ঘুরে আসুন কম খরচে: খবর অনলাইনের বাছাই/২

0
5167

মন সদাই উড়ু উড়ু। কিন্তু পকেটে টান। চিন্তার কী আছে? এমন অনেক জায়গা আছে, যেখানে কম খরচে থাকা যায়, খাওয়া যায়, ঘোরাও যায়। অনেক জায়গা আছে, যেখানে প্রায় নিখরচায় থাকা যায়। শুধু মনে রাখবেন যাঁরা সেই পরিষেবা দেন, তাঁরা কিছু ডোনেশন আশা করেন। ডোনেশন দেবেন আপনার ক্ষমতামতো। আর একটা কথা। ধর্মশালা বলতে আগেকার সেই ছবি আর নেই। ধর্মশালাতেও অ্যাটাচড্‌ বাথ আছে, পরিচ্ছন্ন শয্যা আছে। হয়তো বাণিজ্যিক হোটেলের বিলাসিতা নেই। আর ঘোরাঘুরির জন্য আছে স্থানীয় যানবাহন। এক জায়গায় থেকে আর এক জায়গা যাওয়ার জন্য পাবেন রাজ্য পরিবহণ ও বেসরকারি বাস। রয়েছে বাসে আসন সংরক্ষণের জন্য অনলাইন বুকিং ব্যবস্থা।

খবর অনলাইন এ রকমই কিছু জায়গার সুলুক সন্ধান দিচ্ছে। আজ দ্বিতীয় কিস্তি।

চলুন দিন সাতেকের জন্য ঘুরে আসা যাক সোমনাথ-পোরবন্দর-দ্বারকা।

সোমনাথ

সোমনাথ মন্দির।

আমদাবাদ থেকে ৪০০ কিমি সোমনাথ। রাজ্য পরিবহণের বাসে চলে আসুন।

আরব সাগরের উপকূলে ইতিহাসখ্যাত সোমনাথ। সৈকত ছাড়াও রয়েছে দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গের অন্যতম জ্যোতির্লিঙ্গ। বিদেশি হানাদারদের হাতে ১৭ বার আক্রান্ত হয়েছে সোমনাথের মন্দির। শেষ পর্যন্ত সর্দার বল্লভভাই পটেলের উদ্যোগে মূল মন্দিরের জায়গায় নতুন মন্দির হয়েছে ১৯৫০-এর ১২ মে। আর পুরাতন মন্দির বলে যেটি আছে সেটিও নতুন মন্দির। ১৭৮৩-তে অহল্যাবাঈয়ের গড়া মন্দিরের স্মারকরূপে তৈরি দ্বিতল মন্দির। এ ছাড়াও বহু মন্দির আছে এখানে। রয়েছে পরশুরামের তপোভূমি, সূর্য মন্দির, ত্রিবেণী সঙ্গম বা প্রভাস তীর্থ। ভেরাবলের (৬ কিমি) পথে আছে ভালুকা তীর্থ। কথিত আছে, এখানে অশ্বত্থগাছের তলায় বিশ্রামরত শ্রীকৃষ্ণ তিরবিদ্ধ হন ব্যাধের হাতে।

আরও পড়ুন: ঘুরে আসুন কম খরচে: খবর অনলাইনের বাছাই/১

সোমনাথে থাকার জন্য টেম্পল ট্রাস্টের হরেক রকম ব্যবস্থা আছে – দামি থেকে বাজেট। লীলাবতী অতিথিগৃহ ও মাহেশ্বরী সমাজ অতিথিগৃহে নন এসি দ্বিশয্যা ঘর ৭৫০ টাকা, এসি দ্বিশয্যা ঘর ১১০০ টাকা। তন্না অতিথিগৃহে নন এসি দ্বিশয্যা ঘর ৪০০ টাকা, নন এসি দ্বিশয্যা ডিলাক্স ঘর ৫৫০ টাকা। ধর্মশালায় ১০ জনের ডর্মিটরি ২৫০ টাকায়, ২০ জনের ডর্মিটরি ৪৫০ টাকায় এবং সাংস্কৃতিক ভবনে ২০ জনের ডর্মিটরি ৪৫০ টাকায় ও ৩৫ জনের ডর্মিটরি ৭৫০ টাকায়।

লীলাবতী অতিথিগৃহ ও মাহেশ্বরী সমাজ অতিথিগৃহে অনলাইন বুকিং www.somnath.org

এ ছাড়াও যোগাযোগ ৯৪২৮২ ১৪৯১৪ (সকাল ৮টা থেকে রাত ৯টা), ০২৮৭৬ ২৩৩০৩৩ (লীলাবতী), ০২৮৭৬ ২৩১২১২ (তন্না) এবং ০২৮৭৬ ২৩৩১৩০ (মাহেশ্বরী)।

টেম্পল ট্রাস্টের অতিথিভবনে কম খরচে সুস্বাদু নিরামিষ আহার।

কম খরচে ঘোরাঘুরির জন্য রয়েছে অটো, টাঙা। কয়েক ঘণ্টার চুক্তিতে ভাড়া নিয়ে নেবেন।

