photofinal

ওয়েবডেস্ক: ইংল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বকাপের ফাইনালে প্রথম বার ক্রোয়েশিয়া। টুর্নামেন্ট শুরু হওয়ার সময়ও হয়তো কেউ ভাবেনি এমন কিছু ঘটতে চলেছে। যুগোস্লাভিয়া ভেঙে গিয়ে ১৯৯১ সালে একক রাষ্ট্র হিসাবে আত্মপ্রকাশ ঘটে ক্রোয়েশিয়ার। অবশ্য ১৯৯৮ বিশ্বকাপে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল তারা। সে বার সেমিফাইনালে পৌঁছোলেও, আয়োজক দেশ ফ্রান্সের কাছে হেরে বিদায় নিতে হয় তাঁদের। শুধু তা-ই নয়, তারকা খেলোয়াড় দাভিদ সুকের বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতার শিরোপাও পান।

কিন্তু সে সব তো গেল ইতিহাস। বর্তমানে কাপ ফাইনালে, প্রথম বার দেশকে কাপ এনে দিতে বদ্ধপরিকর মদ্রিচ, রাকিতিচরা। শেষমেশ কী হবে তা তো সময়ই বলবে। তবে তার আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁদের নিয়ে আনন্দের শেষ নেই।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত সময়ে মান্ডুকিচের গোলে জয় পায় ক্রোয়েশিয়া। গোল করে খেলোয়াড়দের সেলিব্রেশন নতুন কিছু নয়। এবং তাঁদের ঘিরে চিত্রসাংবাদিকরা যে হুড়মুড়িয়ে পড়বে, সেটাই স্বাভাবিক। কিন্তু তাই বলে চিত্রসাংবাদিককে ধরাশায়ী করে। এমনকি মাঠে প্রায় তাঁর ওপর শুয়ে পড়ে সেলিব্রেশন। অবশ্য তাই হল।

এএফপি মেক্সিকোর চিফ ফটোগ্রাফার য়ুরি কর্তেজ, এই মুহূর্তে রাশিয়ায় বিশ্বকাপ নিয়ে ব্যস্ত। ইংল্যান্ড-ক্রোয়েশিয়া ম্যাচে তিনি ছিলেন মাঠে। মারিও-র গোলের পর ক্রোয়েশিয়ার খেলোয়াড়দের তাঁকে টপকে সেলিব্রেশন ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। অবশ্য তাঁর কোনো ক্ষতি হয়নি। পুরোপুরি সুস্থ তিনি। তবে খেলোয়াড়দের এত সামনে পেয়ে দুর্দান্ত ‘স্ন্যাপ’ নিতে ভুল করেননি তিনি। ম্যাচ শেষে যা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টও করেন য়ুরি।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here