coachfinal

ওয়েবডেস্ক: বিশ্বকাপ শুরু হতে আর মাত্র তিন দিন। ফুটবল জ্বরের পারদ যে রীতিমতো ঊর্ধ্বমুখী তা আর বোলার অপেক্ষা রাখে না। ইতিমধ্যেই পাড়ায় পাড়ায় পতাকা, ফেস্টুন লাগানো প্রায় শেষ। এখন শুধু ম্যাচ শুরুর অপেক্ষা। রোনাল্ডো, মেসি না নেইমার নাকি অন্য কোনো নতুন তারকা, কারা বিশ্বকাপে নিজেদের সেরাটা দেবে তা তো সময়ই বলবে। কিন্তু এই তারকাদের রীতিমতো রুটিন মাফিক তৈরি করা, সময় মতো গাইড করা, সেই কোচেদের নিয়ে কিন্তু খুব একটা কথা হয় না। তারা কিন্তু সবসময়ই পর্দার আড়ালেই থেকে যান। তবে যারা পর্দার ভিতরে থেকে কাজ করে তারাই তো আসল শিল্পী।

জেনে নিন আসন্ন বিশ্বকাপের এমনই পাঁচ সেরা কোচের সম্বন্ধে যাদের ওপর নজর রাখতেই হবে:

১। জোয়াকিম লো

গত বিশ্বকাপের জয়ী কোচ ৫৮ বছরের লো। জার্মানিকে চব্বিশ বছর পর ফের বিশ্বসেরা করেছেন তিনি। এ ছাড়াও গত বছর প্রথম বারের জন্য জার্মানিকে কনফেডেরেশন কাপও এনে দিয়েছেন। দলের পক্ষে কোনটা ভালো এবং কোনটা মন্দ তা লো ভালো মতনই জানেন। পরপর দু’বার কোচ হিসাবে বিশ্বকাপ জিততে মরিয়া হয়ে আছেন তিনি।

low-final

২। হোর্হে সাম্পাওলি

বিশ্বকাপে আর্জেন্তিনা শুধু মেসির দিকে তাকিয়ে নয়। নজর থাকবে কোচ সাম্পাওলির ওপরও। চিলির হয়ে কোপা আমেরিকা এবং সেভিয়ার হয়ে সাফল্য থাকলেও, আর্জেন্তিনার জাতীয় দলের কোচ হিসাবে শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি তাঁর। একসময় মনে হচ্ছিল বিশ্বকাপে হয়তো দেখা যাবে না নীল-সাদা ব্রিগেডকে। কিন্তু তাঁর এবং অধিনায়ক মেসির যুগলবন্দিতে বিশ্ব মঞ্চে ফের নিজেদের সেরাটা দিতে তৈরি তাঁরা।

sampaolifinal

৩। তিতে

বিশ্বকাপে যেই সব কোচেদের দিকে নজর থাকবে তাদের মধ্যে অন্যতম তিতে। এই মুহূর্তে ব্রাজিলের পুরো ছন্দটাই বদলে দিয়েছেন করিন্থিয়ান্স, গ্রেমিওর প্রাক্তন কোচ। গত বারের ব্যর্থতা কাটিয়ে তিতের হাত ধরে ফের নিজেদের বিশ্বসেরা করতে মরিয়া সেলেকাওরা। যা বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্যায়ে রীতিমতো প্রকাশ পেয়েছে। ষোলো বছর পর দেশকে বিশ্বকাপ দেওয়ার শপথ ইতিমধ্যেই নিয়ে ফেলেছেন আদেনোর বাচ্চি ওরফে তিতে।

tite-final

৪। জুলেন লোপেতেগুই

ভিসেন্ট দেল বস্ক দায়িত্ব ছাড়বার পর বিশ্ব ফুটবলে স্পেনকে নতুন ভাবে চেনাতে তৈরি কোচ লোপেতেগুই। কোচিং জীবন শুরু করবার আগে পেশাদারি ফুটবলে গোলকিপার ছিলেন। এ ছাড়াও পোর্টো এবং রেয়াল মাদ্রিদ বি দলের কোচ ছিলেন। স্পেনের হয়ে প্রথম ২০টি ম্যাচেই অপরাজিত রয়েছেন। যা দ্বিতীয় সেরা শুরু কোনো কোচের। প্রথমে প্রাক্তন স্প্যানিশ কোচ লুইস অ্যারাগোনেস। চুপচাপ নিজের কাজ করতে ভালোবাসেন ৫২ বছর বয়সি এই কোচ।

lopeteguifinal

৫। ফার্নোন্দো স্যান্টস

পর্তুগালের কোচ হয়ে আসবার পর পুরো দলের ভোল পাল্টে দিয়েছেন বর্ষীয়ান এই কোচ। তাঁরই কোচিংয়ে ২০১৬ সালে ইউরোপ সেরার তকমা পায় পর্তুগাল। দেশকে এই সাফল্য এনে দেওয়ার পর তাঁর নতুন লক্ষ্য প্রথম বারের জন্য বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন করা। কোচ হয়ে পর্তুগালকে একটা দল হিসাবে রীতিমতো গঠন করার লক্ষে অনেকটাই এগিয়েছেন তিনি। তারকা খেলোয়াড় ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক দেখবার মতো। ফলে স্বপ্ন দেখতেই শুরু করতে পারেন তাদের সমর্থকরা।

santos600

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here