ওয়েবডেস্ক: খেলা শেষ হয়ে গেছে অনেকক্ষণ। নিজের এবং প্রতিপক্ষ দলের সব খেলোয়াড় ফিরে গেছেন ড্রেসিংরুমে। চলে গেছেন রেফারির দল, কোচিং স্টাফরাও। গ্যালারিও ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে ধীরে ধীরে। কিন্তু তিনি বসে আছেন একা। এই ছবিটাই হয়তো রাশিয়া বিশ্বকাপের ছবি হয়ে থেকে যাবে।

তিনি রাশিয়ার স্ট্রাইকার ফেডর স্মোলভ। অতিরিক্ত সময়ের শেষে রাশিয়া বনাম ক্রোয়েশিয়া ম্যাচ দুই-দুই গোলে অমীমাংসিত থাকায় থাকায় শুরু হয় টাইব্রেকার। টাইব্রেকারের প্রথম শটটি নিতে যান ২৮ বছর বয়সি এই স্ট্রাইকার। কিন্তু তাঁর শট ডানদিকে ঝাঁপিয়ে পড়েও বাঁ হাত দিয়ে আটকে দেন ক্রোয়েশিয়ার গোলরক্ষক সুবাসিচ।

তারপর রাশিয়ার হয়ে আরও একটি শট মিস করেন ফার্দিনান্দ। তবু ফার্দিনান্দ অতিরিক্ত সময়ে গোল করে রাশিয়াকে ম্যাচে ফিরিয়েছিলেন। কিন্তু স্মোলভের জন্য রয়ে গেল একরাশ হতাশা। নিজের দেশে বিশ্বকাপে দেশকে আরও একধাপ তুলতে না পারার পেছনে হয়তো প্রধান দায় থেকে গেল তাঁরই। তাই সবশেষেও মাঠে বসেছিলেন তিনি। পরে বলেছেন, পেনাল্টি মিস করার সব দায় তাঁরই। “এই ঘটনা যে আমার সঙ্গেই ঘটল, সেটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। তবে এর থেকে শিক্ষা নিয়ে আমি আরও যোগ্য হয়ে উঠব” ।

কিন্তু তখন তো আর রাশিয়ায় বিশ্বকাপ হবে না। সে কথা স্মোলভের থেকে ভাল আর কেই বা জানেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here