নিজস্ব প্রতিনিধি: ভেতো বাঙালির অ্যাডভেঞ্চারের প্রতি ঝোঁক বেড়েছে। সেই কবে বিভূতিভূষণ বাঙালির দুর্নাম কাটাতে শংকরের মতো চরিত্র তৈরি করেছিলেন। আফ্রিকার জঙ্গলে গিয়ে ততটা অ্যাডভেঞ্চার না করলেও মাসাইমারায় জঙ্গল সাফারি করার স্বপ্ন কিন্তু বাঙালি দেখছে।

তথ্য বলছে, ২০১৮ সালে ভারতে পর্যটনশিল্পে ৬ শতাংশেরও বেশি বৃদ্ধি হয়েছে। দেশের জিডিপিতে এর অবদান ৯.২ শতাংশ। এই বৃদ্ধিটা অব্যাহত থাকবে বলে বিশেষজ্ঞ মহলের মত। এফআইসিসিআই-ইয়েস ব্যাঙ্কের একটি রিপোর্ট বলছে, প্রতি বছর ৬.৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ২০২৯-এ পর্যটনশিল্প ৩৫ লক্ষ কোটি টাকার বাণিজ্য করবে। এর একটা উল্লেখযোগ্য অংশ আসবে অ্যাডভেঞ্চার ট্যুরিজম থেকে।

পর্যটকদের মধ্যে আগ্রহ বাড়াতে সরকারি-বেসরকারি পর্যটন সংস্থাগুলো ট্যুরিস্ট স্পটগুলোতে নানা অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টসের আয়োজন করছে, যেমন প্যারাগ্লাইডিং, স্কুবা ড্রাইভিং, মাউন্টেনিয়ারিং, আরও নানা কিছু। এ ছাড়াও অ্যাডভেঞ্চারের জন্য নতুন নতুন স্পট তৈরি হচ্ছে। ফলে আগ্রহ বাড়ছে অ্যাডভেঞ্চার ট্যুরিজমে।

তাই পর্যটকদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে কলকাতার অন্যতম বড় পর্যটন মেলা ‘ট্যুরিজম ফেয়ার’ এ বার তাদের মেলার থিম করেছে ‘অ্যাডভেঞ্চার ট্যুরিজম’।

কেন ‘অ্যাডভেঞ্চার ট্যুরিজম’?

কারণটা জানালেন ব্লু আই ইন্ডিয়ার অন্যতম কর্ণধার সুব্রত ভৌমিক -‘‘ঘোরার সঙ্গে অ্যাডভেঞ্চার থাকলে বেড়ানোটাকে একটু অন্য রকম ভাবে উপভোগ করা যায়, বিশেষত যাঁরা একা বেড়াতে যান। সে কথা মাথায় রেখেই এ বারের মেলায় বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে অ্যাডভেঞ্চার ট্যুরিজমে’’, জানালেন তিনি।

পুজোর বেড়ানোর প্ল্যানিং শুরু করুন

সাধারণ জুন মাসের শেষের দিক থেকেই পুজোয় বেড়াতে যাওয়ার জন্য টিকিট বুকিং শুরু হয়। নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে ‘ট্যুরিজম ফেয়ার’ শুরু হচ্ছে ৭ জুন থেকে। ফলে আপনি হাতে কিছুটা সময় পেয়ে যাবেন বেড়াতে যাওয়ার প্ল্যানিং শুরু করার জন্য। এই মেলায় সারা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যেমন পর্যটন সংস্থাগুলি আসছে তেমনি থাকছে বিদেশ বেড়াতে যাওয়ার সুলুকসন্ধান।

মেলায় এসে আপনি ঘুরে-বেড়িয়ে যাচাই করে পছন্দের পর্যটনসংস্থা বেছে বুকিংও করে ফেলতে পারবেন। সরকারি ও বেসরকারি পর্যটন সংস্থাগুলি বুকিং-এর উপর আকর্ষণীও ছাড়ও দিচ্ছে।

মেলা চলবে ৭, ৮ আর ৯ জুন। প্রতি দিন সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা।

অ্যাডভেঞ্চার ফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতা

‘ট্যুরিজম ফেয়ার’-এর আয়োজক সংস্থা এ বছর অ্যাভেঞ্চারপ্রেমী পর্যটকদের জন্য আয়োজন করেছে একটি ফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতার। অ্যাডভেঞ্চারে গিয়ে যাঁরা তার বিশেষ মুহূর্ত ক্যামেরাবন্দি করেছেন তাঁরা সেই ছবি পাঠিয়ে দিন সংস্থার ই-মেলে। এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের বিস্তারিত নিয়মাবলি পেয়ে যাবেন সংস্থার ফেসবুক পেজ থেকে।

আর্কষণীয় পুরস্কার

এই ফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতায় থাকছে আর্কষণী পরস্কার।

প্রথম পুরস্কার – ৪ রাত্রি, ৫ দিন আন্দামানে থাকা

দ্বিতীয় পুরস্কার – ৩ রাত্রি, ৪ দিন উত্তরাখণ্ডে থাকা

তৃতীয় পুরস্কার – ২ রাত্রি ৩ দিন জয়পুরে থাকা।

এ ছাড়া প্রতিযোগীদের মধ্যে থেকে বাছাই ৫০টি ছবি মেলাপ্রাঙ্গণে প্রদর্শিত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here