ballondor-ranking

ওয়েবডেস্ক: অঘটনের বিশ্বকাপে রীতিমতো ফেল মহাতারকারা। রোনাল্ডো,মেসি,নেইমাররা নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে ব্যর্থ। টুর্নামেন্টে যত এগিয়েছে তথাকথিত ছোটো দল এবং পর্দার আড়ালে থাকা তারকারা নিজেদের জাত চিনিয়েছেন ম্যাচের পর ম্যাচে। তাঁদের মধ্যে অন্যতম ক্রোয়েশিয়ার অধিনায়ক লুকা মড্রিচ। ক্রোয়েশিয়া যে বিশ্বকাপ ফাইনাল খেলবে তা হয়তো স্বপ্নেও কেউ কল্পনা করতে পারেনি। তবে টুর্নামেন্টের প্রথম দিন থেকেই নিজেদের সংঘবদ্ধ ফুটবলে রীতিমতো ছাপ রেখেছিল ক্রোয়েটরা। এবং তার সঙ্গে গ্রুপ পর্যায়ে আর্জেন্তিনার মতো দলকে তিন গোলে হারানো। যার অন্যতম কারিগর মদরিচ। নিজের হাতে দলকে চালনা করছেন তিনি। মাঝমাঠের মিডফিল্ড জেনারেলও বলা যেতে পারে তাঁকে। টুর্নামেন্টের সবচেয়ে বেশি পাস, স্টেপ রান, বলে টাচ, ড্রিবল এবং ক্রোয়েশিয়ানদের মধ্যে বেশি মিনিট খেলা সবই রয়েছে তাঁর দখলে।

modric600

যার ফলে আগামী বছর ব্যালন ডি’ওর জেতার অন্যতম দাবিদার হয়ে উঠেছেন তিনি। শেষ দশ বছরে রোনাল্ডো-মেসির করায়ত্ত থেকেছে এই পুরস্কার। অবশ্য এবার ছবিটা কিছুটা বদলাতে পারে। শুধু দেশের জার্সিতে নয়। শেষ কয়েকবছর ক্লাবের জার্সিতেও রীতিমতো সফল লুকা। রেয়ালকে পরপর তিন বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ী করেছন। ফলে দেশকে কাপ এনে দিতে পারলে এক নতুন শিরোপা উঠবে তাঁর মুকুটে। যা ১৯৭০ সালে করেছিলেন ফ্রাঞ্জ বেকেনবাউয়ার, গার্ড মুলাররা। বায়ার্নকে পরপর তিন বার ইউরোপিয়ান কাপ জিতিয়ে পশ্চিম জার্মানিকে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন করেছিলেন তাঁরা।

তবে এই মুহূর্তে তাঁর একমাত্র লক্ষ্য অবশ্যই দেশকে প্রথম বিশ্বকাপ এনে দেওয়া।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here