আধাখ্যাঁচড়া জোটকে জেতালে হাতছাড়া হতে পারে লক্ষ্মীলাভ, বলছে আমেরিকার বহুজাতিক আর্থিক সংস্থা

0
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: ২০১৯ লোকসভা ভোটে আধাখ্যাঁচড়া জোটকে ভোট না দিলে হতে পারে অভাবনীয় লক্ষ্মীলাভ। বিনিয়োগের বাজারে সুপরিচিত আমেরিকার সংস্থা মর্গান স্ট্যানলি জানাল, আগামী ভোটে যদি ভারতীয় ভোটাররা আধাখ্যাঁচড়া কোনো জোটকে ভোট দিয়ে কোনো বিশৃঙ্খল রায় না দেন, তা হলে আগামী ২০১৯ সালের ডিসেম্বরের মধ্যেই হাতেনাতে মিলতে পারে সুফল।

প্রথমত, ডলারের তুলনায় টাকার দামে বৃদ্ধি আসতে পারে ২০-২৫ শতাংশ। দ্বিতীয়ত, শেয়ার বাজারের বিনিয়োগকারীরা মাত্র এক বছরের মধ্যেই পেয়ে যাবেন অবিশ্বাস্য রিটার্ন। মর্গান স্ট্যানলির মতে, আগামী ২০১৯ সালের ডিসেম্বরের মধ্যেই ৩৫,৫০০-র আশেপাশে ঘোরাফেরা করা শেয়ার বাজারের সূচক সেনসেক্স পৌঁছে যেতে পারে ৪২ হাজারে।

ইকনোমিক্স টাইমস-এর একটি প্রতিবেদনে মর্গান স্ট্যানলির বক্তব্য উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, দেশের নির্বাচকমণ্ডলী আসন্ন সাধারণ নির্বাচনে একটা আধাখ্যাঁচড়া জোটকে জিতিয়ে ক্ষমতায় আনার মতো বিশৃঙ্খল রায় না দিলে ২০১৯-এ ভারতের শেয়ার বাজারে বিনিয়োগকারীরা আরও ভালো আয়ের আশা করতেই পারেন। কারণ, ভারতীয় স্টকগুলির দাম বুনিয়াদ ভিত্তিক মূল্যায়নের সঙ্গেই তুলনীয়। কিন্তু সেটা সংশয়পূর্ণ বলেই মনে হচ্ছে। অর্থাৎ, বাজারের অনুভূতি বা মনোবিজ্ঞান বেশ বিষণ্ণ দেখাচ্ছে বলেই সংস্থা মনে করে।

সংস্থার মতে, সেই হতাশা থেকেই এখন ভারতীয় বাজারে আপেক্ষিক উপার্জনের মানসিকতা প্রবণতায় সৃষ্টি হয়েছে। ফলে ভারতের নির্বাচনী ফলাফল বা বিশ্বের অন্যান্য ঘটনাবলি বুনিয়াদি বিষয়টিকেই ক্রমশ ফিকে করে দিচ্ছে। মূল্যায়নের মাপকাঠি হিসাবে ‘প্রাইস-টু-আর্নিংস’-এর থেকে ‘প্রাইস-টু-বুক’-কে অধিক প্রাধান্য দেওয়ার কারণেই এ ধরনের মত দিয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, মর্গান স্ট্যানলি আমেরিকার কয়েকশো শতাব্দী প্রাচীন ব্যাঙ্ক। বিনিয়োগের পাশাপাশি ওই সংস্থা বহুবিধ আর্থিক পরিষেবা দিয়ে থাকে, এমনকী পরামর্শদাতা হিসাবেও কাজ করে থাকে।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন