নিজস্ব সংবাদদাতা, জলপাইগুড়ি: দলছুট হয়ে লোকালয়ে ঢুকে পড়েছিল ছোট্টো হস্তিশাবকটি। তাকে দেখতে প্রচুর মানুষের ভিড় হয়ে যায়। এত মানুষ একসঙ্গে দেখে ঘাবড়ে যায় হস্তিশাবকটিও। কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দারাই তাকে আগলে রাখে সারা দিন। দেওয়া হয় খাবারও।

জলপাইগুড়ির নাগরাকাটা ব্লকের খেরকাটা বস্তির ঘটনা। কয়েক মাস বয়সি ওই হস্তিশাবকটি দিন কয়েক ধরেই দলছুট হয়ে এ-দিক ও-দিক ঘুরে বেড়াচ্ছিল। রবিবার দুপুরে সেটি খেরকাটার জঙ্গলসংলগ্ন বস্তিতে ঢুকে পড়ে। হাইলাডুবা নদীর পাড়ে আটকে পড়ে। খবর পেয়ে শয়ে শয়ে মানুষ ভিড় করতে শুরু করে। তার ছবি ও সেলফি তোলার জন্য হুড়োহুড়ি পড়ে যায় ছেলেছোকরাদের মধ্যে। এ সবেই ঘাবড়ে যায় হস্তিশাবকটি। এর পর গ্রামেরই কিছু লোক ভিড় হটিয়ে সেলফি তোলার হিড়িক বন্ধ করে। তারা ক্ষুধার্ত  হস্তিশাবকটির জন্য খাবারের বন্দোবস্ত করে। তবে দূর থেকে। কারণ কোনো হাতির গায়ে মানুষের ছোঁয়া লাগলে তাকে আর দলে ফিরিয়ে নেয় না হাতিরা।

প্রথমে ভয় পেলেও ধীরেধীরে স্বাভাবিক হয় ছোট্টো গজরাজ। খাবারগুলো সাবাড় করে। খবর পেয়ে ডায়না এবং খুনিয়া রেঞ্জের বনকর্মীরা ঘটনাস্থলে আসেন। তাঁরা শাবকটিকে জঙ্গলে ফেরত পাঠানোর চেষ্টা করছেন যাতে সে নিজের দলে ফেরত যেতে পারে। জলপাইগুড়ি বনবিভাগের বনাধিকারিক বিদ্যুৎ দাস জানিয়েছেন, গ্রামের বাসিন্দারা যে ভাবে হাতিটিকে আগলে রেখেছেন তা প্রশংসার যোগ্য।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here