iceland-wc

ওয়েবডেস্ক: আসন্ন বিশ্বকাপে গ্রুপ ডি-র অন্যতম আকর্ষণ আইসল্যান্ড। বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথমবার আবির্ভাব হতে চলেছে তাদের। ফুটবল মানচিত্রে তেমন সাফল্য না থাকলেও, প্রথম আবির্ভাবেই যে তারা যেকোনো দলের রাতের ঘুম কেড়ে নিতে পারে তার প্রমাণ ইতিমধ্যেই পেয়েছে ফুটবল বিশ্ব। ২০১৬ ইউরোপিয়ান টুর্নামেন্টে প্রথমবারের জন্য মূলপর্বে খেলার সুযোগ পায় তারা। নতুন দল হিসাবে আত্মপ্রকাশ করলেও, খেলা দেখে মনে হয়নি আইসল্যান্ড ‘ছোটো’ দল। দৃষ্টিনন্দন ফুটবলে রীতিমতো বাহবা কুড়িয়েছিলেন তারা। শুধু তাই নয়, প্রথম ঝলকেই ইংল্যান্ডের মতো দেশকে হারিয়ে তারা পৌঁছে গিয়েছিল কোয়ার্টার ফাইনালে। বিশ্বকাপে জনসংখ্যার দিক দিয়ে সবচেয়ে ছোটো দল হিসাবে যোগ্যতা পাওয়ার রেকর্ডও করে ফেলছে তারা।

আসন্ন বিশ্বকাপে আর্জেন্তিনা, ক্রোয়েশিয়া এবং নাইজেরিয়ার সঙ্গে ‘গ্রুপ অফ ডেথে’ রয়েছে তারা। কোচ হাইমার হাল্গ্রিমসন একজন দাঁতের ডাক্তার হয়েও, দলকে বিশ্ব ফুটবলে নতুন শক্তি করে তুলতে মরিয়া।

heimir-wc

দলের প্রায় প্রতি খেলোয়াড়ই ইউরোপের লিগগুলিতে পেশাদারি ফুটবল খেলেন। বিশ্বকাপে যাদের দিকে নজর থাকবে তারা হলেন গোলকিপার হান্নেস হাল্ডরসন। ডিফেন্সের দায়িত্বে রয়েছেন বিরকির মার সাইভেরসন এবং রাগ্নার সিইগুরসন। অন্যদিকে মিডফিল্ডের দায়িত্বে রয়েছেন দলের তারকা খেলোয়াড় গিলফি সিগারসন। ইপিএলে এভারটন দলের অন্যতম স্তম্ভ তিনি। অন্যদিকে স্ট্রাইকিংয়ে দায়িত্বে রয়েছে আলফ্রেও ফিন্নোবগাসন এবং জন ডাও বোভারসনের ওপর। এছাড়া অধিনায়ক অ্যারন এইনার গুনারসন তো আছেনই।

বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচে তারা মুখোমুখি আর্জেন্তিনার।

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপ ২০১৮: নাইজেরিয়া

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here