বিশ্বজনীন হওয়ার পথে ভারতীয় মুদ্রা, রাশিয়ার পর ‘রুপি’-তে বাণিজ্যে আগ্রহী ৩৫টি দেশ

0
Currency

নয়াদিল্লি: ভারতীয় মুদ্রায় আন্তর্জাতিক বাণিজ্য আরও বিস্তৃত হতে চলেছে। রাশিয়া ভারতীয় রুপিতে বিদেশি বাণিজ্য শুরু করার পর এ বার প্রায় ৩৫টি দেশ রুপি (Rupee)-তে ব্যবসা করতে আগ্রহ দেখাচ্ছে।

রাশিয়ার পর শ্রীলঙ্কা!

প্রথম কোনো দেশ হিসেবে ভারতীয় মুদ্রায় বিদেশি বাণিজ্য শুরু করেছিল রাশিয়া। সূত্রের খবর, এর পর আরও প্রায় ৩৫টি দেশ রুপি-ভিত্তিক বাণিজ্য ব্যবস্থাকে আরও ভালো ভাবে বোঝার আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক (RBI) ২০২২ সালের জুলাই মাসে আরও দেশ থেকে আগ্রহ আকর্ষণ করার জন্য ভারতের রুপি বাণিজ্য নিষ্পত্তির (trade settlement) ব্যবস্থা তৈরি করেছিল। ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের সেই পদক্ষেপের পরই আগ্রহ দেখিয়েছে ওই দেশগুলি। আশা করা হচ্ছে, রাশিয়ার পরে, একই সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে শ্রীলঙ্কা। কারণ, রাশিয়ার পরই ভারতীয় রুপিতে ব্যবসা করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে প্রতিবেশী দ্বীপরাষ্ট্র।

আগ্রহ দেখাচ্ছে কোন কোন দেশ

রুপিতে বাণিজ্য করতে ইচ্ছুক দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ, নেপাল এবং মায়ানমারের মতো প্রতিবেশী দেশ। এ সব দেশ এখন নিজেদের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভে ডলারের ঘাটতির সম্মুখীন হচ্ছে। মিডিয়া রিপোর্টে বলা হয়েছে, তাজিকিস্তান, কিউবা, লুক্সেমবার্গ এবং সুদানও রুপিতে বাণিজ্য নিষ্পত্তির জন্য আলোচনা করছে।

সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের একটি রিপোর্টে একটি সরকারি নথির উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়েছে যে, এই চারটি দেশ টাকায় বাণিজ্য নিষ্পত্তির জন্য একটি বিশেষ আগ্রহ দেখিয়েছে। এই চারটি দেশ ভোস্ট্রো অ্যাকাউন্ট (Vostro accounts) নামে বিশেষ রুপি অ্যাকাউন্ট খুলতে আগ্রহ দেখিয়েছে এবং সেই সুবিধাগুলি দেওয়ার জন্য ভারতের অংশীদার ব্যাঙ্কগুলির জন্য অপেক্ষা করছে। মরিশাস এবং শ্রীলঙ্কার মতো দেশগুলির জন্য বিশেষ ভস্ট্রো অ্যাকাউন্ট ইতিমধ্যেই অনুমোদন পেয়েছে আরবিআই-এ।

রুপি বাণিজ্য চুক্তি কতটা উপকারী

অপরিশোধিত তেল-সহ বেশিরভাগ আমদানির লেনদেন এবং অর্থপ্রদান এবং ভারতের বিভিন্ন বিদেশি লেনদেন মার্কিন ডলারে (USD) মেটাতে হয়। পেট্রোলিয়াম রফতানিকারক দেশগুলির সংস্থা ওপেক (OPEC) থেকে তেল আমদানির জন্য জন্য ডলার কিনতে ভারতীয় রুপি (INR) বিক্রি করতে হয় ভারতকে।

উল্লেখযোগ্য ভাবে, ভারতীয় রুপি সম্পূর্ণ রূপান্তরযোগ্য (fully convertible) নয় এবং তাই, এটির জন্য ক্রেতা পাওয়া প্রায়ই কঠিন। অন্যদিকে, ভারতীয় রুপির তুলনায় ডলারের চাহিদা বেশি এবং এর সরবরাহ নিয়ন্ত্রণ করে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক ফেডারেল রিজার্ভ। কিন্তু অন্য দেশগুলি রুপিতে বিদেশি বাণিজ্য শুরু করলে আরবিআই-কে ডলার কেনার জন্য রুপি বিক্রি করতে ক্রেতা খুঁজতে হবে না। ফলে এতে ভারতীয় রুপির চাহিদা বাড়বে এবং সঞ্চয়ও বৃদ্ধি করবে।

আরও পড়ুন: গঙ্গাসাগর মেলার প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে, বাড়ছে পুণ্যার্থীদের ভিড়

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন