চন্দননগরের স্ট্র্যাণ্ড

ওয়েবডেস্ক: হুগলিকে জনপ্রিয় উইকএন্ড স্পট হিসেবে গড়ে তুলতে একগুচ্ছ পরিকল্পনা নিল রাজ্য পর্যটন দফতর।

এই প্রসঙ্গে পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব বলেন, “সবুজদ্বীপকে আরও বেশি আকর্ষণীয় করে তোলা হচ্ছে। ওই দ্বীপে কটেজ তৈরি করছে রাজ্য পূর্ত দফতর। পাশাপাশি পনেরো কোটি টাকা খরচে দ্বীপটাকে চারিদিক দিয়ে বাঁধ দেওয়া হচ্ছে। এই বাঁধ দেওয়ার ফলে দ্বীপে ভাঙনের সমস্যা থাকবে না।”

ওই দ্বীপের মধ্যেই নতুন একটি পার্ক তৈরি করা হবে বলে জানিয়েছেন পর্যটন দফতরের এক আধিকারিক।

ইতিমধ্যেই হুগলির ইমামবাড়াকে নতুন রূপ দেওয়ার জন্য কাজ শুরু করেছে পর্যটন দফতর। ইমামবাড়া থেকে ব্যান্ডেল চার্চ পর্যন্ত একটি রোপওয়ের কাজও চলছে। পিপিপি মডেলে এই রোপওয়ে চলবে।

আরও পড়ুন ওয়েবসাইটের পর্যটন বিভাগে জলপাইগুড়ি জেলা এখনও অবিভক্ত, দ্রুত সংশোধনের আশ্বাস প্রশাসনের

চন্দননগরেও পর্যটনের প্রসারে বেশ কিছু পদক্ষেপ করা হয়েছে বলে জানান গৌতমবাবু। তাঁর কথায়, “১৪ কোটি টাকা খরচে, চন্দননগরের ওয়ান্ডারল্যান্ড পার্কে কটেজ তৈরি করছে কেএমডিএ। কেএমডিএর উদ্যোগে নতুন রূপ পাচ্ছে নিউ দিঘা পর্যটন কেন্দ্রও।”

গৌতমবাবু আরও বলেন, “আঁটপুরে অতিথি নিবাস তৈরি করার জন্য রামকৃষ্ণ মিশনকে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে। সেই সঙ্গে বাঁশবেড়িয়ার হংসেশ্বরী মন্দিরও মেরামত করা হচ্ছে।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here