখানে

FileHorse

খুব বাছাই করা সফটওয়্যার নিয়ে তৈরি FileHorse ওয়েবসাইটি। তবে সম্পূর্ণ নিরাপদ। দরকারি সফটওয়্যার খুঁজে পেতে আপনাকে খুব বেশি সমস্যায় পড়তে হবে না।

ওয়েবসাইটিতে পৌঁছতে ক্লিক করুন এখানে

আরও পড়ুন – নিখরচায় মিলবে প্যানকার্ড, আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী

পড়তে থাকুন

প্রযুক্তি

নিখরচায় মিলবে প্যানকার্ড, আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী

nirmala sitharaman

নয়াদিল্লি: আধার তথ্যের ভিত্তিতে তাৎক্ষণিক ভাবে মিলবে প্যান (পার্মানেন্ট অ্যাকাউন্ট নম্বর) কার্ড। বৃহস্পতিবার এই পদ্ধতির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন (Nirmala Sitharaman)।

২০২০-২১ বাজেট প্রস্তাবে কোনো লিখিত আবেদনপত্র ছাড়াই আধার (Aadhaar) তথ্যের ভিত্তিতে অনলাইনে প্যান নম্বর (PAN number) বরাদ্দের পরিকল্পনা ঘোষণা করা হয়। একটি বিবৃতিতে এ দিন সেন্ট্রাল বোর্ড অব ডিরেক্ট ট্যাক্সেস (সিবিডিটি) জানায়, “কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী আজ এই পদ্ধতিটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন”।

সিবিডিটি জানায়, যে সমস্ত আবেদনকারীর বৈধ আধার নম্বর রয়েছে এবং আধারের তথ্যে মোবাইল নম্বর নথিভুক্ত রয়েছে, তাঁরা এই পরিষেবা নিতে পারেন। সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটিই কাগজবিহীন এবং অনলাইনে প্যানের জন্য কোনো চার্জ লাগবে না।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি থেকেই পরীক্ষামূলক ভাবে অনলাইনে আধার-ভিত্তিক প্যান বরাদ্দের কাজ শুরু হয়েছে। আয়কর বিভাগ জানিয়েছে, তখন থেকে ২৫ মে পর্যন্ত এই পদ্ধতিতে ৬,৭৭,৬৮০টি প্যান বরাদ্দ করা হয়েছে।

২৫ মে পর্যন্ত পরিসংখ্যান অনুযায়ী, সব মিলিয়ে প্রায় ৫০.৫২ কোটি প্যান নম্বর বরাদ্দ করা হয়েছে। এর মধ্যে ব্যক্তিগত নম্বর দেওয়া হয়েছে ৪৯.৩৯ কোটিকে। আধার লিঙ্ক করা হয়েছে ৩২.১৭ কোটি প্যান নম্বরে।

কী ভাবে আধার তথ্য দিয়ে অনলাইনে প্যান নম্বরের জন্য আবেদন করবেন, দেখে নিন এখানে: কী ভাবে মাত্র ৫ মিনিটে নতুন প্যান নম্বর পাওয়া যায়?

পড়তে থাকুন

নজরে