পোরবন্দর

কীর্তি মন্দির।

সোমনাথ থেকে বাসে চলুন ১২২ কিমি দূরের পোরবন্দর।

মহাভারতের সুদামাপুরী আজকের পোরবন্দর। সৈকতশহর পোরবন্দরের খ্যাতি গান্ধীজির জন্মস্থান হিসাবে। তাঁর জন্মস্থানে গড়া হয়েছে কীর্তিমন্দির। কীর্তিমন্দিরের পথে শ্রীকৃষ্ণের বাল্যসখা সুদামার প্রাসাদ তথা মন্দির। শহরের উত্তরে সেতু পেরিয়ে ভারত মন্দির। রয়েছে নেহরু প্ল্যানেটেরিয়াম। শহরের প্রাণকেন্দ্রেই রয়েছে পাখিরালয়।

স্টেশন রোড ও এম জি রোড এলাকা ও তার আশেপাশে বেশ কিছু বেসরকারি হোটেল আছে, যেখানে ৭০০ টাকার মধ্যে দ্বিশয্যা ঘর পাওয়া যায়।   

অটো বা টাঙায় চেপে পোরবন্দরের দ্রষ্টব্য দেখে নিন।

দ্বারকা

মন্দির শহর দ্বারকা।

পোরবন্দর থেকে বাসে চলুন ১২৮ কিমি দূরের দ্বারকা।

দ্বারকাধীশ বা রণছোড়জির মন্দিরের জন্যই খ্যাতি দ্বারকার। গোমতী-তটে ১১ শতকের মন্দির। দ্বারকাধীশ মন্দিরের নিচু দিয়ে বয়ে যাওয়া গোমতী নদীতে ঘেরা দ্বীপে কৃষ্ণ মন্দির। দ্বারকাধীশ মন্দির থেকে ওখার পথে ২ কিমি রুক্মিণী মন্দির। রয়েছে ভদ্রকালী মন্দির, পঞ্চনদ তীর্থ, লাইটহাউস।

সমুদ্রবেলায় তারকেশ্বর। সৈকতের দৃশ্য অসাধারণ। দেখে নিন শংকরাচার্য প্রতিষ্ঠিত সারদা মঠ।

৩০ কিমি দূরে প্রবাল রাজ্য পোশিত্রা। ওখার পথে ১৭ কিমি দূরে দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গের অন্যতম নাগেশ্বর। ওখামুখী আরও যেতে গোপী তালাও, মীরাবাঈয়ের মন্দির।

দ্বারকা থেকে চলুন বেট দ্বারকা। ৩২ কিমি দূরের ওখায় যাচ্ছে বাস ও ট্রেন। সেখান থেকে আরব সাগরের ওপর দিয়ে লঞ্চে বেট দ্বারকা। অসংখ্য মন্দির এখানে। সে সব দেখতে যেমন এখানে আসা, তেমনই আরেকটি আকর্ষণ সমুদ্রযাত্রা।

দ্বারকায় থাকার জন্য নানা মানের ও নানা দামের মন্দির অতিথি ভবন তথা ধর্মশালা রয়েছে। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য সাগরপারে গায়ত্রী শান্তিবন। চার শয্যার নন এসি ঘর ৪৫০ টাকা, পাঁচ শয্যার নন এসি ঘর ৫০০ টাকা এবং পাঁচ শয্যার নন এসি ডিলাক্স ঘর ৭২৮ টাকা। অনলাইন বুকিং yatradham.org

দ্বারকায় থাকার জন্য বাঙালিদের খুব পছন্দের জায়গা সুবোধকুমার চক্রবর্তীর ‘রম্যাণি বীক্ষ্য’ খ্যাত তোতাদ্রি মঠ। রেলস্টেশনের কাছেই তোতাদ্রি মঠ। আর তার কাছেই ভারত সেবাশ্রম সংঘ (যোগাযোগ ০২৮৯২-২৩৪১৫৭, কলকাতা অফিস ০৩৩-২৪৪০৫১৭৮/২৩২৭, ০৩৩-২৪৬০১৩৮১)

এ ছাড়াও থাকার জন্য রয়েছে দ্বারকাধীশ অতিথিগৃহ (০২৮৯২-২৩৪০৯০), গায়ত্রী অতিথিগৃহ (০২৮৯২-২৩৪৪৪৮), কোকিলা ধীরাজ ধাম (০২৮৯২-২৩৬৭৪৬)। এ ছাড়াও সাগরপাড়ে রয়েছে বিড়লা ধর্মশালা এবং গোমতী রোডে জয় রণছোড় ধর্মশালা, স্বামীনারায়ণ ধর্মশালা ও পটেলওয়াড়ি ধর্মশালা ইত্যাদি।

দ্বারকা স্টেশনে রয়েছে রেলের রিটায়ারিং রুম। অনলাইন বুকিং     www.rr.irctctourism.com

দ্বারকায় অটো, টাঙায় ঘুরতে পারেন। আর নগর পঞ্চায়েতের বাস দ্বারকা থেকে কন্ডাক্টেড ট্যুরে নিয়ে যাচ্ছে বেট দ্বারকা, নাগেশ্বর ও গোপী তালাও।    

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here