বাঘ দেখতে চান? তীব্র গরম উপেক্ষা করে চলুন…

1
1544
tadoba forest

ওয়েবডেস্ক: জঙ্গলে বাঘ দেখার উত্তম সময় এই গরমকাল। কারণ এই সময়েই জঙ্গলের কোর এরিয়া থেকে বেরিয়ে আসে বাঘ, জল খাওয়ার জন্য। ভরা গরমে কষ্ট হতে পারে, কিন্তু কষ্ট না করলে কি কষ্ট মেলে। আর ভারতে বাঘ দেখার সব চেয়ে বেশি চান্স মহারাষ্ট্রের তাড়োবা-আন্ধেরি টাইগার রিজার্ভে। সব চেয়ে বড়ো কথা হল, মে মাসে ওই দিকে যাওয়ার জন্য ট্রেনে টিকিটও পেয়ে যাবেন। সুতরাং আর দেরি কেন, চলুন, তাড়োবা-আন্ধেরির সঙ্গে নাগজিরাকে জুড়ে একটা ভ্রমণছক বানিয়ে ফেলি।

bodhalkasa
বোধলকসা।

নাগজিরা-তাড়োবা ভ্রমণছক

প্রথম দিন – হাওড়া থেকে রওনা।

দ্বিতীয় দিন – পৌঁছে যান গোন্ডিয়া। চলুন ৩৪ কিলোমিটার দূরের বোধলকসা। ছোটো ছোটো পাহাড়, জঙ্গল, ঝরনার মাঝে প্রকৃতি উপভোগ করুন বোধলকসায়। রাত্রিবাস।

তৃতীয় দিন – চলুন নাগজিরা। রাত্রিবাস।

nagzira forest
নাগজিরার জঙ্গল।

চতুর্থ দিন – চলুন ১০৯ কিমি দূরের নাগপুর হয়ে আরও ১৪১ কিমি দূরের তাড়োবা। রাত্রিবাস তাড়োবা।

পঞ্চম দিন – রাত্রিবাস তাড়োবা।

ষষ্ঠ দিন – ফিরুন নাগপুর। রাত্রিবাস নাগপুর। ভোঁসলেদের রাজধানী ছিল নাগপুর। দেখে নিন ভোঁসলে প্রাসাদ, ভোঁসলে ছত্তিশ, গান্ধীসাগর, গান্ধীবাগ, সতী মন্দির।, সর্বেশ্বরা মন্দির ইত্যাদি।

সপ্তম দিন – ঘরে ফেরার ট্রেন ধরুন।

কী ভাবে যাবেন

হাওড়া থেকে মুম্বই ও গুজরাতগামী সমস্ত ট্রেনে স্লিপার ক্লাসে জায়গা রয়েছে। এ ছাড়া সাঁতরাগাছি-রাজকোট এসি স্পেশালেও জায়গা পাবেন। এটি ৩০ জুন পর্যন্ত চলছে সপ্তাহে একদিন। হাওড়া থেকে ছাড়ে প্রতি শুক্রবার। বিস্তারিত সময়ের জন্য দেখে নিন erail.in। মুম্বইগামী দুরন্ত এক্সপ্রেসেও জায়গা আছে, সে ক্ষেত্রে আপনাকে নামতে হবে নাগপুরে।

দুরন্ত এক্সপ্রেস-সহ নাগপুর থেকে হাওড়া ফেরার সব ট্রেনেই স্লিপার ক্লাসে জায়গা আছে। রাজকোট-সাঁতরাগাছি এসি স্পেশালেও জায়গা আছে। প্রতি মঙ্গলবার নাগপুর থেকে ছাড়ে সকাল ১১.০৫ মিনিটে।

inside tadoba forest
তাড়োবার জঙ্গলে।

কী ভাবে ঘুরবেন

সর্বত্রই বাস সার্ভিস রয়েছে। তবে গাড়ি ভাড়া করে নিলে সুবিধা। গোন্ডিয়া বা নাগপুর থেকে গাড়ি ভাড়া করে বোধলকসা ও নাগজিরা দেখে নাগপুরে এসে গাড়ি ছেড়ে দিন। পয়েন্ট টু পয়েন্ট গাড়িও ভাড়া করতে পারেন। নাগপুর থেকে চন্দ্রপুর হয়ে বাসে চলুন তাড়োবা। গাড়ি ভাড়া করেও যেতে পারেন।

কোথায় থাকবেন

নাগজিরায় থাকার জন্য আছে ফরেস্ট ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন অফ মহারাষ্ট্রের (এফডিসিএম) লগ হাট, মধুকুঞ্জ, লতাকুঞ্জ, হলিডে হোম, ডর্মিটরি। নাগজিরার গেট চোরখামারা থেকে ২৯ কিমি দূরে পিতেজারিতেও রয়েছে এফডিসিএম-এর ইকো টুরিজম কমপ্লেক্স। অনলাইন বুকিং www.fdcm.nic.in

নাগজিরার গেট চোরখামারায় রয়েছে নাগজিরা টাইগার রিসর্ট। যোগাযোগ: সুধাকর দহিকর (০৯৬৭৩৩৮৭৫৬১)। এদের ওয়েবসাইট nagziratigerresort.org

নাগজিরার কাছে বোধলকসায় রয়েছে মহারাষ্ট্র টুরিজম ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশনের (এমটিডিসি) রিসর্ট। অনলাইন বুকিং  www.maharsahtratourism.gov.in 

mtdc resort, moharli, tadoba
এমটিডিসি রিসর্ট, মোহারলি।

তাড়োবার গেট মোহারলিতে রয়েছে মহারাষ্ট্র পর্যটনের রিসর্ট। অনলাইন বুকিং www.maharsahtratourism.gov.in

তাড়োবায় এফডিসিএম-এর রিসর্ট আছে মোহারলি ও কোলারা গেটে। অনলাইন বুকিং www.fdcm.nic.in

এ ছাড়া নাগজিরা, তাড়োবা ও নাগপুরে বেশ কিছু বেসরকারি হোটেল, রিসর্ট রয়েছে। এদের সন্ধান পাবেন makemytrip, goibibo, trivago, cleartrip ইত্যাদি ওয়েবসাইট থেকে।

মনে রাখবেন

১) মঙ্গলবার তাড়োবা বন্ধ থাকে।

২) যেখানে রাত্রিবাস করবেন সেখান থেকে জঙ্গল সাফারির যাবতীয় খোঁজখবর পাবেন।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

1 মন্তব্য

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here