সেনেগাল-২       পোল্যান্ড-১

ওয়েবডেস্ক: ২০০২ সালে প্রথম বিশ্বকাপে এসেছিল সেনেগাল। এসেই প্রথম ম্যাচে হারিয়েছিল তৎকালীন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে। সেবার কোয়ার্টার ফাইনাল অবধি গিয়েছিল লায়নস অফ তেরাঙ্গা। হ্যাঁ, এটাই আফ্রিকার এই দলটির ডাকনাম। সেবারের দলের অধিনায়ক অ্যালিউ সিসে এবারের কোচ। এই বিশ্বকাপের সর্বকনিষ্ঠ কোচ। অধিনায়ক হিসেবে বিশ্বকে যে ম্যাজিক দেখিয়েছিলেন, কোচ হয়েও সেই ম্যাজিক বজায় রাখলেন সিসে। ফিফা র‍্যাঙ্কিং-এ আট নম্বরে থাকা পোল্যান্ডকে হারিয়ে শুরু করলেন রাশিয়া অভিযান।

সত্যি বলতে কি এদিন সবসময়ই সেনেগালকে পোল্যান্ডের থেকে ভালো দল মনে হয়েছে। বিশ্বের অন্যতম সেরা স্ট্রাইকার লেওয়ানডাওস্কিকে কয়েকটা মুহূর্ত ছাড়া সেভাবে নজরে পড়েনি। অন্যদিকে এই সেনেগাল দলের বেশিরভাগ ফুটবলার ইউরোপের বিভিন্ন ক্লাবে খেলেন। তাঁদের খেলায়, বিশেষত ডিফেন্সে সেই শৃঙ্ঘলা দেখা গেল। আক্রমণ ভাগে বোঝাপড়া আরেকটু ভালে হলে এদিন আর গোল খেতে হত পোলিশদের।

যদিও এদিনের দুটি গোলই খানিক ফ্লুকেই পেয়েছে মানের দল। ৩৭ মিনিটে সেনেগালের ফুটবলারের শট পোলিশ ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে গোলে ঢুকে যায়। অন্যদিকে ৬০ মিনিটে নিয়াং যখন গোলটি করেন, তার একটু আগেই তিনি চোটের শুশ্রুষার জন্য মাঠের বাইরে গেছিলেন। রেফারিকে বলে মাঠে ঢুকলেও, রোল্যান্ডের খেলোয়াড়রা সেটা খেয়াল করেননি। ফলে লং ব্যাক পাস করার সময় তিনি হিসেবে ছিলেন না। খানিক ফাঁকায় বল ধরেই গোল করে গেলেন নিয়াং। ৮৬ মিনিটে পোল্যান্ড একটি গোল শোধ করলেও, তারপর আর বেশি সময় ছিল না।

এই ম্যাচের পর খুবই আকর্ষণীয় হয়ে গেল গ্রুপ এইচ। গ্রুপের প্রথম দুই ম্যাচেই অঘটন ঘটল। প্রথম ম্যাচে কলম্বিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়েছে জাপান। এবার পোলিশরা বধ হল আফ্রিকানদের কাছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here