রিলায়েন্স জিও-র বাড়বাড়ন্তে সরকারের গচ্চা ২৪০০০ কোটি টাকা! কী ভাবে?

ওয়েবডেস্ক: ২০১৭-১৮ আর্থিক বছরে এক ধাক্কায় অনেকটাই কমে গিয়েছে টেলিকম সংস্থা থেকে  সরকারের রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ। মূলত টেলিকম সংস্থার কাছ থেকে লাইসেন্স ফি এবং স্পেকট্রাম ব্যবহার বাবদ রাজস্ব আদায় করে থাকে কেন্দ্র। একটি পরিসংখ্যানে স্পষ্ট, শেষ হওয়া আর্থিক বছরে এই খাতে সরকারের আয় হয়েছে মাত্র ২.৫৫ লক্ষ কোটি টাকা। যেখানে ২০১৬-১৭ আর্থিক বছরে ওই আয়ের পরিমাণ ছিল ২.৭৯ লক্ষ কোটি টাকা।

বিগত দুই আর্থিক বছরে টেলিকম রাজস্ব হিসাবে আদায়ীকৃত অর্থের পরিমাণ প্রায় ৮.৫৬ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে বলে ওই পরিসংখ্যানটি দাবি করছে। কিন্তু কেন এই অবনমন?

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, বাজারে জিও-র নেটওয়ার্ক যে ভাবে শিরা-উপশিরা ছড়িয়ে বসেছে তাতে অন্যান্য বেসরকারি টেলিকম সংস্থাগুলির ব্যবসা মার খাচ্ছে। সরকারে এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক একটি সংবাদ মাধ্যমের কাছে জানিয়েছেন, “আমরা আশঙ্কা করছি এই ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে ভবিষ্যতে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ আরও কমে যেতে পারে। টেলিকম ব্যবসায় একচেটিয়া প্রভাবই এর জন্য দায়ী”।

আরও পড়ুন: বাংলাদেশের প্রকল্প চালু হতেই ভারতে হোন্ডার থেকে আরও এগিয়ে গেল হিরো!

এ ব্যাপারে তিনি জানিয়েছেন, দেশে টেলি পরিষেবা গ্রাহকের সংখ্যা প্রতি সেকেন্ডে বাড়ছে। কিন্তু সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে কমে যাচ্ছে টেলি পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থার সংখ্যা। উদাহরণ হিসাবে তিনি বলেছেন, ২০১৬ সালে দেশে ১৩টি টেলিকম সংস্থা চালু ছিল। ২০১৭-তে এসে তা দাঁড়ায় ১২তে। ভিডিওকন টেলিকম ব্যবসা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়। আবার বেশ কয়েকটি সংস্থা মার্জ হয়ে কোনো রকমে টিকে রয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.