russiawcimage

ওয়েবডেস্ক: বিশ্বকাপে হতশ্রী পারফরমেন্স, যার ফলে গ্রুপ পর্যায় থেকেই বিদায় নিতে হয়েছে গতবারের চ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে। শুধু তাই নয়, গ্রুপের সব থেকে নীচের অবস্থানে থেকে রাশিয়া ছাড়তে হয়েছে মুলার, ন্যয়ারদের। বিশ্বকাপ জেতার অন্যতম দাবিদার হয়ে এমন পরিণাম, ব্যাপারটা যে সহজে থেমে যাওয়ার নয় তা এক কথায় যে কেউ বলে দিতে পারে। হলটাও তাই। দোষারোপের পালা শুরু হয়ে গেল এই নিয়ে। আর তাতে রাজনীতি থাকবে না সে তো হয় না।

চলতি বিশ্বকাপে জার্মান দলের টিম ডিরেক্টর ছিলেন প্রাক্তন জার্মান তারকা অলিভার বিয়েরহফ। আর দলের এমন বিশ্রী চেহারার জন্য একহাত নিলেন মিডফিল্ডের তারকা খেলোয়াড় মেসুত ওজিলকে। তিনি বলেছেন, মেসুতকে নেওয়া দলের সব থেকে বড়ো ভুল। কারণ প্রসঙ্গে সেই রাজনীতি। বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার আগে ওজিলকে দেখা গিয়েছিল তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রেসেপ টাইয়িপ এরডোগানের সঙ্গে। যা নিয়ে ওজিলের বিশ্বস্ততা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে বাধ্য জার্মান দলে।

bierhoff600

জার্মান দৈনিক দাই ওয়েল্টকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন তিনি। তাঁর বক্তব্য, “আমরা খেলোয়াড়দের কখনও বাধা দিই না কিছু করতে। কিন্তু কিছু ক্ষেত্রে আমাদের মতামত থেকেই যায়”।

তবে শুধু একা ওজিল নয়, একইসঙ্গে দেখা গিয়েছে জাতীয় দলের আর এক তারকা ইকের গুন্ডোগানকেও। এই দু’জনেরই পারিবারিক সুত্রে তুরস্কের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে। এবং আলাপচারিতার সময় গুন্ডোগান প্রেসিডেন্টকে নিজের ক্লাব ম্যাঞ্চেস্টার সিটির জার্সি উপহার দেন। যেখানে লেখা ছিল “আমার রাষ্ট্রপতি জন্য”। অবশ্য এতে রাজনীতির কিছুই দেখেননি গুন্ডোগান। কিন্তু ওজিল মুখ খোলেননি।

image600

অলিভার আরও বলেন, “ওঁরা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে ছবি তুলেছে বলে আমরা কিছু বলছি না। কিন্তু তার পড়েও এই বিতর্ক চলতে থাকে। ফলে দলের ভিতরে অনেকটা ক্ষতি হতে থাকে। যা দলের ভারসাম্য এবং নিজেদের মধ্যে একাগ্রতায় বড়ো প্রভাব ফেলেছিল”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here