লোকসভায় পাশ হল পেমেন্ট অব গ্র্যাচুইটি বিল ২০১৭, কী আছে সংশোধনে?

0

ওয়েবডেস্ক: বৃহস্পতিবার লোকসভায় পাশ হল পেমেন্ট অব গ্র্যাচুইটি (সংশোধনী) বিল। মূলত মাতৃত্বকালীন ছুটির মেয়াদ এবং কর মুক্ত গ্র্যাচুইটির পরিমাণের সংশোধিত আইন নির্ধারণেই এই বিল পাশ হয়েছে কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রকের তত্তাবধানে। গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর সংসদে এই বিল পেশ করেন কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রী সন্তোষ গাঁওয়ার।

১৯৭২ সালের পুরনো বিলটিতেই বলা হয়েছে কারখানা, তৈলক্ষেত্র, বাগিচা, বন্দর, রেলওয়ে কোম্পানি, কোনো দোকান বা অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ব্যক্তিরা এই প্রকল্পের আওতায় পড়বেন। ন্যূনতম পাঁচ বছর কোনো সংস্থায় কর্মরত থাকলে তবেই এই আইনের আওতায় অনুদান বা সুবিধা দাবি করা যেতে পারে।

তবে বর্তমানের সংশোধনীটিতে শুধুমাত্র দু’টি ক্ষেত্রেই পরিবর্তন নিয়ে আসা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। বিলে বলা হয়েছে, মাতৃত্বকালীন ছুটির (অনুচ্ছেদ ২ক) ক্ষেত্রে মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। ১৯৬১ সালে প্রণীত আইনে বলা ছিল, সমস্ত যোগ্যতা পূরণে সমর্থ হলে মাতৃত্বকালীন ছুটি হিসাবে কোনো কর্মী ১২ সপ্তাহের ছুটি পাওয়ার যোগ্য। কিন্তু সংশোধনী আইন বলছে, ওই মেয়াদ ১২ সপ্তাহ থেকে বাড়িয়ে করা হল ১৬ সপ্তাহ। এ বিষয়ে সরকারের কাছে শ্রমমন্ত্রক আবেদন জানিয়ে বলেছে, অতীতের ওই ১২ সপ্তাহের মেয়াদের আইনটিকে অবিলম্বে বাতিল করে ২৬ সপ্তাহের ছুটির নতুন সিদ্ধান্তকে আইনে রুপান্তরিত করা হোক। এবং সরকার ওই আইন চালু করতে নির্দেশ জারি করুক।

দ্বিতীয়টি হল, গ্র্যাচুইটির কর মুক্ত অর্থের পরিমাণ বৃদ্ধি। ২০১০ সালের সংশোধনে বলা হয়েছিল, কোনো কর্মীর প্রাপ্য অনুদানের মধ্যে থেকে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত কর মুক্ত হিসাবে ঘোষণা করা যাবে। কিন্তু সপ্তম পে কমিশনের আওতায় বেতন বৃদ্ধির ফলে গ্র্যাচুইটির পরিমাণও তুলনা মূলক ভাবে বেড়েছে। ফলে সরকার এই বিষয়টিতে দৃষ্টি নিক্ষেপ করে ১০ লক্ষের পরিবর্তে ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত কর মুক্ত গ্র্যাচুইটির সিদ্ধান্ত নিতে পারে। শুধু তাই নয়, বেতন বৃদ্ধির নিরিখে সময়ের সঙ্গে এই পরিমাণ বাড়ানোর কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। বেতন বৃদ্ধি হচ্ছে অথচ অনুদানের কর মুক্ত টাকার পরিমাণ একই রাখা হলে তা সমস্যা সমাধানে যথেষ্ঠ নয়।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন