বিশ্বকাপ ২০২২: পেনাল্টি শট বাঁচানোর হ্যাটট্রিক, গোলকিপার লিভাকোভিচের কৃতিত্বে ক্রোয়েশিয়া কোয়ার্টার ফাইনালে     

0
পেনাল্টি শট বাঁচানোয় হ্যাটট্রিক লিভাকোভিচের। ছবি সৌজন্যে Twitter/FIFAWorldCup

ক্রোয়েশিয়া ১ (পেরিসিচ) (৩) জাপান ১ (মায়দা ৪৩) (১)  

কাতার: গোলকিপারের দুর্দান্ত সেভ। পেনাল্টি শট বাঁচানোয় হ্যাটট্রিক করলেন ক্রোয়েশিয়ার গোলকিপার দোমিনিক লিভাকোভিচ। গত বিশ্বকাপের রানার্স আপ ক্রোয়েশিয়া পৌঁছে গেল এ বারের বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে। পেনাল্টি শুট আউটে ক্রোয়েশিয়া ৩-১ গোলে হারাল জাপানকে।

সোমবার আল জানাউব স্টেডিয়ামে আয়োজিত ‘রাউন্ড অফ ১৬’-য় জাপান বনাম ক্রোয়েশিয়ার ম্যাচ নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে অমীমাংসিত থাকে। এর পর টাইব্রেকারের ব্যবস্থা হয়। এতেই কামাল করেন ক্রোয়েশিয়ার গোলকিপার। জাপানের ৩টি পেনাল্টি শট আটকে দেন লিভাকোভিচ। অন্য দিকে জাপানের গোলকিপার শুইচি গোন্ডা ক্রোয়েশিয়ার ১টি শট আটকে দেন। পঞ্চম শট নেওয়ার কোনো প্রয়োজন হয়নি।  

কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিল বনাম দক্ষিণ কোরিয়ার ম্যাচের বিজয়ীর মুখোমুখি হবে ক্রোয়েশিয়া।

দুই অর্ধে ১টি করে গোল

এ দিন খেলার শুরুতে ম্যাচের রাশ জাপানের হাতে ছিল। ক্রোয়েশিয়ার তুলনায় তাদের আক্রমণে ভার ছিল বেশি। ৩ মিনিটেই সুযোগ পেয়েছিল জাপান। কিন্তু শোগো তানিগুচির হেড ক্রোয়েশিয়ার পোস্টের বাইরে দিয়ে চলে যায়। ৮ মিনিটে আইভান পেরিসিচের শট আটকে দেন জাপানের গোলকিপার। ১২ মিনিটে ক্রোয়েশিয়ার বক্সে জুনো ইতোর দুর্দান্ত ক্রসে পা লাগাতে ব্যর্থ হন দাইজেন মায়দা। ৫ মিনিট পরেই আরও একটি সুন্দর ক্রসে হেড করতে ব্যর্থ হন সেই মায়দা।

ম্যাচটি মাঝখানে একটু ঝিমিয়ে পড়ে। তার পর জাপান আবার আক্রমণে উঠে আসে। ম্যাচের ৪১ মিনিটে দুর্দান্ত সুযোগ পেয়েছিল তারা। কিন্তু দাইচি কামাদা তা কাজে লাগাতে পারেননি। তবে ২ মিনিট পরেই আসে সাফল্য। জাপানের হয়ে কর্নার কিক করেন দোয়ান। তার ক্রস পৌঁছে যায় ক্রোয়েশিয়ার বক্সে। সেই ক্রসে হেড করেন মায়া জোশিদা। বল চলে আসে মায়দার পায়ে। তিনি গোল করে জাপানকে এগিয়ে দেন।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে জাপান আবার সুযোগ পায়। কামাদার শট ক্রোয়েশিয়ায় ক্রসবারের উপর দিয়ে বেরিয়ে যায়। কিন্তু ৫৫ মিনিটে ম্যাচে সমতা ফেরায় ক্রোয়েশিয়া। ১৬ গজ দূর থেকে দুর্দান্ত হেডে জাপানের গোলে বল ঢুকিয়ে দেন আইভান পেরিসিচ। এই নিয়ে বিশ্বকাপে তাঁর ৬টি গোল হল। ২ মিনিট পরেই ক্রোয়েশিয়ার গোলকিপার প্রায় উড়ে গিয়ে বাঁচিয়ে দেন জাপানের ওয়াতারু এনদোর শট।

ম্যাচের ৬৩ মিনিটে ২৪ গজ দূর থেকে শট নেন ক্রোয়েশিয়ার লুকা মদরিচ। জাপানের গোলকিপার ডাইভ দিয়ে সেই শট বাঁচিয়ে দেন। এর পরেও দু’ পক্ষের সুযোগ নষ্টের খেলা চলতে থাকে। অবশেষে খেলা অতিরিক্ত সময়ে গড়ায়। কিন্তু তাতেও ফল না হওয়ায় পেনাল্টি শুট আউটের ব্যবস্থা হয়।

পেনাল্টি শুট আউটে ফয়সালা

টাইব্রেকারে প্রথম শট নেন তাকুমি মিনামিনো। তাঁর শট বাঁচিয়ে দেন ক্রোয়েশিয়ার গোলকিপার দোমিনিক লিভাকোভিচ। ক্রোয়েশিয়ার হয়ে শট নেন নিকোলা ভ্লাসিচ। ক্রোয়েশিয়া এগিয়ে যায় ১-০ গোলে।

জাপানের হয়ে দ্বিতীয় শট নেন কাওরু মিতোমা। আবার বাঁচিয়ে দেন লিভাকোভিচ। ক্রোয়েশিয়ার হয়ে দ্বিতীয় পেনাল্টি শটে গোল করেন মারসেলো ব্রোজোভিচ। ক্রোয়েশিয়া এগিয়ে যায় ২-০ গোলে।

তৃতীয় শটে গোল করেন তাকুমা আসানো। কিন্তু ক্রোয়েশিয়ার মার্কো লিভাজার শট বাঁচিয়ে দেন জাপানের গোলকিপার শুইচি গোন্ডা। ক্রোয়েশিয়া এগিয়ে থাকে ২-১ গোলে।

ক্রোয়েশিয়ার গোলকিপার আবার বাঁচিয়ে দেন জাপানের চতুর্থ শট। গোল করতে পারলেন না মায়া জোশিদা। কিন্তু ক্রোয়েশিয়ার মারিও পাসালিচ ব্যর্থ হননি। ক্রোয়েশিয়া ৩-১ গোলে জিতে যায়। পঞ্চম পেনাল্টি শট নেওয়ার আর প্রয়োজন হয়নি।

আরও পড়ুন

বিশ্বকাপ ২০২২: সেনেগালকে ৩ গোল, ইংল্যান্ড কোয়ার্টার ফাইনালে ফ্রান্সের মুখোমুখি

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন