kanewcfinal

ইংল্যান্ড – ৬              পানামা – ১

ওয়েবডেস্ক: বিশ্বকাপ শুরু হবার আগে ইংল্যান্ড দলকে নিয়ে তেমন কোনো উন্মাদনা চোখে পড়েনি। সবাই ভেবেছিলেন প্রতি-বারের মতো এবারও হয়তো ইংল্যান্ড কুতিয়ে কুতিয়ে নকআউট পর্যন্তই পৌছবে। তারপর গ্রুপে বেলজিয়ামের মতো ডার্ক হর্সের আছে বলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কোনো প্রশ্নই নেই। কিন্তু ফুটবল যে শুধু খাতায় কলমে হয় না। মাঠে খেলে রীতিমতো প্রমাণ করতে হয়। যা কিন্তু প্রথম ম্যাচেই বুঝিয়ে দিয়েছিলেন সাউথগেটের ছেলেরা। যদি অনেকের কাছে ফ্রান্স এবং বেলজিয়াম অন্যতম সেরা দল হয় তাহলে আজকের ম্যাচের পর ইংল্যান্ডকেও সেই জায়গা বসাতে হবে। যার কারণ দলের ভারসাম্য। অধিনায়ক হ্যারি কেনের নেতৃত্বে থ্রি-লায়ন্সরা কিন্তু অনেকদিন পর দাবিদার বিশ্বকাপ জেতার, অন্তত আজকের ম্যাচের পর বলা যেতেই পারে। দ্বিতীয় ম্যাচে তারা গোলের মালা পড়াল বিশ্বকাপের প্রথমবার আবির্ভাব হওয়া পানামাকে। হাফডজন। যা চলতি বিশ্বকাপে এক ম্যাচে একটি দলের সর্বোচ্চ গোল।

ম্যাচের কথা অবশ্য স্কোরলাইনই বুঝিয়ে দিচ্ছে। প্রথমার্ধেই পাঁচ গোল। যা হয়তো কোনো কট্টর ইংল্যান্ড সমর্থকও ভাবতে পারেনি। ম্যাচের দশ মিনিটে প্রথম গোল। সৌজন্যে উঠতি তারকা জন স্টোন্স। কর্নার থেকে আসা বল থেকে নিজের প্রথম আন্তর্জাতিক গোল করলেন তিনি। এগিয়ে গিয়ে আক্রমণ রেশ বাড়ানোটাই স্বাভাবিক। যার ফলে ম্যাচের প্রথম পেনাল্টি পায় ইংল্যান্ড। সুযোগ পেয়ে টুর্নামেন্টে নিজের তৃতীয় গোল করতে ভুল করেননি অধিনায়ক কেন। অভিজ্ঞতা যদি থাকত তাহলে কিছুটা কম গোলও হজম করতে পারতো উত্তর আমেরিকার পানামা। তবে তৃতীয় গোল থেকে পঞ্চম গোল হতে সময় নিল মাত্র দশ মিনিট। ৩৬ মিনিটে দলের হয়ে ব্যবধান বাড়ান লিংগার্ড। এর কিছু পরেই স্টোন্সের দ্বিতীয়। যা দেখে হয়তো ধৈর্য ধরে রাখতে পারেননি হ্যারি কেন। সংযুক্ত সময়ে নিজের নামের পাসে দ্বিতীয় গোল তাঁর।

প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধেও একই দৃশ্য। বিরতির পর ব্যবধান অবশ্য বেশি না বাড়লেও, কুড়ি মিনিটের মধ্যে নিজের হ্যাটট্রিক সম্পূর্ণ করেন হ্যারি। যা টুর্নামেন্টের দ্বিতীয়। ফলে শীর্ষ গোলদাতার তালিকায় টপকে গেলেন রোনাল্ডো এবং লুকাকুকে। এই মুহূর্তে কেনের গোল সংখ্যা দুই ম্যাচে পাঁচ। ম্যাচে হার প্রথমার্ধে নিশ্চিত হয়ে গেলেও, বিশ্বকাপের মঞ্চে প্রতিটা সময় উপভোগ করে গেল পানামিসরা। যা আরো উন্নাদনা বাড়াল, ম্যাচ শেষে দশ মিনিটের আগে বেলয়ের গোল। পানামার বিশ্বকাপ ইতিহাসে যা প্রথম।

এই জয়ের ফলে বেলজিয়ামের পর ইংল্যান্ডও পৌঁছে গেল প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে। তবে কে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হবে তা এই দুই দল মুখোমুখি হবার পরেই পরিষ্কার হবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here