lm10

ওয়েবডেস্ক: আর্জেন্তিনাকে নিয়ে নতুন করে আর বলার কিছু নেই। বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম দাবিদার তারা। গ্রুপ ডি-তে রয়েছেন মেসিরা। এই নিয়ে মোট সতেরো বার বিশ্বকাপের মঞ্চে তারা। বিশ্বকাপে তাদের রেকর্ড যথেষ্ট আকর্ষণীয়। ১৯৭৮ এবং সব থেকে চর্চিত ১৯৮৬ সালে মারাদোনার হাত ধরে বিশ্বকাপ জয় আর্জেন্তিনার। এ ছাড়াও ১৯৯০ এবং গত বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছিল তারা। কিন্তু শেষমেশ জার্মানির কাছে এক গোলের ব্যবধান হারতে হয় তাদের। আসন্ন বিশ্বকাপে অবশ্য নীল-সাদা জার্সিধারীদের দেখা যেত না। যদি না শেষ ম্যাচে মেসির হ্যাটট্রিকে তারা জয় পেত ইকুয়েডরের বিরুদ্ধে। এই মুহূর্তে বিশ্ব ফুটবলে আর্জেন্তিনা মানে লিও মেসি। পাঁচ বারের বিশ্বসেরা খেলোয়াড় তিনি। মারাদোনার পর তাঁকেই দেশের সেরা খেলোয়াড় হিসাবে গণ্য করা হয়। গত বিশ্বকাপে অধিনায়ক হিসাবে বিশ্বকাপ না পাওয়ার স্মৃতিকে বদলাতে মুখিয়ে আছেন তিনি।

argentinaaaa

আসন্ন বিশ্বকাপে দলের দায়িত্বে রয়েছেন জর্জ সাম্পাওলি। দলের নাড়িনক্ষত্র ভালোই চেনেন তিনি। দলের প্রায় সব খেলোয়াড়ই ইউরোপের সেরা লিগগুলিতে পেশাদারি ফুটবল খেলেন। অবশ্য বিশ্বকাপের আগে চোট পেয়ে ইতিমধ্যেই দল থেকে বাদ পড়েছেন গত বিশ্বকাপের অন্যতম সেরা গোলকিপার রোমেরো। ফলে তাঁর জায়গায় গোল সামলাবার দায়িত্ব থাকবে উইলি ক্যাবালোর ওপর। ডিফেন্সের দায়িত্বে রয়েছেন ইপিএলে দুই চির প্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাব ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড এবং ম্যাঞ্চেস্টার সিটিতে খেলা মার্কস রোজো এবং নিকোলাস ওটামেন্ডি। মাঝমাঠের দায়িত্বে সামলাবেন অভিজ্ঞ্য মাসচেরানো। তাঁকে সঙ্গ দেওয়ার জন্য থাকবেন ডি’মারিয়া এবং বিগলিয়া। তবে আর্জেন্তিনার ফরওয়ার্ড লাইন কিন্তু এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম সেরা। মেসির সঙ্গে থাকবেন অ্যাগুয়েরো, ডিবালা এবং হিগুয়েন। তবে অন্যতম চর্চিত মুখ ইক্কারডির না থাকা কতটা প্রভাব ফেলবে তাতো সময়ই বলবে।

বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে তারা মুখোমুখি আইসল্যান্ডের।

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপ ২০১৮: অস্ট্রেলিয়া

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here