Homeখবরকলকাতাকম্পমান কলকাতা! বর্ষবরণের রাত না কি দীপাবলি

কম্পমান কলকাতা! বর্ষবরণের রাত না কি দীপাবলি

প্রকাশিত

কলকাতা: বর্ষশেষ এবং বর্ষবরণের সন্ধিক্ষণে কম্পমান কলকাতা! বিকেল থেকেই সাউন্ড বক্সে ডিজে-র তারস্বরে গান। বাজির আওয়াজে কেঁপে উঠল উত্তর থেকে দক্ষিণ। রাস্তা, অলিগলি, মাঠে, পার্কে, কমন ছাদে বাজিতে-বাজিতে বাজিমাত। মিহি, মোটা, হেঁড়ে, কেশো গলায় ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’। এই তো সেই দিন, চেটেপুটে হুল্লোড়, আনন্দ এনজয় করার আকণ্ঠ মস্তি।

৩১ ডিসেম্বরে রাতে ইংরাজি বর্ষবরণের জোরদার উৎসব। নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে সেজে উঠেছিল কলকাতা। পার্ক স্ট্রিট-সহ বিভিন্ন এলাকায় বাড়তি উপকরণের পাশাপাশি পাড়ায় পাড়ায় আয়োজিত হল জলসা অথবা খানাপিনার আসর। তবে এ শহরে এখন ইংরাজি নতুন বছর আসে সশব্দে। রাত ১২টার কাঁটা সামান্য টিক করে সরতেই ইংরাজির বর্ষবরণ, সশব্দ ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ টালা টু টালিগঞ্জ, মানে উত্তর থেকে দক্ষিণ, পূর্ব থেকে পশ্চিম, শহর থেকে শহরতলী, শব্দবাজির দাপট!

নাইট ক্লাব-পাবগুলিতে দর্শক সমাগম ছিল চোখে পড়ার মতোই। তবে সেগুলোর থেকে কয়েক যোজন এগিয়ে গিয়েছে পাড়ায় পাড়ায় মঞ্চ বেঁধে ছিল ডিজে-পিবি বক্সের দাপাদাপি। অনেকে বলছেন, আগের দু’বছর করোনা মহামারির জন্য প্রাণ (?) খুলে আনন্দ মাতোয়ারা হওয়া যায়নি। তাই এ বার একটু বেশিই হল!

আনন্দবাজার পত্রিকার রিপোর্ট অনুযায়ী, বর্ষবরণের রাতে পাটুলি, কসবা, বিরাটি এ সব এলাকায় শব্দের দাপটি ছিল সবচেয়ে বেশি। গড়ে ৭০ ডেসিবলের উপরে। পাটুলিতে শব্দের তীব্রতা ছিল ৮১.৫ ডেসিবল। বাগবাজার ৬৯, সল্টলেকে ৬৮.৩, টালিগঞ্জে ৬৬ এবং নিউ মার্কেট এলাকায় শব্দের তীব্রতা ছিল ৬৪.৪ ডেসিবল। শহরের যে কোনও হাসপাতাল চত্বরে শব্দের মাত্রা রাত ১০টা থেকে ভোর ৬টা অবধি ৪০ ডেসিবলের বেশি হওয়ার কথাই নয়। সেখানে আরজি কর হাসপাতাল চত্বরে তীব্রতা ছিল ৬১.৫। তুলনায় এসএসকেমের সামনে শব্দের তীব্রতা ছিল কম। সেখানে শব্দের তীব্রতা ছিল ৪৫.১ ডেসিবল।

অন্য দিকে, আতসবাজি এবং শব্দবাজি পোড়ানো শুরু হতেই কলকাতায় খারাপ হয়েছে বায়ুর মান। রাত ১২টার পর বায়ুসূচকের মান ছিল যথাক্রমে, ফোর্ট উইলিয়ামে ১৭১ (সহনীয়), রবীন্দ্র সরোবরে ২২৫ (খারাপ), বালিগঞ্জে ২৮৫ (খারাপ), যাদবপুরে ২৭৪ (খারাপ), রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩২০ (খুব খারাপ), ভিক্টোরিয়া চত্বরে ৩১৫ (খুব খারাপ) এবং বিধাননগরে ৩৩১ (খুব খারাপ)।

তবে শুধু কলকাতা নয়, সন্ধ্যার পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় শব্দবাজি ফাটানো শুরু হয়ে যায়। রাত যত গড়িয়েছে শব্দবাজির তাণ্ডব ততই বেড়েছে। যাবতীয় নিষেধাজ্ঞাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে এ বারও বর্ষবরণের রাতে ফাটানো হল দেদার শব্দবাজি, যা এ রাজ্যে নিষিদ্ধ। শব্দবাজির তাণ্ডব রুখতে প্রশাসনের তরফ থেকেও তেমন জোরালো উদ্যোগ দেখা যায়নি বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুন: বিদায় ২০২২, স্বাগত ২০২৩! নতুন বছরে নতুন সুরের প্রত্যাশা

সাম্প্রতিকতম

ফের সুপ্রিম-ধাক্কা কেজরিওয়ালের! অন্তর্বর্তী জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদনে দ্রুত শুনানিতে নারাজ সর্বোচ্চ আদালত

নয়াদিল্লি: সুপ্রিম কোর্টে ফের ধাক্কা খেলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তাঁর অন্তর্বর্তী জামিনের মেয়াদ...

দিল্লি-বারাণসী উড়ানে বোমা-হুমকি, যাত্রীরা নিরাপদ  

খবর অনলাইন ডেস্ক: যাত্রীরা সবাই বিমানে বসে পড়েছেন। উড়ান ছাড়ব ছাড়ব করছে। এমন সময়...

এবারের আইপিএল-এ সবচেয়ে মূল্যবান খেলোয়াড় হলেন সুনীল নারিন, বিরাট কোহলি পেলেন অরেঞ্জ ক্যাপ

খবর অনলাইন ডেস্ক: রবিবার শেষ হল আইপিএল ২০২৪। সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে ৮ উইকেটে হারিয়ে তৃতীয়বার...

দিন চারেকের মধ্যেই কেরলে বর্ষা ঢোকার কথা, কলকাতা দিল্লি মুম্বই বেঙ্গালুরুতে কবে আসছে?

খবর অনলাইন ডেস্ক: দেশের এক অংশ যখন ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’-এর তাণ্ডবের মোকাবিলা করছে, তখন দেশের...

আরও পড়ুন

ঘূর্ণিঝড় রেমালের কারণে আংশিক বন্ধ কলকাতা মেট্রো পরিষেবা

রবিবার রাতেই ঘূর্ণিঝড় রেমালের বাংলাদেশ এবং সাগরদ্বীপের মাঝামাঝি এলাকায় আছড়ে পড়ার পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

উড়ান পাঠিয়ে দেওয়া হল বারাণসী, কেকেআর ক্রিকেটারদের কপালে কী জুটল

খবর অনলাইন ডেস্ক: একেই কি বলে ‘কপালের নাম গোপাল’? সন্ধে পৌনে ৬টার উড়ান ধরার...

ক্যালকাটা জার্নালিস্টস ক্লাবের উদ্যোগে নারায়ণা হেলথ্‌-এর সহায়তায় স্বাস্থ্যপরীক্ষা শিবির

নিজস্ব প্রতিনিধি: কলকাতা শহরের অন্যতম বৃহৎ সাংবাদিক-সংগঠন ক্যালকাটা জার্নালিস্টস ক্লাব রবিবার স্বাস্থ্যপরীক্ষা শিবিরের আয়োজন...