Ronaldo-6

ওয়েবডেস্ক: ক্রিস্চিয়ানো রোনাল্ডো আটকাতে ফাউল করার দরকার নেই, ওঁর চুল-ই যথেষ্ট, বলে ফের আর একবার প্রাক্তন উরুগুয়ে ফুটবলার মার্সেলো সোসা। এ ব্যাপারে তিনি উসকে দিয়েছেন ২০১০ সালের স্মৃতিকে। যে সময় রোনাল্ডো খেলছেন রিয়াল মাদ্রিদে। আর সোসা ছিলেন পেনারলে। এমনই এক অদ্ভুতুড়ে অভিজ্ঞতা নাকি তাঁর ঝুলিতে আছে।

কী ভাবে মাঠে রোনাল্ডোর গতি স্তব্দ করে দেওয়া সম্ভব? এমন প্রশ্নের উত্তরে উরুগুয়ের জাতীয় দলের প্রাক্তন ফুটবলার সোসা বলেন, ওঁকে ট্যাকল করার থেকেও একটা সহজ পদ্ধতি রয়েছে। তা হল ওঁর চুল ঘেঁটে দেওয়া।

সোসার মতে, পর্তুগিজরা এমনিতেই মাথার চুলের ব্যাপারে খুবই যত্নশীল। রোনাল্ডোর মধ্যে যা কি না রয়েছে একটু বেশি মাত্রায়। ফলে এটা মোটেই কোনো কৌতুক নয়, বিপক্ষের কোনো  ফুটবলার যদি ফাউল এড়িয়ে ওঁর চুল এক বার অবিন্যস্ত করে দেয়, তা হলে বেশ কিছুক্ষণের জন্য ওঁকে অমনোযোগী করে তোলা সম্ভব। আবার এমনটাও হতে পারে, এমন ঘটনার পর রোনাল্ডো নিজের খেলার ছন্দও হারিয়ে ফেলতে পারেন। কিন্তু এসব দিকে রেফারির চোখ যে তীক্ষ্ম দৃষ্টি রাখবে, সেটাও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

ক্রীড়া সমালোচকদের কথায়, উরুগুয়ের ফুটবলার বা তাদের সমর্থকদের এই ধরনের অবাঞ্ছিত ঘটনা অথবা ডার্ক আর্ট ঘটাতে আগেও দেখা গিয়েছে। ১৯৮৬-র বিশ্বকাপে আর্জেন্তিনার ফুটবলাররা তাদের বিরুদ্ধে এমনই এক বিদঘুটে অভিযোগ এনেছিলেন। অভিযোগ ছিল, ম্যাচের আগের দিন রাতে উরুগুয়ের সমর্থকরা আর্জেন্তিনার ফুটবলারদের হোটেলের পাশে সারারাত তারস্বরে গান-বাজনা করতে থাকে। ফলে রাতের ঘুম উবে যায় তাঁদের। পর দিন মাঠে নেমে অনিদ্রাজনিত সমস্যার শিকারও হতে হয়।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here