landrover in sandakfu

ওয়েবডেস্ক: রাজ্যের উচ্চতম জায়গা সান্দাকফু। সমুদ্রতল থেকে ১১,৯৩০ ফুট উচ্চতায় এই জায়গায় একবার পৌঁছে যেতে পারলে যেন মনে হবে স্বর্গে পৌঁছে গিয়েছেন। এক দিকে কাঞ্চনজঙ্ঘা, অন্য দিকে এভারেস্ট নিয়ে অসাধারণ একটা জায়গা এই সান্দাকফু। কিন্তু অনেকের ইচ্ছে থাকলেও যেতে পারেন না। রাস্তা অত্যন্ত খাড়াই হওয়ার ফলে পায়ের ওপরে ভরসা রাখাই শ্রেয় বলে মনে করেন পর্যটকরা। যাঁরা পায়ে যেতে পারেন না, তাঁদের জন্য এত দিন ছিল ল্যান্ডরোভার।

সান্দাকফুর সঙ্গে যেন ওতপ্রোত ভাবে জড়িয়ে গিয়েছিল ব্রিটিশ আমলের এই ঐতিহ্যশালী গাড়িটা। কিন্তু এ বার থেকে সান্দাকফুর রাস্তায় আর দেখা যাবে না এই ল্যান্ডরোভারকে। কারণ, সান্দাকফুর রাস্তায় এই ল্যান্ডরোভার চালানোর ওপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে দার্জিলিং জেলা প্রশাসন। কিছু দিন আগেই এই সংক্রান্ত একটি নির্দেশিকা জারি করেছেন জেলাশাসক জয়সী দাশগুপ্ত।

তবে চিন্তা করবেন না। পায়ে হেঁটে আপনাকে সান্দাকফু যেতে হবে না। ল্যান্ডরোভারের বদলে মহিন্দ্রা সংস্থার বোলেরো চলবে ওই রাস্তায়। গাড়িগুলোর বয়সের জন্যই যে ল্যান্ডরোভারকে বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, সে কথা পরিষ্কার করে জানিয়ে দিয়েছেন জেলাশাসক।

বেশির ভাগ ল্যান্ডরোভারের বয়স এখন ৫০-এর বেশি। পাহাড়ি রাস্তায় উঠতে গেলে বয়সের ভারে এই গাড়ি খারাপ হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়। পাশাপাশি এই গাড়ি খারাপ হয়ে গেলে তার সরঞ্জাম বাজারে পাওয়াও খুব দুষ্কর হয়ে উঠেছে। তবে জয়সীদেবী বলেন, ল্যান্ডরোভারের মালিকরা বোলেরো কিনতে চাইলে তাদের বিশেষ ভর্তুকি দেবে সরকার।

সান্দাকফুর রাস্তায় ল্যান্ডরোভার বন্ধ হয়ে গেলেও দার্জিলিং এবং মিরিকে এই ল্যান্ডরোভারেই হেরিটেজ রাইডের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান জয়সীদেবী।

 

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন