Connect with us

প্রযুক্তি

ইপিএফ অ্যাকাউন্টে কী ভাবে ইউএএন নম্বর অ্যাক্টিভেট করবেন?

Epfo

ওয়েবডেস্ক: এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড অর্গানাইজেশন (ইপিএফও)-র দেওয়া বিভিন্ন অনলাইন পরিষেবা ব্যবহার করতে আপনার ইউএএন (ইউনিভার্সাল অ্যাকাউন্ট নম্বর) অবশ্যই সক্রিয় করতে হবে। কর্মীর স্যালারি স্লিপে এই ইউএএন নম্বর উল্লেখ থাকে। অনলাইনে প্রাপ্ত কয়েকটি পরিষেবার মধ্যে অন্যতম কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ড অ্যাকাউন্ট (ইপিএফ) এবং কর্মচারী পেনশন প্রকল্পের (ইপিএস)-এর টাকা তোলার জন্য অনলাইনে আবেদন জানানো, অ্যাকাউন্টের ইপিএফ পাসবুক অ্যাক্সেস করা ইত্যাদি।

কী ভাবে ইউএএন সক্রিয় করা যায়?

পদক্ষেপ ১: মেম্বার সেবা পোর্টালের ওয়েবসাইটে: https://unifiedportal-mem.epfindia.gov.in/memberinterface/-এ যান।

পদক্ষেপ ২: লগইন শংসাপত্রগুলির নীচে দেওয়া ‘অ্যাক্টিভেট ইউএন’ বিকল্পে ক্লিক করুন।

পদক্ষেপ ৩: একটি নতুন ওয়েবপৃষ্ঠা কম্পিউটারের স্ক্রিনে খুলে যাবে। আপনাকে যে কোনো একটি – ইউএএন, সদস্য আইডি, আধার বা প্যান নম্বর দিতে হবে। এর পরে, আপনাকে অন্যান্য বিবরণ যেমন – নাম, জন্ম তারিখ, মোবাইল নম্বর এবং ইমেল আইডি দিতে হবে। মনে রাখবেন ইপিএফওর রেকর্ড অনুসারে বিশদ তথ্য অবশ্যই দিতে হবে।

পদক্ষেপ ৪: নীচে দেখানো ক্যাপচা কোডটি টাইপ করুন এবং ‘গেট অথরাইজেশন পিন’-এ ক্লিক করুন।

পদক্ষেপ ৫: মোবাইল নম্বরে একটি ওটিপি (ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড) বা পিন-সহ একটি এসএমএস পাঠানো হবে।

পদক্ষেপ ৬: ওটিপিটি দিন এবং ‘ভ্যালিডেট ওটিপি অ্য়ান্ড অ্যাক্টিভেট ইউএন’-এ ক্লিক করুন।

পদক্ষেপ ৭: আপনার ইউএনটি সক্রিয় হওয়ার পরে মেম্বার সেবা পোর্টালে আপনার অ্যাকাউন্টে পাসওয়ার্ড এসএমএসের মাধ্যমে আপনার মোবাইলে পাঠানো হবে।

ইপিএফও-র অনলাইন পরিষেবাগুলি পেতে আপনার অ্যাকাউন্টে লগইন করতে এই পাসওয়ার্ডটি ব্যবহার করুন।

প্রযুক্তি

৫৯টি নিষিদ্ধ চিনা অ্যাপকে কেন্দ্রের ৭৯টি প্রশ্ন! উত্তর দিতে না পারলে…

আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে প্রশ্নগুলির যথাযথ উত্তর চেয়েছে কেন্দ্র। দিতে না পারলে স্থায়ী ভাবে ভারতে বন্ধ হয়ে যাবে অ্যাপ…

ওয়েবডেস্ক: নিষিদ্ধ হওয়া ৫৯টি চিনা অ্যাপের সামনে এ বার পাহাড়প্রমাণ চাপ!

