নীরব মোদী কী ভাবে শুষেছেন ব্যাঙ্কের প্রতি মানুষের বিশ্বাস, প্রমাণ দিচ্ছে বাজার

0

বিশেষ প্রতিনিধি: ১৪,৫০০ কোটি টাকার জালিয়াতির জেরে যে কত লক্ষ কোটি টাকা শেয়ার বাজার থেকে গায়েব হয়ে গেল তার সম্মিলিত যোগফল কারও পক্ষেই পুঙ্খানুপুঙ্খ নির্ণয় করা সম্ভব নয়। কিন্তু শুধু মাত্র ব্যাঙ্ক নিফটির দিকে তাকালেই বোঝায় যায়, পিএনবি-কাণ্ডের জেরে কতটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ব্যাঙ্কের শেয়ার।

১২ ফেব্রুয়ারি দেশজোড়া হইচই পড়ে গিয়েছিল নীরব মোদী কাণ্ডে। ওই দিন থেকে গত বুধবার পর্যন্ত ব্যাঙ্ক নিফটির পত হয়েছে ৭০০ পয়েন্টেরও বেশি। অাবার ১ ফেব্রুয়ারি বাজেট-পরবর্তী ঝটকা এবং নীরব-জালিয়াতি মিলিয়ে ব্যাঙ্ক নিফটি খুইয়েছে ৩,০০০ হাজার পয়েন্ট।

Loading videos...

অন্য দিকে গত বুধবার এক শতাংশেরও বেশি পতন হওয়া নিফটি ফিফটি ওই দিনই সর্বোচ্চ চুড়ার থেকে ১,০০০ পয়েন্ট নীচে ঘুরে এল। গত ২৯ জানুয়ারি ছিল নিফটি ফিফটির কাছে গৌরব-অধ্যায় রচনার দিন। কারণ সে দিনই এই সূচক সর্বকালীন সেরা উচ্চতা ১১,১৭১ পয়েন্ট ছুঁয়ে ফেলে। তার পর থেকে ছোটো-বড়ো পতন হতে হতে সে গত বুধবার ছুঁয়ে এসেছে ১০,১৪১ পয়েন্টের ঘাট। অর্থাৎ মাত্র এক মাসের কিছু বেশি দিনে এই সূচক ১০ শতাংশের বেশি পতনের সম্মুখীন হল।

আরও পড়ুন: বিনিয়োগকারীদের বিশ্বাস শুষে নিয়ে শেয়ার বাজার সম্পর্কে অনীহা বাড়াল পিএনবি-কাণ্ড

এ সবের কারণ যে, বাজেট ২০১৮-১৯, আমেরিকার আমদানি নীতির সংশোধনী বা ফেড রিজার্ভের সুদের হারের মতো কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ, তা অনস্বীকার্য। কিন্তু গোটা ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থার উপর থেকে সাধারণ মানুষের (ব্যাঙ্কে সঞ্চয়কারী এবং ব্যাঙ্কের শেয়ারে বিনিয়োগকারী) বিশ্বাসকে সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত করেছে নীরব মোদী কাণ্ড, তা প্রমাণ দিচ্ছে সব কটি সূচকই।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন