বন্দিদশা থেকে মুক্তির স্বাদ: পুজোয় চলুন ফুটিয়ারি

0
ফুটিয়ারি।

ঘরবন্দি শরীর আর মন দু’টোই একটু হাঁফ ছাড়তে চাইছে। তার ওপর দোরগোড়ায় পুজো। ভ্রামণিক বাঙালি পুজোর ছুটিতে ঘরে থাকতে চায় না। কিন্তু এ বার করোনার আবহে বাড়ির বাইরে বেরোনো নিয়ে অনেকেই দ্বিধায় ভুগছেন। করোনা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। তাই দ্বিধা ছেড়ে বেরিয়ে পড়ুন। দূরের ভ্রমণে না হোক, কাছেপিঠে তো যাওয়াই যায়, তিন-চার দিনের ভ্রমণে। শুধু মাথায় রাখবেন স্বাস্থ্যবিধি মানার কথা।

এমনই কিছু জায়গার কথা বিশদে জানাচ্ছে খবরঅনলাইন। আজ চতুর্থ পর্বে পুরুলিয়ার জেলার ফুটিয়ারি

পাহাড়ের নিচু ঢালের পাশ দিয়ে বয়ে চলেছে পিচঢালা কালো রাস্তা।

ঘোরাঘুরি

আপন খেয়ালে বয়ে চলা ফুটিয়ারি নদীর উপর ফুটিয়ারি ড্যাম। তিন দিকে তিন পাহাড় – তিলাবনি, পাঞ্জোনিয়া, সিন্দুরপুর। প্রকৃতির খামখেয়ালিপনায় বেড়ে ওঠা কাশবন, শরতের নীল আকাশ আর ছোটোনাগপুর মালভূমির মনভোলানো ল্যান্ডস্কেপ। এর সঙ্গে তাল-পলাশ-কুসুম-মহুয়ার সদর্প উপস্থিতি। বাঁধের রাস্তা ধরে হেঁটে চলুন।

ঘুরতে বেরিয়ে পড়ুন কাছেপিঠে –

চলুন তিলাবনি, প্যাঞ্জোনিয়া আর সিন্দুরপুরের দিকে তিন পাহাড়ের সান্নিধ্যলাভ করতে। মাত্র ১০-১২ কিমি ব্যাসার্ধের মধ্যে যেন এক স্বপ্নভূমি। পথের শোভা মুগ্ধ করে। ফুটিয়ারি থেকে তিলাবনি ৫ কিমি, তিলাবনি থেকে সুন্দরপুর ৫ কিমি।

সুন্দরপুর থেকে চলুন দ্বারকেশ্বর নদীর উৎপত্তিস্থল দেখতে দুর্গাসিংডাঙায়, দূরত্ব প্রায় ৩ কিমি।

অপরূপা ফুটিয়ারি। ছবি: সঞ্জয় গোস্বামী

পরের গন্তব্য কাশীপুর রাজবাড়ি, দুর্গাসিংডাঙা থেকে ২০ কিমি।

এ বার চলুন পাকবিড়রা ভৈরবস্থান, কাশীপুর থেকে ৩৯ কিমি। কষ্টিপাথরের এক অদ্ভুত শৈলী যা সচরাচর দেখা যায় না। ফিরে আসুন ফুটিয়ারিতে, দূরত্ব ৩৬ কিমি।

কিছুটা দূরে

অচেনা, অনাঘ্রাত পুরুলিয়ার স্বাদ তো নিলেন। এর বাইরেও তো চেনা পুরুলিয়া রয়েছেই – অযোধ্যা পাহাড়, টুরগা ফল্‌স, আপার ড্যাম, লোয়ার ড্যাম, বামনি ফল্‌স, চড়িদা, পাখিপাহাড় ইত্যাদি। ফুটিয়ারি থেকে দূরত্ব কিছুটা বেশি – ৭০-৮০ কিমির মধ্যে।

কাশীপুর রাজবাড়ি।

যাতায়াত

ফুটিয়ারি যাওয়ার প্রধান উপায় ট্রেনে পুরুলিয়া এবং সেখান থেকে গাড়িতে ফুটিয়ারি।

