ভারতে কিছু পরিষেবায় পরিবর্তন করছে গুগল, কার্যকরী অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনে

0

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের ‘ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিন’ বেছে নেওয়ার অনুমতি দেবে গুগলের (Google) নতুন পরিষেবা। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, ‘অ্যান্টি-ট্রাস্ট অর্ডার’ (antitrust order) ব্লক করতে ব্যর্থ হওয়ার পরে পরিষেবার এই পরিবর্তন সম্পর্কে বুধবার এমনটাই জানিয়েছে সংস্থা।

কেন এই পরিবর্তন

গুগল বলেছে যে তারা ভারতে নিজের প্ল্যাটফর্মগুলিতে পরিবর্তন করছে, যার মধ্যে রয়েছে সরঞ্জাম প্রস্তুতকারকদের (OEMs) ডিভাইসে প্রি-ইনস্টলেশনের জন্য পৃথক গুগল অ্যাপ (Google App) লাইসেন্স করার অনুমতি দেওয়া।

বলে রাখা ভালো, সুপ্রিম কোর্ট কঠোর নির্দেশিকা বহাল রাখার পরে এই পদক্ষেপটি নিয়েছে গুগল। সম্প্রতি গুগলের বিরুদ্ধে অ্যান্ড্রয়েড সিস্টেমে অত্যাধিক শক্তির অপব্যবহারের অভিযোগ ওঠে। ভারতের প্রতিযোগিতা কমিশন (CCI) ১,৩৩৭ কোটি টাকার জরিমানা করে। গুগল যদিও এর বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে। শুনানিতে গুগলকে সমতার নীতি নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত। বলা হয়েছিল, ইউরোপে অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন অপারেটিং সিস্টেমের (Android OS) ক্ষেত্রে গুগল যে নীতি অবলম্বন করে ভারতেও সেটা নেওয়া হোক।

অনলাইন প্ল্যাটফর্মের বিজ্ঞাপনে আধিপত্য ধরে রেখেছে বৃহত্তম মার্কিন প্রযুক্তি সংস্থা। সংস্থার জনপ্রিয়তার মূল একটি মাধ্যম অ্যান্ড্রয়েড প্ল্যাটফর্ম। পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাওয়াতে এই পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়েছে তারা।

গত বছর অ্যান্টি-ট্রাস্ট নিয়ে একই রকমের অভিযোগ উঠেছিল ইউরোপীয় ইউনিয়নে। অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম সম্পর্কিত একটি অ্যান্টি-ট্রাস্ট মামলায় পাল্টা আবেদন করেছিল গুগল। তবে সেই মামলায় সংস্থা হেরে যায়।

মামলা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেও

সম্প্রতি গুগলের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। অভিযোগ, সার্চ ইঞ্জিনে কোনো বিষয়ে অনুসন্ধান করতে গেলে কী কী আসবে অবৈধভাবে নিয়ন্ত্রণ করে থাকে গুগল। পাশাপাশি রয়েছে বিজ্ঞাপনের একচেটিয়া বাজার নিয়ন্ত্রণের অভিযোগ। এই অভিযোগে গুগলের বিরুদ্ধে মামলাটি করেছে মার্কিন সরকার।

মামলায় বলা হয়েছে, গুগল বেআইনিভাবে একচেটিয়া বিজ্ঞাপনের বাজার নিয়ন্ত্রণ করছে। প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে যে প্রতিযোগিতা ছিল তার ভারসাম্য নষ্ট করে দিয়েছে গুগল। মামলায় আরও বলা হয়েছে, ডিজিটাল বিজ্ঞাপনের বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে গুগল বেআইনি পথ যেমন বেছে নিয়েছে তেমনি যেকোনো প্রতিষ্ঠানকে চাপে ফেলতে বিজ্ঞাপনের দাম কমবেশি করছে, কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানকে বয়কট করছে।

আরও পড়ুন: বিবিসি-র তথ্যচিত্র বিতর্কে বিজেপির পাশে, ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই কংগ্রেস ছাড়লেন প্রবীণ কংগ্রেস নেতা একে অ্যান্টনির ছেলে

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন