Arunava Gupta
অরুণাভ গুপ্ত

ছেলে মানুষ বলে সবকিছু উড়িয়ে দেওয়া চলে না। তারা যা দেখে তা মনে গেঁথে রাখে আর যা ভাবে তা করার জন্য পন করে। ২০১৮ বিশ্বকাপে এমন সব উঠতি দামাল ছেলেরা ফুটবলের নানান স্মৃতি আঁকড়ে হাজির হয়েছে রাশিয়ায়। লক্ষ্য তো একটাই আমাদেরও হতে হবে ওঁদের সমান।  এর কিছু ঘটনা ওরা চায় শেয়ার করতে।

লুকা মডরিচ (ক্রোয়েশিয়া/ মিডফিল্ডার)

luca

আমার তখন বছর তেরো। বাড়িতে মন টেকে না খালি ঘুরি আর সুযোগ পেলে ফুটবল খেলি। এই রকম একবার যাই বন্ধুর বাড়ি বেড়াতে। সেইসময় ১৯৯৮ বিশ্বকাপ ফ্রান্সে চলছে। যখন আমার দেশ জিতছে তখন আনন্দে ফেটে পড়েছি। ক্রোয়েশিয়ার জন্য এটা বিশাল বিজ্ঞাপন। কেন না তামাম বিশ্ব জেনে গেল আমরা কারা এবং কি করতে পারি। আমি এ বার টিমে আছি, আমার প্রতিজ্ঞা লক্ষ্য পূরণ করবই।

থিয়েগো অ্যালকানতারা (স্প্যানিশ মিডফিল্ডার)

alacantara

প্রথম স্মৃতি ১৯৯৪, ইউএসএ বিশ্বকাপ। কিছু মনে নেই আর থাকবেই বা কি করে আমি তো তখন তিন বছরের। তবে যা মনে আছে তাই শেয়ার করছি যেমন আমার বাবা মাজিনহো ব্রাজিলের হয়ে জয়ের অংশীদার হয়েছেন। বাবা বাড়িতে পা রাখতেই তাঁকে ঘিরে সে কি মাতামাতি যেন বাবা রাতারাতি কিং হয়ে গেছেন। তবে ২০১০ বিশ্বকাপ একেবারে মনে আছে। ফাইনালে স্পেন বনাম নেদারল্যান্ডস দুরন্ত ম্যাচ, আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার গোল, মুহূর্তে স্পেনে আগুনে পরিস্থিতি, তেল আর ছুরি উড়ছে বাতাসে, সব মানুষ পথে, স্প্যানিশ ফুটবলে ইতিহাস। আমি তখন অনূর্ধ্ব ১৯ টিমে খেলছি।

আরও ফুটবলারদের কথা পড়ুন আগামী পর্বে www.khaboronline.com-এ

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here