ওয়েবডেস্ক: বিশ্বকাপ ফাইনাল। ফিফা প্রেসিডেন্ট ইনফ্যান্তিনোর পাশেই বসে আয়োজক দেশ রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। আর ওদের দু’ পাশে দুই প্রতিযোগী দলের রাষ্ট্রপ্রধানরা। ক্রোয়েশিয়ার প্রেসিডেন্ট কোলিন্দা গ্রাবার কিতারোভিচকে আগেই দেখেছেন বিশ্বকাপের দর্শকরা। খেলোয়াড়দের ড্রেসিংরুমে গিয়ে তাঁর সকলকে জড়িয়ে ধরা কিংবা দল গোল দিতেই তাঁর লাফিয়ে উঠে নাচ, এ সব এখন পুরোনো ঘটনা। তাঁর দিকে নজর ছিলই। কিন্তু এ দিন নজর কেড়ে নিলেন বিশ্বকাপজয়ী ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাকরঁ। রবিবারটা ছিল তাঁরই দিন।

এ দিন তাঁর দেশ জেতার পরই সমস্ত প্রেসিডেন্টসুলভ সংযম ত্যাগ করে উল্লাস প্রকাশ করতে দেখা গেল তাঁকে।

সেখানেই শেষ নয়। তার পর তিনি ঘটালেন এক দারুণ কাণ্ড। দেশ জেতার আনন্দে স্ত্রী যখন নাচছেন, তখনই তাঁকে অভিনন্দন জানাতে এগিয়ে এলেন ক্রোয়েশিয়ার প্রেসিডেন্ট। দু’জনে বেশ অন্তরঙ্গ ভাবেই পরস্পরকে চুম্বন করলেন। পাশ্চাত্যে চুম্বনের মাধ্যমে পরস্পরকে অভিবাদন জানানোটা নিতান্তই সাধারণ ব্যাপার। কিন্তু দুই রাষ্ট্রপধানের চুম্বনে যে আনুষ্ঠানিকতা থাকে, এ দিন তার বিন্দুমাত্রও ছিল না। বরং ছিল স্বতঃস্ফূর্ততা। এটাও কিন্তু রাশিয়া বিশ্বকাপের ছবি হয়েই রয়ে গেল। পাশে দাঁড়িয়ে যা দিব্যি উপভোগ করলেন ফিফার প্রেসিডেন্ট।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here