kroosfinal

জার্মানি – ২                         সুইডেন – ১

ওয়েবডেস্ক: টনি ক্রুস। নামটা হয়তো জার্মানির ফুটবল মানচিত্রে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। অন্তত আজকের ম্যাচ নিয়ে ভবিষ্যতে ইতিহাস ঘাটলে। ফ্রি-কিক থেকে অবিশ্বাস্য গোল সংযুক্ত সময়ে। পিছিয়ে পড়েও, দ্বিতীয়ার্ধে দু’গোলে অবিশ্বাস্য জয়। যার ফলে বিশ্বকাপে টিকে রইল জার্মানদের ভাগ্য। পরিস্থিতি যা তা তে গ্রুপের শেষ ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়াকে হারাতেই হবে। এবং সুইডেনকে হারতে হবে মেক্সিকোর কাছে। জার্মানি সারা ম্যাচে দাপট দেখালেও, সুইডেনের লড়াইকে কিন্তু কুর্নিশ জানাতেই হবে। তাদেরও সুযোগ রইল পরের রাউন্ডে যাওয়ার। মেক্সিকোকে হারাতে পারলে এসে যাবে সুযোগ।

শনিবার শুরু থেকেই আক্রমণ চালায় জার্মানি। তাদের খেলা দেখে একবারও মনে হয়নি প্রথম ম্যাচে তারা পরাজিত হয়েছে। গোলও পেয়ে যেত তারা। কিন্তু ড্রাক্সলারের শট বাঁচিয়ে দেন সুইডিশ গোলকিপার ওলসন। সারা ম্যাচে নজর কাড়লেন এই গোলকিপার। গতিকে সামনে রেখে ক্রমাগত আক্রমণ জার্মানির। সুযোগ তৈরি করেছিলেন কিমিচ, মুলাররা কিন্তু কার্যকর করতে ব্যর্থ হন। যার একমাত্র কারণ সুইডিস ডিফেন্স। তবে এরই মাঝে প্রতি-আক্রমণে সুযোগ পেয়েছিলন সুইডেনের মার্কাস বার্গ কিন্তু তা কাজে লাগাতে ব্যর্থ তিনি। যে গতিতে চার বারের চ্যাম্পিয়নরা শুরু করেছিল তা অবশ্য কিছুটা শ্লথ হতে থাকে। যার ফলে প্রতি-আক্রমণে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা চালায় সুইডেন। ফল পেতেও সময় লাগেনি। তোইভনেনের গোলে লিড নেয় সুইডেন। বিরতিতে যাওয়ার আগে ফের সুযোগ পেয়েছিউলেন বার্গ, কিন্তু তার হেডার বাঁচিয়েদেন জার্মান গোলকিপার ন্যয়ার।

দ্বিতীয়ার্ধেও গতিকে প্রাধান্য রেখেই আক্রমণ শুরু করে জোয়াকিম লো-র ছেলেরা। যার ফল তিন মিনিটের মধ্যে দলকে এগিয়ে দেন ম্যাচের অন্যতম চর্চিত খেলোয়াড় রইস। ফলে শুরুতেই গোল পেয়ে আক্রমণে রেশ থাকেন মুলাররা। কিন্তু সেই সুইস ডিফেন্স। সমতা ফেরানোর পর ফের সুযোগ পেয়েছিলেন রইস। কিন্তু এবার ব্যর্থ হন তিনি। ক্রমাগত আক্রমণ চালালেও, একসময় মনে হচ্ছিল হয়তো এই ম্যাচেও জয় অধরা থাকবে জার্মানদের। কারণ এরই মাঝে দ্বিতীয় বার হলুদ কার্ড দেখে লাল কার্ড দেখেন জার্মানির বোটেং এবং নির্ধারিত সময়ের মিনিট দু’য়েক আগে গোমেজের অবধারিত হেডার বাঁচান সেই ওলসন। তবে ফুটবল যে একটা সুযোগই ম্যাচ ঘুরিয়ে দেবার জন্য যথেষ্ট তা ম্যাচের শেষ পর্যন্ত না দেখলে বোঝা যায় না। সংযুক্ত সময়ে ক্রুস-য়ের ফ্রি-কিক তারই প্রমাণ।

ফলে এই মুহূর্তে দুই ম্যাচে জার্মানির পয়েন্ট তিন। সামনে মেক্সিকো সমান ম্যাচে ছয় পয়েন্ট এবং সুইডেনের তিন পুয়েন্ট।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here