travel-plan

ওয়েবডেস্ক : পর্যটনে আগ্রহ বেড়েছে ভারতবাসীর। ফলে এই বাজারের গ্রাফটাও ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী। মঙ্গলবার প্রকাশিত গুগুল ইন্ডিয়া এবং বেইন এন্ড কোম্পানির একটি রিপোর্ট বলেছে, আগামী তিন বছরে এই বৃদ্ধি হবে ১৩ শতাংশ। অর্থের অঙ্কে তা হবে ১৩৬ বিলিয়ন ডলার অর্থাৎ ১৩৬০০ কোটি ডলার।

তবে রিপোর্ট বলছে ‘ডিজিটাল ভারত’-এ বুকিং-এর ক্ষেত্রে এখনও মানুষ ভরসা করেন অফলাইনে। গুগুল ইন্ডিয়ার সেলস ডিরেক্টর বিকাশ অগ্নিহোত্রী জানিয়েছেন, নতুন বা যাঁরা প্রায়শই বেড়াতে বেরোন, তাঁরা অনলাইনে গন্তব্য এবং খরচ-খরচা সংক্রান্ত রির্সাচ করেন। কিন্তু পেমেন্ট সিস্টেম নিয়ে বিশ্বাসের অভাবে তাঁরা অফলাইন বুকিং করেন।

কোনো পথে সমাধান মিলতে পারে তারও রাস্তা জানিয়েছে বিকাশ অগ্নিহোত্রী। এই ধরনের অনলাইন ব্যবহারকারীকে ধরে রাখতে হলে সংস্থাকে ব্যক্তিগত সংযোগ গড়ে তুলতে হবে। নিয়মিত ‘মেসেজ’ পাঠানো, ট্রাভেল প্ল্যান পাঠানোর মাধ্যমে গ্রাহকের সঙ্গে যোগযোগকে আরও নিবিড় করে তুলতে হবে। তবেই সম্ভব হবে গ্রাহকের বিশ্বাস গড়ে তোলা।

আগামী তিন বছরে ছবিটা পালটাতে পারে বলে মনে করছেন এই রিপোর্ট প্রস্তুতকারী দু’টি সংস্থার প্রতিনিধিরা। আরও বেশি সংখ্যাক মানুষ স্মার্ট ফোন ব্যবহার করলে অনলাইন বুকিংয়ের সংখ্যাও বাড়বে বলে মনে করছেন তাঁরা।

রিপোর্টটিতে মনে করা হচ্ছে, আগামী তিন বছরে অনলাইনে বুকিং বাড়বে। বাড়তি ২৪ বিলিয়ন ডলার তথা ২৪০০ কোটি ডলার বুকিং হবে অনলাইনে।

‘হাউ ডাজ ইন্ডিয়া ট্রাভেল’ নামে ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে, দেশ ও বিদেশে ঘোরার জন্য ২০১৮ সালে ভারতীয় পর্যটকরা ৯৪ বিলিয়ন ডলার তথা ৯৪০ কোটি ডলার খরচ করেছেন। ২০১২ সালের মধ্যে এই খরচের পরিমাণ গিয়ে দাঁড়াবে ১৩৬ বিলিয়ন ডলারে অর্থাৎ ১৩৬০০ কোটি ডলারে।

রিপোর্টে বলা হয়েছে,  আগামী তিন বছরে পরিবহনের ক্ষেত্রে বৃদ্ধি হবে ১২ শতাংশ, হোটেল শিল্পে বৃদ্ধি হবে ১৩ শতাংশ। এ ছাড়া বেড়াতে বেড়িয়ে খাওয়াদাওয়া, কেনাকাটা, বিনোদনেও খরচ বৃদ্ধি হবে ১৩ শতাংশ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here