চেহারা বদলে দিচ্ছে ফেসঅ্যাপ, তবে সাবধান

0
FaceApp
ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া থেকে

ওয়েবডেস্ক: ফেসবুকে বুড়ো বয়সের ছবি পোস্ট করতে উন্মাদনা তুঙ্গে। যিনি পারছেন, হাতের কাছে থাকা ফেসঅ্যাপ নামের একটি অ্যাপ ব্যবহার করে আজ থেকে কয়েক বছর পরে তাঁকে কেমন দেখতে লাগবে, হাতে গরম সেই ছবিটাই পেয়ে যাচ্ছেন। সঙ্গে সঙ্গে তা পোস্ট করে ফেলছেন নিজের টাইমলাইনে। একক অথবা গ্রুপ ভিত্তিক ভাবেও এই ধরনের ছবি তৈরি করে দিতে পারে ওই বিশেষ অ্যাপটি। কিন্তু এই আনন্দ-উন্মাদনার তোড়ে ব্যবহারকারীরা ততটা ভালো করে মোটেই পড়ে নেওয়ার তাগিদ অনুভব করছেন না ফেসঅ্যাপের প্রাইভেসি পলিসিতে। কী লেখা রয়েছে সেখানে?

কয়েকটা প্রাসঙ্গিক তথ্য জেনে রাখা ভালো। এই অ্যাপটি তৈরি করেছে রাশিয়ান ওয়ারলেস ল্যাব। দু’বছর আগে ২০১৭ সালে এই অ্যাপ প্রাথমিক ভাবে বাজারে এসেছিল। এর পর ২০১৯ সালে গুগল প্লে-স্টোর এবং অ্যাপ-স্টোর, দু’জায়গাতেই পাওয়া যাচ্ছে এই অ্যাপ। অর্থাৎ, অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস, দু’ই ধরনের ফোনেই ব্যবহার করা যাচ্ছে এই অ্যাপ।

এই অ্যাপ কৃত্রিম বা প্রযুক্তিগত কিছু কৌশলকে (বলা হচ্ছে আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স) কাজে লাগিয়ে এবং ব্যবহারকারীর কাছ থেকে পাওয়া কিছু তথ্যকে ফিল্টার করেই আজ থেকে কয়েক বছর পরে তাঁকে কেমন দেখতে লাগবে, সেই ছবি উপস্থাপন করে থাকে। এই অ্যাপ এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। আগ্রহীরা চেখে দেখতে ছাড়বেনই বা কেন, এমন একটা সুযোগকে! কিন্তু সাবধানতা অবলম্বনের ন্যূনতম কারণও যে রয়েছে, সেটাই বলছেন তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা।

ফেসঅ্যাপের প্রাইভেসি পলিসিতে স্পষ্টতই লেখা রয়েছে, তারা ব্যবহারকারীর কাছ থেকে কী কী তথ্য সংগ্রহ করবে। ফেসঅ্যাপের পলিসি বলছে, তারা ব্যবহারকারীর আইপি অ্যাড্রেস, ব্রাউজারের কুকিজ, লগ ফাইল, ডিভাইসের বিভিন্ন তথ্য ও তাঁর অবস্থান সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করবে।

অ্যাপকর্তৃপক্ষ অবশ্য স্বীকার করেছেন, তাঁরা এই তথ্যগুলি তৃতীয় কারও কাছে বিতরণ বা বিক্রি করবেন না। কিন্তু তার গ্যারান্টি কে দেবে? ফেসবুকের কোটি ব্যবহারকারীর তথ্য চালান হয়ে যাওয়ার ঘটনা কিন্তু খুব একটা বাসি হয়ে যায়নি!

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here