ট্রু কলার-এর নতুন মেসেজিং ফিচার, জানুন কী ভাবে ব্যবহার করবেন

0

মাঝেমধ্যেই শোনা যায়, ট্রু কলার গ্রাহকের ফোন সংক্রান্ত ব্যক্তিগত তথ্য ডার্ক ওয়েবে বিক্রি হয়ে যায়। তবে এই অ্যাপ ব্যবহারকারীর সংখ্যা নেহাতই কম নয় ভারতে। গ্রাহকদের দিকে তাকিয়েই নতুন একটি ফিচার চালু করেছে সংস্থা। জেনে নিন, কী ভাবে ব্যবহার করবেন ট্রু কলার-এর এই মেসেজিং ফিচার।

1. একাধিক ফিচার

নতুন ফিচারের মধ্যে রয়েছে আর্জেন্ট মেসেজ, স্মার্ট কার্ড শেয়ার, নতুন করে তৈরি করা স্মার্ট এসএমএস, পাঠানো চ্যাট মেসেজ এডিট করার সুবিধা এবং ডিফল্ট ভিউ সেট করা।

2. আর্জেন্ট মেসেজ

ফ্ল্যাশ মেসেজের মতো এগুলোও প্রাপকের স্কিনে দেখা যাবে। যদি অ্যাপ খোলা থাকে, তা হলেও এটা পড়া যাবে এবং যতক্ষণ না পড়া হচ্ছে, ততক্ষণ এটা দেখা যাবে। খুব কম সময়ের মধ্যেই মেসেজটি পড়ে নিয়ে প্রেরককে জবাব জানিয়ে দেওয়া যাবে এই ফিচারে।

3. ডিফল্ট লঞ্চ স্ক্রিন সেট

ট্রু কলার অ্যাপের ডিফল্ট চেহারা বেছে নেওয়ার সুযোগ রয়েছে এই ফিচারে। কল বা মেসেজ ট্যাবে সাধারণ ভাবেই এটি ডিফল্ট ভিউ হিসাবে সেট করা যেতে পারে। পরের বার অ্যাপটি খোলা হলে, এটি ডিফল্টে খুলবে।

4. পাঠানো মেসেজ এডিট করা

চ্যাট মেসেজে কাউকে কিছু লেখার পরও সেটা এডিট করা যায় এই ফিচারে। অর্থাৎ, তাড়াহুড়ো করে কাউকে মেসেজ পাঠাতে গিয়ে টাইপে কোনো ভুল হয়ে গেলে, সেটা ঠিক করে নেওয়া সম্ভব। যে কোনো সময় পাঠানো চ্যাট মেসেজ এডিট করা যাবে এই ফিচারটিতে। তবে এটা শুধুমাত্র চ্যাটের জন্য, এসএমএস নয়।

5. স্মার্ট এসএমএস

হাজার হাজার টেক্সট মেসেজ স্মার্ট ফিল্টার ব্যবহার করে এক জায়গায় আনা যেতে পারে এই ফিচারে। যেমন লেনদেন, বিতরণ, ভ্রমণ, বিল ইত্যাদি। ফলে একই বিষয়ে পাওয়া প্রতিটা নতুন এসএমএস পড়ার জন্য বিভিন্ন এসএমএস থ্রেডের ভিতরে এবং বাইরে যেতে হবে না।

6. স্মার্ট কার্ড শেয়ার

এই ফিচারে ব্যবহারকারী একটি ছবির আকারে স্মার্ট কার্ড শেয়ার করতে পারেন যাতে তথ্যগুলো যে কেউ সহজেই পড়তে পারেন। এমনকী তিনি ট্রুকলার ব্যবহার করেন কি না, সেটা কোনো ব্যাপার নয়।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল