ওয়েবডেস্ক: রাশিয়া বিশ্বকাপের শুরু থেকেই নানা আশঙ্কা ছিল। ভয় ছিল চেচেন জঙ্গিরা হামলা চালাতে পারে। রাশিয়া সম্পর্কে নানা ধারণায় জর্জরিত ছিল গোটা ইউরোপ। পুতিনের বিরোধীরা বিশ্বকাপে বাধা তৈরি করতে পারে, এমন সম্ভাবনাও ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কিছুই না হওয়ায় এ বারের বিশ্বকাপকেই সেরা বিশ্বকাপ বলে মেনে নিয়েছে গোটা দুনিয়া। কিন্তু শেষটা ভালো হল না। গোটা দুনিয়ার সামনে মুখ পুড়ল রুশ প্রেসিডেন্ট  ভ্লাদিমির পুতিনের।

আসলে যথাযথ মঞ্চের অপেক্ষায় ছিলেন প্রতিবাদীরা। সেই জন্যই তাঁরা বেছে নিলেন ফাইনালের দিনটিকেই। চার ব্যাক্তি পুতিনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখালেন মাঠে নেমে, খেলা থামিয়ে। ৫২ মিনিটের মাথায় বেশ কয়েক মিনিট বন্ধ থাকল বিশ্বকাপ ফাইনাল। ইতিহাসে এই প্রথম। আরও আশ্চর্য কাণ্ড, পুলিশ এসে প্রতিবাদীদের সরানোর আগেই তাঁদের একজনকে আক্রমণ করে মাটিতে ফেলে দিলেন ক্রোয়েশিয়ান ডিফেন্ডার ডেজার্ন লোভার্ন (তখন যে তাঁরা ২-১ পিছিয়ে)। তবে তার আগেই অবশ্য এক প্রতিবাদী সেন্টারের কাছে গিয়ে এক ফারাসি ফুটবলারের সঙ্গে হাই ফাইভ করে নেন।

কারা এই প্রতিবাদী? কী তাঁদের দাবি?

ওই চার ব্যক্তি ‘পুসি রায়ট’ নামে একটি গানের ব্যান্ডের সদস্য। এটি পাঙ্ক ব্যান্ড। যার মানে হল, এরা দ্রুত লয়ে প্রতিষ্ঠান বিরোধী রক মিউজিক করে থাকেন।

আরও পড়ুন: বউ নাচছিলেন, সেই ফাঁকে ক্রোয়েশিয়ার প্রেসিডেন্টকে দীর্ঘ চুমু ফরাসি প্রেসিডেন্টের

প্রতিবাদের অব্যবহিত পরেই পুসি রায়টের টুইটার হ্যান্ডেলে প্রতিবাদের লক্ষ্য সম্পর্কে জানানো হয়েছে। সেখানে তুলে ধরা হয়েছে তিনটি দাবি। এক, রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি। দুই, প্রতিবাদ করলেই বেআইনি গ্রেফতারের বিরোধিতা। তিন, দেশে রাজনৈতিক প্রতিযোগিতার অনুমতি প্রদান। বলাই বাহুল্য, পুতিনকে বার্তা দেওয়াই ছিল প্রতিবাদীদের লক্ষ্য।

পুতিনের বিরুদ্ধে দুঃসাহসী আউটডোর পারফরম্যান্স করে এক সময় দুনিয়ার নজর কেডে়ছিল পুসি রায়ট। এ বার তারা ছড়িয়ে পড়ল আরও অনেক দূর।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here