জানা গিয়েছে, কেন্দ্রের বৈদ্যুতিন এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক (MEITY) নিষিদ্ধ চিনা অ্যাপগুলিকে একটি প্রশ্নমালা পাঠিয়েছে। যেটিতে ৭৯টি প্রশ্ন রয়েছে। আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে প্রশ্নগুলির যথাযথ উত্তর চেয়েছে কেন্দ্র। দিতে না পারলে স্থায়ী ভাবে ভারতে বন্ধ হয়ে যাবে অ্যাপগুলি।

কী বলা হয়েছে?

ইন্ডিয়া টুডে টিভির খবর অনুযায়ী, অ্যাপের ব্যাকগ্রাউন্ড এবং পরিচালনা সম্পর্কে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা এবং আন্তর্জাতিক সাইবার বিশেষজ্ঞ সংস্থার কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করেছে মন্ত্রক।

ওই সমস্ত তথ্যের ভিত্তিতেই অ্যাপগুলির কাছে ৭৯টি প্রশ্নের উত্তর জানতে চাওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, আগামী ২২ জুলাইয়ের মধ্যে উত্তরপত্র জমা করতে। প্রশ্নগুলির যথোপযুক্ত উত্তর না পাওয়া গেলে মন্ত্রক কোনো অ্যাপকে চিরস্থায়ী ভাবে বন্ধ করে দিতে পারে।

কী জানতে চাওয়া হয়েছে?

নিষিদ্ধ চিনা অ্যাপগুলির উদ্দেশে পাঠানো ৭৯টি প্রশ্নের সম্পূর্ণ তালিকার মধ্যে উল্লেখ্যনীয় ভাবে তাদের কর্পোরেট উৎস, তাদের মূল সংস্থার পরিকাঠামো, তহবিল, ডেটা ম্যানেজমেন্ট, কোম্পানির অনুশীলন এবং তাদের ব্যবহৃত সার্ভার সম্পর্কে বিশদ তথ্য জানতে চাওয়া হয়েছে।

সরকার এই সংস্থাগুলির “অননুমোদিত ডেটা অ্যাক্সেস” সম্পর্কিত তথ্য সরবরাহ করতে বলেছে। ওই ডেটা অ্য়াক্সেস গুপ্তচরবৃত্তি এবং নজরদারি চালানোর জন্য অপব্যবহারের আশঙ্কা রয়েছে।

সূত্রের খবর, নোটিশে বলা হয়েছে, তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৬৯ ধারায় এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এই ধারায় সার্বভৌম দেশের সরকারকে এ ধরনের পদক্ষেপ নেওয়ার ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে।

উত্তর মিললে কী হবে?

সংস্থাগুলির কাছে পাঠানো প্রশ্নমালার উত্তর হাতে পাওয়ার পর কেন্দ্র তা এ বিষয়ে গঠিত বিশেষ কমিটির কাছে পৌঁছে দেবে। তারাই উত্তরগুলি খতিয়ে দেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে।

নিষিদ্ধ ঘোষণার পর বিভিন্ন অ্যাপ সংস্থা সরকারি নির্দেশের পুনর্বিবেচনা চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার কথা ভাবছিল। কিন্তু কেন্দ্রের নোটিশ পাঠানোর পদক্ষেপের পর আপাতত সেই ভাবনায় ইতি পড়ল!

কেন্দ্র নিষিদ্ধ?

চিনা মোবাইল অ্যাপ নিষিদ্ধ করে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে বলা হয়েছে, “ভারতের সার্বভৌমত্ব ও সংহতি, প্রতিরক্ষা, রাষ্ট্রের নিরাপত্তা এবং জনশৃঙ্খলার পক্ষে ক্ষতিকর” ৫৯টি অ্যাপ নিষিদ্ধ করা হল।”

অ্যাপগুলির মধ্যে অন্যতম টিকটক (TikTok), ইউসি ব্রাউজার (UC Browser), হ্যালো (Helo), লাইকি (Likee), ক্যাম স্ক্যানার (Cam Scanner), শেয়ারইট (SHAREit), উইচ্যাট (WeChat), ক্লাব ফ্যাক্টরি (Club Factory) ইত্যাদি।

