belgium1final

ওয়েবডেস্ক: আসন্ন রাশিয়া বিশ্বকাপে ট্রফি জেতার অন্যতম দাবিদার ইউরোপের বেলজিয়াম। কখনও বিশ্বকাপ না জিতলেও, তারা বরাবরই যে কোনো দেশের কাছে কঠিন প্রতিপক্ষ। এই নিয়ে তেরোবার বিশ্বকাপের মঞ্চে তাঁদের আবির্ভাব হতে চলেছে। সাফল্য বলতে ১৯৮৬ বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল এবং গত বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে ছিল তারা। যোগ্যতা অর্জন পর্বে ৪৩টি গোল করেছে তারা হজম করেছে মাত্র ৬ টি। বর্তমান প্রজন্মকে অনেকেই সেরা মনে করছেন কারণ প্রায় সব খেলোয়াড়ই ইউরোপের বড়ো দলগুলির নিয়মিত সদস্য। সঙ্গে কোচ রবার্টো মারটিনেজও ইউরোপের অন্যতম প্রতিষ্ঠিত কোচ। ফলে তাঁর তত্ত্বাবধানে নিজেদের সেরাটা দিতে প্রস্তুত তারা। বিশ্বকাপে জি গ্রুপে তাঁদের সঙ্গে রয়েছে ইংল্যান্ড, তিউনিশিয়া ও পানামা।

belgium2600

প্রথম এগারোয় ঢোকবার জন্য লড়াই রীতিমতো তুঙ্গে। গোলকিপিং থেকে শুরু করে ফরওয়ার্ড। গোলকিপিংয়ে লড়াই চেলসির থিয়াবট করতুয়া এবং লিভারপুলের সিমন মিংনলেটের মধ্যে। ডিফেন্সের দায়িত্বে রয়েছেন বার্সেলোনার থমাস ভারমালেন, টটেনহ্যাম হটস্পার দলের দুই স্তম্ভ জেন ভরতঙ্গান এবং টোবি অল্ডার উইরাল্ড। তবে প্রস্তুতি ম্যাচে বর্ষীয়ান ডিফেন্ডার ভিনসেন্ট কোম্পানি চোট পেলেও তাঁকে দলে রেখেছেন কোচ। অন্যদিকে মাঝমাঠের দায়িত্বে রয়েছেন অন্যতম তারকা খেলোয়াড় কেভিন ডি ব্রুইন। যিনি চলতি মরশুমে ম্যাঞ্চেস্টার সিটির হয়ে লিগ জিতেছেন। তাঁর সঙ্গে রয়েছেন ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের ম্যারোয়ান ফেল্লাইনি এবং তরুণ আদনান জানুজাজ। তবে স্ট্রাইকিংয়ে নজর রাখতেই হবে কারণ দলের সবথেকে চর্চিত মুখ অধিনায়ক এডেন হ্যাজার্ড। যাকে এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম সেরা হিসাবে গণ্য করা হয়। রয়েছেন তাঁর ভাই থরগান হ্যাজার্ড এবং রোমেলু লুকাকু।

বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে তারা মুখোমুখি পানামার।

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপ ২০১৮: ইংল্যান্ড

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here