Homeখবররাজ্যশিশু-বান্ধব দুর্যোগ আশ্রয় কেন্দ্রের জন্য রাজ্যের দৃষ্টি আকর্ষণ ইউনিসেফের

শিশু-বান্ধব দুর্যোগ আশ্রয় কেন্দ্রের জন্য রাজ্যের দৃষ্টি আকর্ষণ ইউনিসেফের

প্রকাশিত

কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে সুন্দরবন অঞ্চলে অস্থায়ী দুর্যোগ আশ্রয়কেন্দ্রগুলির উন্নয়নের সময় শিশুদের সুরক্ষা, তাদের স্বাস্থ্য এবং কচিকাঁচাদের সামগ্রিক মঙ্গলের বিষয়গুলি অন্তর্ভুক্ত করার জন্য অনুরোধ করেছে ইউনিসেফ।

পশ্চিমবঙ্গ সরকার, EnGIO নামক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার উদ্যোগে এবং কর্পোরেট সংস্থার তহবিলের সহায়তায় সুন্দরবনের ব-দ্বীপ অঞ্চলের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা গোসাবা ব্লকে বিদ্যালয়গুলিকে আরও ভালো প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও অসামরিক প্রতিরক্ষা দফতরের মন্ত্রী জাভেদ আহমেদ খান মঙ্গলবার কলকাতাতে একটি অনুষ্ঠানে বলেন, “এই প্রকল্পের লক্ষ্য হল বিদ্যালয়ের পরিকাঠামোর উন্নতি করা। এতে পড়ুয়ারা স্বাভাবিক সময়ে উপকৃত হবে এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিরা সেগুলি ব্যবহার করতে পারবে”।

গোসাবা ব্লকের কুমিরমারী নরেন্দ্রপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জেনারেটর, এমার্জেন্সি লাইট, ব্যাটারি চালিত মোবাইল চার্জিং সিস্টেম, হুইল চেয়ার, স্ট্রেচার, মেডিকেল বক্স এবং বয়স্ক, মহিলা ও শিশুদের জন্য উন্নত টয়লেটের সুবিধা প্রদান করা হবে।

ধীরে ধীরে, অন্যান্য দুর্যোগের সময় গবাদিপশুদের আশ্রয় এবং সুরক্ষার উপরও জোর দেওয়া হবে, মন্ত্রী জাভেদ আহমেদ খান বলেন।

মন্ত্রী আরও উল্লেখ করেছেন যে একটি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণে সরকারের তিন কোটি টাকা খরচ হয়। যেখানে শুধুমাত্র তিন লক্ষ টাকা খরচে স্কুল ভবনগুলিতে প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় গ্রামবাসীদের উন্নত মানের জীবনযাত্রা প্রদান করতে পারে।

প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় শিশু, মহিলা এবং বয়স্কদের সবচেয়ে বেশি ঝুঁকির সম্মুখীন হতে হয় জানিয়ে, ইউনিসেফের পশ্চিমবঙ্গ শাখার প্রধান প্রভাত কুমার বলেন, “এই পরিকাঠামোগুলির উন্নতির সময় শিশু, মহিলা এবং বয়ষ্ক ব্যক্তিদের সহায়ক হবে এমন পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিত। এতে এইসব মানুষদের বেশি সুরক্ষা দেওয়া যাবে।”

তিনি বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগের তীব্রতা এবং মাত্রা দিন দিন বেড়েই বাড়ছে এবং এই সময়ে সরকারের এমন একটি কর্মসূচি প্রশংসনীয়।

লক্ষ্য করা গেছে যে সুন্দরবনের দ্বীপগুলিতে বসবাসকারী গ্রামবাসীরা যখন ঘূর্ণিঝড় বা বন্যার সময় আশ্রয়ের জন্য স্থানীয় স্কুল ভবনগুলিতে জড়ো হয়।

EnGIO-র পরিচালক জয়ন্ত বসু বলেন, “সরকার কর্তৃক স্থাপিত বহুমুখী দুর্যোগ আশ্রয়কেন্দ্রগুলির পাশাপাশি, স্থানীয় স্কুলগুলিও একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই প্রকল্পটি স্থানীয় মানুষদের পর্যাপ্ত নিরাপত্তা, সুরক্ষা এবং সুবিধা প্রদান করবে বলে আমরা আশাবাদী”।

সাম্প্রতিকতম

হরিয়ানার নুহতে পুণ্যার্থী ভর্তি বাসে আগুন, ৯ জনের মৃত্যু, আহত ২০-র বেশি

চণ্ডীগঢ়: কুণ্ডলী-মানেসার-পালওয়াল এক্সপ্রেসওয়েতে নুহ জেলার ধুলাভাত গ্রামের কাছে একটি চলন্ত বাসে আগুন লেগে মৃত্যু...

ভোট শেষ হওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ভোটের হিসেব প্রকাশ: ২৪ মে-র মধ্যে কমিশনের জবাব চায় সুপ্রিম কোর্ট

খবর অনলাইন ডেস্ক: ঠিক কত ভোট পড়ল তার প্রকৃত তথ্য ভোটগ্রহণের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে...

বর্ষাকে ভারতীয় ভূখণ্ডে নিয়ে আসার জন্য চলতি গরম খুব গুরুত্বপূর্ণ, সোমবার থেকে ফের ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা

শ্রয়ণ সেন বর্ষার দামামা বেজে গিয়েছে। দক্ষিণ আন্দামান সাগরে ১৯ মে, রবিবার বর্ষা প্রবেশ করে...

কানহাইয়া কুমারের উপর হামলা, ভিডিও প্রকাশ করে চাঞ্চল্যকর দাবি হামলাকারীর

নয়াদিল্লি: শুক্রবার উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে নির্বাচনী প্রচারের সময় 'ইন্ডিয়া' জোট প্রার্থী কানহাইয়া কুমারের ওপর হামলা...

আরও পড়ুন

বর্ষাকে ভারতীয় ভূখণ্ডে নিয়ে আসার জন্য চলতি গরম খুব গুরুত্বপূর্ণ, সোমবার থেকে ফের ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা

শ্রয়ণ সেন বর্ষার দামামা বেজে গিয়েছে। দক্ষিণ আন্দামান সাগরে ১৯ মে, রবিবার বর্ষা প্রবেশ করে...

সন্দেশখালির মাম্পি দাসের জামিন মঞ্জুর, হাইকোর্টে ধাক্কা রাজ্য পুলিশের

কলকাতা: সন্দেশখালির বিজেপি নেত্রী মাম্পি দাসকে ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন দিল কলকাতা হাইকোর্ট। শুক্রবার এই...

দক্ষিণ ও উত্তর কলকাতার বেশ কিছু অংশে শনিবার সন্ধে থেকে মদ বিক্রি বন্ধ

খবর অনলাইন ডেস্ক: শনিবার সন্ধে ৬টা থেকে দক্ষিণ ও উত্তর কলকাতার বেশ কিছু অংশে...