তবে শুধু চিনা অ্যাপ নয়, রেল, বিএসএনএল, জাতীয় সড়ক-সহ বিভিন্ন প্রকল্পে চিনা সংস্থাগুলির বিনিয়োগ এবং পণ্য বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।

Continue Reading

প্রযুক্তি

এটিএম ব্যবহারের সময় কার্ড ক্লোনিং ডিভাইসগুলি থেকে সতর্ক থাকুন

এটিএমে নগদ তোলার ক্ষেত্রেও আপনি কতটা নিরাপদ, সে কথা মাথায় রাখা অবশ্যই দরকার।

atm

ওয়েবডেস্ক: অনলাইন লেনদেনে জালিয়াতির ঘটনা ক্রমশ বাড়ছে। তবে এটিএমে নগদ তোলার ক্ষেত্রেও আপনি কতটা নিরাপদ, সে কথা মাথায় রাখা অবশ্যই দরকার।

উত্তরপ্রদেশ পুলিশের একটি সাম্প্রতিক রিপোর্টে বলা হয়েছে, চলতি সপ্তাহেই গাজিয়াবাদের একটি এটিএম থেকে কার্ড ক্লোনিং ডিভাইস পাওয়া গিয়েছে। স্কিমিং ডিভাইসটি এমন এক গ্রাহকের নজরে পড়ে, যিনি নগদ তোলার জন্য অ্যাক্সিস ব্যাঙ্কের এটিএম ব্যবহার করেছিলেন। এটিএম লেনদেন শেষ হওয়ার পরেও কোনও নগদ না হাতে পাওয়ায় তাই তিনি খোঁজ নিতে শুরু করেন। তখনই তাঁর নজরে পড়ে, মেশিনে সংযুক্ত একটি ব্যাটারি, একটি ক্যামেরা এবং একটি মেমরি কার্ড রয়েছে।

ক্লোনিং/স্কিমিং ডিভাইস

কার্ড ক্লোনিং, স্কিমিং নামেও পরিচিত। ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টের অননুমোদিত অ্যাক্সেস পাওয়ার জন্য সফটওয়্যার বা ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করে ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডের তথ্য কপি করা হয় এই পদ্ধতিতে। এই জালিয়াতির আরও একটি বৈশিষ্ট্য, এটিএম অথবা পয়েন্ট অব সেলে এটা স্ক্যানিং ডিভাইস ব্যবহার করে করা হয়। এই ডিভাইস ব্যবহারকারীর কার্ডটিকে স্ক্যান করে ফেলে। কিন্তু সমস্যা হল এটাই যে, এ ধরনের ডিভাইসগুলি সাধারণত ব্যবহারকারীদের নজরের বাইরে থেকে যায়।

বিশেষজ্ঞদের মতে, কার্ড স্কিমিংয়ের মাধ্যমে অপরাধীরা কার্ডের তথ্য চুরি করতে একটি ছোট্ট ডিভাইস ব্যবহার করে থাকে। এই ডিভাইসটি দেখতে এটিএমের হার্ডওয়্যারগুলির মতোই। ফলে ব্যবহারকারী এটিকে এটিএমের বাড়তি অঙ্গ হিসাবে পৃথক করতে পারেন না। স্কিমিংয়ের মাধ্যমে কার্ডের ম্যাগনেটিক স্ট্রিপ থেকে তথ্য রেকর্ড করে দুষ্কৃতীরা।

ওই রেকর্ড করা তথ্য একটি নতুন কার্ডে প্রোগ্রাম করা যায় এবং কেনাকাটার জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে বা এমনকি সরাসরি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা চুরি করতে ব্যবহার করে জালিয়াতরা।