ট্রেনে পুরুলিয়া – (১) সাঁতরাগাছি-পুরুলিয়া স্পেশাল রোজ সকাল ৬.২৫ মিনিটে সাঁতরাগাছি ছেড়ে পুরুলিয়া পৌঁছোয় সকাল ১১.৪৫-এ; (২) হাওড়া-চক্রধরপুর স্পেশাল রোজ রাত ১২.০৫ মিনিটে হাওড়া ছেড়ে পুরুলিয়া পৌঁছোয় সকাল ৬.১৫ মিনিটে।

পুরুলিয়া থেকে ট্রেন – (১) পুরুলিয়া-হাওড়া স্পেশাল রোজ ভোর ৫.৩০ মিনিটে পুরুলিয়া ছেড়ে হাওড়া পৌঁছোয় সকাল ১১.২৫ মিনিটে; (২) চক্রধরপুর-হাওড়া স্পেশাল রোজ রাত ৯.১০ মিনিটে পুরুলিয়া ছেড়ে হাওড়া পৌঁছোয় ভোর সাড়ে ৪টেয়।

পুরুলিয়া থেকে ফুটিয়ারি ২৬ কিমি, গাড়িতে যেতে হবে।

ফুটিয়ারির প্রকৃতি। ছবি: সঞ্জয় গোস্বামী।

সড়কপথে – কলকাতা থেকে সরাসরি গাড়ি করে ফুটিয়ারি আসা যায়। অনেক পথ রয়েছে – (১) কলকাতা থেকে ডানকুনি-চাঁপাডাঙা-আরামবাগ-বিষ্ণুপুর-বাঁকুড়া হয়ে ফুটিয়ারি ২৪৩ কিমি; (২) কলকাতা থেকে ডানকুনি-তারকেশ্বর-আরামবাগ-বিষ্ণুপুর-বাঁকুড়া হয়ে ফুটিয়ারি ২৫২ কিমি; (৩) কলকাতা থেকে দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়ে ধরে বর্ধমান, সেখান থেকে পাত্রসায়র-সোনামুখী-বেলেতোড়-বাঁকুড়া হয়ে ফুটিয়ারি ২৬৮ কিমি; (৪) কলকাতা থেকে দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়ে ধরে রানিগঞ্জ, সেখান থেকে বাঁকুড়া হয়ে ফুটিয়ারি ২৭৯ কিমি; (৫) কলকাতা থেকে দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়ে ধরে দুর্গাপুর, সেখান থেকে বাঁকুড়া হয়ে ফুটিয়ারি ২৮৩ কিমি।         

থাকাখাওয়া

শালুকের সমারোহ, ফুটিয়ারি রিট্রিট। ছবি: সঞ্জয় গোস্বামী।

ফুটিয়ারিতে থাকুন ফুটিয়ারি রিট্রিট। যোগাযোগ: ট্রাভেলিজম (Travelism): ৮২৭৬০০৮১৮৯, ৯৯০৩৭৬৩২৯৬।

মনে রাখবেন

(১) কী ভাবে ঘুরবেন তা আরও ভালো করে জানার জন্য ফুটিয়ারি রিট্রিটের কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে নেবেন। ঘুরে দেখার জন্য ফুটিয়ারি থেকে গাড়ি পেয়ে যাবেন।

(২) টিকার দু’টি ডোজের সার্টিফিকেট সঙ্গে রাখবেন। না হলে আরটি-পিসিআর নেগেটিভ রিপোর্ট।

আরও পড়তে পারেন

বন্দিদশা থেকে মুক্তির স্বাদ: পুজোয় চলুন ঝিলিমিলি

বন্দিদশা থেকে মুক্তির স্বাদ: পুজোয় চলুন কাশীরাম দাসের সিঙ্গি গ্রাম

বন্দিদশা থেকে মুক্তির স্বাদ: পুজোয় চলুন ঘাটশিলা

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন