neymarfallfinal

ওয়েবডেস্ক: গত বিশ্বকাপের ব্যর্থতা ভুলে নতুন ভাবে বিশ্বকাপের জেতার স্বপ্ন দেখছে ব্রাজিল। যার ছন্দ কোয়ালিফাইং রাউন্ড থেকেই বোঝাতে শুরু করেছিল সেলেকাওরা। ১৬ বছর পর নেইমারের হাত ধরে ষষ্ঠ বিশ্বকাপে জয়ের স্বপ্নে শুরুতে কিছুটা ধাক্কা খেয়েছিল ব্রাজিল। কারণ চলতি বিশ্বকাপ-কে ইতিমধ্যেই অঘটনের আখ্যা দেওয়া হয়েছে। কারণ বড়ো দলগুলির শুরুতেই হোঁচট খাওয়া। পিছিয়ে নেই পাঁচ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরাও। সুইৎজারল্যান্ডের কাছে এগিয়ে গিয়েও আটকে যাওয়া। দলের সেরা তারকা যদি আটকে যান তা হলে দলও যে মানসিক ভাবে কিছুটা পিছিয়ে পড়ে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এমনিতেই একশো শতাংশ ফিট না হয়ে মাঠে নেমেছিলেন নেইমার। তার পর সারা ম্যাচে ব্যর্থ তিনি। সমর্থকদের যা মেনে না নেওয়াটাই স্বাভাবিক। সমর্থকদের এমন হওয়ার কারণ বল দখলে রাখার খেলায় ব্যর্থ হয়ে নেইমারের বারবার ইচ্ছাকৃত ভাবে পড়ে যাওয়া। যা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ট্রল এবং বিদ্রুপ করা হয় ব্রাজিলিয়ান ম্যাজিশিয়ানকে নিয়ে।

শুধু প্রথম ম্যাচে নয়, দ্বিতীয় ম্যাচে কোস্তারিকার বিরুদ্ধেও একই ভাবে পাওয়া গিয়েছিল তাঁকে। দ্বিতীয়ার্ধে একটি ফাউলকে কেন্দ্র করে প্রথমে পেনাল্টি দেন রেফারি। কিন্তু ভিআরএস পদ্ধতি ব্যবহার করে রেফারি তা খারিজ করে দেন। ফুটবল বডি কন্টাক্ট খেলা। নেইমার যে ভাবে পড়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছেন তাকে নাটকের আখ্যা দিলে ভুল কিছু হবে না।

এই মজাকে মাথায় রেখে এক অভিনব অফার নিয়ে এল ব্রাজিলের উত্তর রিও ডি জেনেইরোর বার ‘স্যর ওয়াল্টার পাব’। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের সরকারি পেজে জানানো হয়েছে, “গ্রুপ লিগের তৃতীয় এবং শেষ ম্যাচেও নেইমার যদি বার বার পড়ে যায় তা হলে উপস্থিত সবাইকে ফ্রি-তে মদ খাওয়ানো দেওয়া হবে।” যা রীতিমতো ভাইরাল।

তবে এর মাঝে কিন্তু এটাও মনে রাখা দরকার সুইৎজারল্যান্ড ম্যাচে তাকে ১০ বার ফাউল করা হয়। যা ১৯৯৮ বিশ্বকাপের পর এক ম্যাচে সব চেয়ে বেশি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here