Homeখবরদেশগুমনামি বাবা কে? কী বলছে রিপোর্ট

গুমনামি বাবা কে? কী বলছে রিপোর্ট

প্রকাশিত

নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর অন্তর্ধান নিয়ে একাধিক অনুমান ছড়িয়ে রয়েছে। কারও মতে, তিনি ১৯৪৫ সালে জাপানের তাইহোকু বিমানবন্দরের দুর্ঘটনায় মারা যান। কেউ মনে করেন, নেতাজি রাশিয়ায় ছিলেন। আবার কারও মতে, উত্তরপ্রদেশের ‘গুমনামি বাবা’ই নেতাজি। তবে নেতাজি অন্তর্ধান রহস্য উন্মোচনে গঠিত কোনো কমিশনই গুমনামি বাবাকে নেতাজি হিসাবে মেনে নেয়নি। তবুও তা নিয়ে জড়িয়ে রয়েছে জল্পনা।

উত্তরপ্রদেশের ফৈজাবাদে (বর্তমানে অযোধ্যা) থাকতেন গুমনামি বাবা ওরফে ভগবানজি। তাঁকেই কেউ কেউ নেতাজি বলে ধারণা করেন।

২০১৬ সালে উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব প্রাক্তন বিচারপতি বিষ্ণু সহায়ের নেতৃত্বে একটি কমিশন গঠন করেন। এলাহাবাদ হাইকোর্ট গুমনামি বাবাকে নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিতেই সেই কমিশন গঠিত হয়।

ওই কমিশন বছর তিনেক বাদে সরকারের কাছে রিপোর্ট জমা দেয়। বিধানসভায় রিপোর্টটি প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। 

কমিশনের রিপোর্টে বেশ কয়েকটি তথ্য তুলে ধরা হয়। যেগুলির মধ্যে অন্যতম কয়েকটি-

১. গুমনামি বাবা একজন বাঙালি। তিনি বাংলা, ইংরাজি এবং হিন্দি জানতেন।

২. তিনি ছিলেন বিরল প্রতিভার অধিকারী।

৩. গুমনামি বাবার রামভবন থেকে বাংলা, ইংরাজি এবং হিন্দিতে লেখা একাধিক বই উদ্ধার করা হয়।

৪. যুদ্ধ, রাজনীতি এবং সমসাময়িক ঘটনা প্রসঙ্গে অগাধ জ্ঞান ছিল গুমনামি বাবার।

৫. কারও মতে, গুমনামি বাবার কণ্ঠস্বর অনেকটাই নেতাজির মতোই।

৬. গুমনামি বাবার অসীম ধৈর্য্য ক্ষমতা ছিল।

৭. অযোধ্যায় তিনি প্রায় ১০ বছর লোকচক্ষুর আড়ালে ছিলেন।

৮. আধ্যাত্মিকতা এবং যোগের মধ্যেই সময় কাটাতেন গুমনামি বাবা।

৯. গান শোনা, সিগার এবং খাওয়া ছিল তাঁর পছন্দের।

১০. গুমনামি বাবা নিজে নেতাজির অনুগামী ছিলেন, কিন্তু তাঁকে নিয়ে খবর ছড়িয়ে পড়তেই তিনি নিজের বাসস্থান পরিবর্তন করে নেন।

সহায় কমিশন রিপোর্টের সমাপ্তিতে বলা হয়েছে, গুমনামি বাবা একজন মেধাবী মানুষ এবং তাঁর মতো মানুষ খুবই বিরল, যাঁরা নিজের পরিচয়ের গোপনীয়তা প্রকাশের পরিবর্তে মৃত্যু পছন্দ করেন। তবে তাঁর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়াটি এমন ভাবে আয়োজন করা হয়েছিল, যেখানে শুধুমাত্র ১৩ জন নিয়েছিল। গুমনামি বাবার পরিচয় এখনও অচিহ্নিত।

এ কথা বলেছে খোদ বিষ্ণু সহায় কমিশনের রিপোর্ট। এ ব্যাপারে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের প্রধান অধ্যাপক সুস্নাত দাশ বলেন, “নেতাজি একজন বিশাল ব্যক্তিত্ব। কোনো মাপকাঠিতেই তাঁকে মাপা সম্ভব নয়। ফলে তাঁর মতো বিরল ব্যক্তিত্বকে নিয়ে বাণিজ্যিক চলচ্চিত্র থেকে শুরু করে রসালো গল্প-উপন্যাস লেখা হতেই পারে”।

একই সঙ্গে তিনি বলেন, “এখনও পর্যন্ত নেতাজিকে কেন্দ্র করে যে সমস্ত তদন্ত কমিশন গঠিত হয়েছে, সেগুলির কোনোটাতেই বলা হয়নি, ‘গুমনামি বাবা’ই নেতাজি”!

সাম্প্রতিকতম

আইসিসি টি২০ বিশ্বকাপ ২০২৪: রোহিতের রুদ্র মূর্তি, অস্ট্রেলিয়াকে ২৪ রানে হারিয়ে সেমিফাইনালে ভারত   

ভারত: ২০২৫-৫ (রোহিত শর্মা ৯২, সূর্যকুমার যাদব ৩১, মিশেল স্টার্ক ২-৪৫, মার্কাস স্টয়নিস ২-৫৬) অস্ট্রেলিয়া:...

অযোধ্যার রামমন্দিরের ছাদ থেকে জল ‘লিক’ করছে, জানালেন প্রধান পুরোহিত

অযোধ্যা (উত্তরপ্রদেশ): প্রাণপ্রতিষ্ঠা করার মাসছয়েকের মধ্যেই অযোধ্যার রামমন্দিরের ছাদ থেকে জল ‘লিক’ করছে। ঠিক...

মহাকাশ থেকে দেখা ‘রাম সেতু’: অত্যাশ্চর্য ছবি শেয়ার ইউরোপীয় সংস্থার

রাম সেতুর একটি ছবি প্রকাশ করেছে ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি (ESA)। এই সেতুটি আদম ব্রিজ...

বাংলাদেশের সঙ্গে ফরাক্কা, তিস্তা চুক্তি প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীকে কড়া চিঠি মুখ্যমন্ত্রীর

শনিবার দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি বৈঠক হয়। সেই...

আরও পড়ুন

অযোধ্যার রামমন্দিরের ছাদ থেকে জল ‘লিক’ করছে, জানালেন প্রধান পুরোহিত

অযোধ্যা (উত্তরপ্রদেশ): প্রাণপ্রতিষ্ঠা করার মাসছয়েকের মধ্যেই অযোধ্যার রামমন্দিরের ছাদ থেকে জল ‘লিক’ করছে। ঠিক...

মহাকাশ থেকে দেখা ‘রাম সেতু’: অত্যাশ্চর্য ছবি শেয়ার ইউরোপীয় সংস্থার

রাম সেতুর একটি ছবি প্রকাশ করেছে ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি (ESA)। এই সেতুটি আদম ব্রিজ...

কেজরীওয়ালের জামিন স্থগিত রাখল সুপ্রিম কোর্টও! হাই কোর্টের রায় দেখে সিদ্ধান্ত

আবগারি দুর্নীতি মামলায় গত ২১ মার্চ কেজরীওয়ালকে গ্রেফতার করেছিল ইডি। বৃহস্পতিবার দিল্লির রাউস অ্যাভিনিউ আদালত কেজরীওয়ালের জামিন মঞ্জুর করে।