প্রতিরোধী ব্যবস্থা

তবে বর্তমানে ‘চিপ-অ্যান্ড-পিন’ প্রযুক্তির মতো কয়েকটি পদ্ধতি এটিএম লেনদেনে বাড়তি সুরক্ষা দিয়ে থাকে। জালিয়াতদের কাছ থেকে অ্যাকাউন্টগুলিকে সুরক্ষিত করতে সাহায্য করে এই সমস্ত পদ্ধতি। এ ক্ষেত্রে লেনদেনের সময় একটি চিপ (যেটি কার্ডে উপস্থিত) এবং একটি পিন- দু’টোই প্রয়োজন হয়।

এম্বেডেড মাইক্রোচিপটি এনক্রিপ্ট করা বিশদ তথ্য ধরে রাখে, যা স্কিমারদের কাছে বাধার সৃষ্টি করে। অন্যদিকে পিনটি ব্যক্তিগত ভাবে লেনদেনগুলি যাচাই করতে সহায়তা করে। ফলে ক্লোন করা কার্ডে লেনদেন কঠিন হয়ে যায়।

তবে যে কোনো ধরনের জালিয়াতি এড়াতে আরও কয়েকটি বিষয় নিশ্চিত করার প্রয়োজন রয়েছে। এটিএমের কীপ্যাডে নিজের পিন টইপ করার সময়, সেটা যতটা সম্ভব ঢেকে করতে হবে। এটাই জালিয়াতি ঠেকানোর প্রথম পদক্ষেপ।

Continue Reading

দেশ

বিতর্ক বাঁধলেও ‘পতঞ্জলির করোনা ওষুধ’ অনলাইনে খোঁজের তালিকার শীর্ষস্থানে

গুগল সার্চ ট্রেন্ডের তথ্য অনুযায়ী, গত জুন মাসে ভারতীয়দের খোঁজের তালিকার শীর্ষস্থানগুলিতে ছিল পতঞ্জলি…

ওয়েবডেস্ক: জুন মাসে ভারতীয়রা অনলাইনে সব থেকে বেশি কী কী খুঁজেছেন, তা জানেন কি?

গুগল সার্চ ট্রেন্ডের তথ্য অনুযায়ী, গত জুন মাসে ভারতীয়দের খোঁজের তালিকার শীর্ষস্থানগুলিতে ছিল পতঞ্জলি করোনা মেডিসিন (Patanjali corona medicine), গ্লোবাল ভ্যাকসিন সামিট (Global vaccine summit) এবং ডেক্সামেথেসন (Dexamethasone)। করোনা ভাইরাসে শীর্ষ ভ্যাকসিনগুলির খোঁজের তালিকার শীর্ষ ছিল এগুলিই।

যে ভাবে খোঁজ বেড়েছে পতঞ্জলি করোনা মেডিসিনের

করোনার খোঁজ কমছে!

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সংক্রান্ত খোঁজের বহর অনেকটাই কমেছে বলে জানাচ্ছে গুগল সার্চ ট্রেন্ডস (Google Search Trends)। গত মে মাসের থেকে করোনা-কেন্দ্রিক সার্চ কমেছে প্রায় ৬৬ শতাংশ। তবে গত মোট সার্চের পরিমাণ গত ফেব্রুয়ারির থেকে এখনও দ্বিগুণ।

করোনা-কেন্দ্রিক এই সার্চের মধ্যে অধিকাংশ জায়গা জুড়ে রয়েছে ভ্যাকসিন ফর করোনাভাইরাস লেটেস্ট আপডেট (vaccine for coronavirus latest update)।

দেশের মধ্যে গোয়া থেকে এই সংক্রান্ত খোঁজ সব থেকে বেশি হয়েছে। এর পর রয়েছে যথাক্রমে দিল্লি এবং চণ্ডীগড়। তবে এই ধরনের সার্চ গত মে মাসে ছিল সর্বোচ্চ। প্রতিমাসের গড় সার্চের থেকে এর পরিমাণ ছিল প্রায় পাঁচগুণ।

সুশান্ত সিং রাজপুত

মাসের মাঝামাঝি সময়ে, গত ১৪ জুন বান্দ্রায় নিজের ফ্ল্যাটে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত (Sushant Singh Rajput)। ওই দিনে সার্চ তালিকার শীর্ষে ছিল এই নামটিই।

প্রসঙ্গত, একটি সূত্রের দাবি, আত্মহত্যা করার আগে অভিনেতা নিজেও না কি গুগলে নিজের নাম সার্চ করে দেখেছিলেন। তবে তাঁর আকস্মিক মৃত্যুর পর মুষড়ে পড়া দেশ, অনলাইনে খবরের সত্যতা যাচাইয়ে নিরবচ্ছিন্ন ভাবে সার্চ শুরু করে।

স্বাস্থ্যসুরক্ষা

অনাক্রম্যতা-ভিত্তিক পণ্য প্রস্তুতকারী সংস্থার খোঁজ করতে গিয়ে হমদর্দ, মাদার ডেয়ারি, এভি অর্গানিকসের পাশাপাশি কোকা কোলার সার্চও হয়েছে যথেষ্ট। মাদার ডেয়ারির হলদি মিল্ক, এভি অর্গানিকসের ইভোকাস এইচ-টু-ও, কোকা কোলার স্পাইড বাটার মিল্কের খোঁজ করেছেন ভারতীয়রা।

এ ছাড়া উল্লেখযোগ্য ভাবে সার্চের তালিকার শীর্ষে ছিল সূর্যগ্রহণ (solar eclipse) এবং পিতৃদিবস (Father’s Day)।

Continue Reading
Advertisement
রাজ্য28 mins ago

উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমলেও স্বস্তি দিচ্ছে না আগামী তিন দিনের পূর্বাভাস

দেশ59 mins ago

দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যায় রেকর্ড, তবে মৃত্যুহারে উল্লেখযোগ্য পতন

দেশ1 hour ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৮৭০১, সুস্থ ১৮৮৪৯

বিদেশ1 hour ago

কমদামী ও সহজলভ্য দুই ওষুধের সংমিশ্রণেই কমছে করোনার মারণ ক্ষমতা?

বিদেশ2 hours ago

রাশিয়ার করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল সফল, দাবি বিজ্ঞানীদের

কলকাতা2 hours ago

রবিবার রাতের প্রবল বৃষ্টিতে কলকাতার বিস্তীর্ণ অঞ্চল জলমগ্ন

ক্রিকেট11 hours ago

ক্রিকেটের প্রত্যাবর্তনে ঐতিহাসিক জয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের

বাংলাদেশ13 hours ago

জাল করোনা-শংসাপত্র চক্রের অন্যতম পাণ্ডা ধৃত ও চাকরি থেকে বরখাস্ত

দেশ1 hour ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৮৭০১, সুস্থ ১৮৮৪৯

দুর্গা পার্বণ2 days ago

আজও ভিয়েন বসিয়ে হরেক রকম মিষ্টি তৈরি হয় চুঁচড়ার আঢ্যবাড়ির দুর্গাপুজোয়

ফুটবল3 days ago

এটিকে-মোহনবাগানের নতুন লোগো প্রকাশিত, জার্সির রঙ সবুজমেরুনই

কলকাতা2 days ago

সক্রিয় রোগীর নিরিখে এই মুহূর্তে কলকাতার অবস্থান কত নম্বরে?

শিক্ষা ও কেরিয়ার3 days ago

প্রকাশিত হল আইসিএসই এবং আইএসসি ফলাফল, মিলল না মেধা তালিকা!

atm
প্রযুক্তি3 days ago

এটিএম ব্যবহারের সময় কার্ড ক্লোনিং ডিভাইসগুলি থেকে সতর্ক থাকুন

দেশ3 days ago

শারীরিক দুরত্ব ভেঙে মানবিক দায়িত্ব পালন

Shaktikanta Das
দেশ2 days ago

কোভিড-১৯ স্বাস্থ্য এবং অর্থনীতির সামনে শেষ একশো বছরের সব থেকে বড়ো সংকট: আরবিআই গভর্নর

কেনাকাটা

কেনাকাটা4 days ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা6 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা7 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা1 week ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

নজরে