ওয়েবডেস্ক: কাজটাই হল নরমে-গরমে ম্যান ম্যানেজমেন্ট, এটা ঠিকঠাক করতে পারলে বাকি মসৃণ। দেশ যখন কোচ ঠিক করে তখন অভিজ্ঞতার সঙ্গেই এই দিকটা কেমন, তা বাজিয়ে দেখে নেয়। অস্ট্রেলিয়ার কোচ বার্ট ভান মারউইক অবিশ্বাস্য এক নজির গড়েছেন। ডাচম্যান বার্ট স্বল্পমেয়াদী চুক্তির ভিত্তিতে অস্ট্রেলিয়ার কোচের দায়িত্ব নেওয়ার পর হালচাল দেখে একেবারে থ। দেশ বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছে অথচ কোচ ছাড়া আর কোনো টেকনিক্যাল হ্যান্ডস নেই, যাঁরা ফুটবলারদের প্রস্তুত করেন। অর্থাৎ, সৈন্য থাকলেও তিনি একপ্রকার ঠাল-তরোয়ালহীন নিধিরাম সর্দার বনে যেতে বসেছিলেন। হাল-হকিকত জানালেন অস্ট্রেলিয়ান ফুটবল ফেডারেশনকে। তাদের তরফে ঢোক গিলে জানানো হয় ফেডারেশনের ভাঁড়ে যা ছিল, সবই উপুড় করে দেওয়া হয়েছে। ফলে কোনো সরহকারীর দল পাঠানো অসম্ভব।

শিরে সংক্রান্তি, অগত্যা নিজের গ্যাঁটের কড়ি খরচ করে ডেকে নিলেন নিজের দেশওয়ালি আটজন টেকনিক্যাল ভাইকে। তাঁদের বললেন, “ইজ্জত কা সাওয়াল। হাতে আর বেশি সময় নেই। তাড়াতাড়ি কার কোথায় ঘাটতি খুঁজে বার করে কাজে নেমে পড়ুন। আপনাদের পারিশ্রমিক-সহ আনুষঙ্গিক ব্যবস্থা করব আমি”।

এই ঘটনার পর স্থানীয় মিডিয়া বার্টের উপর হামলে পড়ে। তা হলে বিশ্বকাপের পর তিনি নি:স্ব হয়ে দেশে ফিরবেন? এক গাল সতেজ হেসে বার্টসাহেবের উত্তর-“সবটাই আমার। আমার দায়িত্ব, আমার ফুটবলার, জবাবদিহিও আমার। তা হলে খরচ কেন হবে না আমার”?

এমন কথা শুনে তাঁকে হ্যাটস অফ জানাচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ানরা। দেশের ফুটবল এবং ফুটবলারদের মাথায় এ ভাবে ছাতা ধরার জন্য।

ম্যাচের ফল

ফ্রান্স ২ অস্ট্রেলিয়া ১

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন