Homeউৎসবরাখি বন্ধন উৎসবে বাড়িতে বানাতে পারেন এই ৪ রকমের রাখি, কীভাবে বানাবেন...

রাখি বন্ধন উৎসবে বাড়িতে বানাতে পারেন এই ৪ রকমের রাখি, কীভাবে বানাবেন জেনে নিন

প্রকাশিত

রাখি বন্ধন উৎসব প্রায় এসেই গেল। ভাই-বোনের ভালোবাসার প্রতীক রাখি বন্ধন উৎসব। হিন্দু পঞ্জিকা অনুযায়ী শ্রাবণ মাসের পূর্ণিমায় এই উৎসব পালিত হয়। রাখি উপলক্ষে বাজারে বিভিন্ন ধরনের রাখি কিনতে পাওয়া যায়।

কিন্তু বাড়িতে কীভাবে রাখি বানাবেন। খুব সহজেই আধুনিক ডিজাইনের রাখি নিজের হাতে বানাতে পারেন ভাইয়ের জন্য।

উলের রাখি

উলের রাখি বানাতে লাগবে পছন্দের রঙের উলগোলা। বিভিন্ন রঙের বানাতে হলে একাধিক রঙের উল ব্যবহার করতে হবে।প্রথমে বাঁ হাতের চারটি আঙুল এক সঙ্গে করে উলের মুখটি নিয়ে আঙুলের মধ্যে বেশ খানিকটা পেঁচিয়ে নিতে হবে। তারপর উলটি কাঁচি দিয়ে কেটে গোলা থেকে আলাদা করতে হবে। এই বার হাত থেকে উল ওই অবস্থায় রেখেই খুলে ফেল আনতে হবে।সেই উল এক টুকরো ছোটো উল দিয়ে ঠিক মাঝ বরাবর বেঁধে নিতে হবে। উলের চার দিকটা কাঁচি দিয়ে কেটে গোল আকার দিতে হবে।

এই ভাবে দুই থেকে তিনটি রঙের উল নিয়ে ছোটো গোল ফুলের মতো করে নিতে হবে। তবে নজর রাখতে হবে সব ক’টি যেন এক মাপের না হয়। কোনোটা ছোটো কোনোটা বড়ো বানাতে হবে।

এর পর বড়ো মাপের উলের গোল ফুলগুলি আঠা দিয়ে পর পর বসিয়ে নিতে হবে।

এরপর হাতে বাঁধার মতো মাপ করে একটি উলের টুকরো নিয়ে এই উলের ফুলটির নীচে আঠা দিয়ে বসিয়ে দিতে হবে। তার জন্য ব্যবহার করতে হবে একটি ছোটো কাগজের টুকরো। ফুলটির পেছনে উলের টুকরোটি মাঝ বরাবর বসিয়ে আঠা দিয়ে তার ওপর কাগজের টুকরোটি সাঁটিয়ে দিতে হবে।

এরপরে ফুলটি উলটে নিয়ে সোজা পিঠে কিছু নকশা করা যেতে পারে। তার জন্য বাজারচলতি পুঁতি বা রংবেরঙের স্টোন ব্যবহার করা যেতে পারে। এই সবই পছন্দমতো ব্যবহার করা যাবে। সবটাই আঠা দিয়ে ফুলটির ওপর আটকাতে হবে। ব্যাস তৈরি উলের রাখি।


বৈদিক রাখি

দুর্বা, অক্ষত অর্থাৎ অখন্ড চাল, চন্দন, সরষে ও জাফরান এই পাঁচটি সামগ্রী দিয়ে বৈদিক রাখি বানানো যায়। এইবার সমস্ত সামগ্রী একটি হলুদ রেশম কাপড়ে বেঁধে নিন, সেলাইও করে নিতে পারেন। এই পাঁচটি উপকরণ ছাড়া, হলুদ, কড়ি বা গোমতী চক্রও এতে রাখতে পারেন। সেলাইয়ের পর মৌলীসুতোয় গেঁথে নিন এটি। এই উপায় ভাইয়ের জন্য বৈদিক রাখি তৈরি করা যায়।


লাল টিপের রাখি

বাড়িতে শুধু লাল টিপ থাকলেই এই রাখি বানিয়ে নিতে পারবেন।

রাখির বেসটা প্রথমে গোল করে কেটে নিন। তারপর বাড়িতে মাঝারি লাল টিপ ওই বেসের উপর গোল করে সাজিয়ে লাগিয়ে নিন। টিপে তো এমনিতেই আঠা থাকে, তাই আলাদা করে আঠার প্রয়োজন হয় না। ভরাট করে টিপ লাগিয়ে নিন। তারপর টিপের উর লাগিয়ে নিন চুমকি। একেবারে মাঝে বসিয়ে দিয়ে ছোট সাদা পুতি। এরপর রাখির বাঁধার ফিতে বানিয়ে নিন।

লাল ফিতের মধ্যে বিভিন্ন আকারের পুতি ভরে, মাঝখানে আঠা দিয়ে লাগিয়ে নিন বানিয়ে রাখা টিপের ডিজাইনের রাখি। তারপর দু’দিকে শক্ত করে সুতো বেঁধে দিন, তাহলেই তৈরি হয়ে যাবে টিপের রাখি।

শিফন সুতোর রাখি

পদ্ধতি একই। খালি উলের বদলে ব্যবহার করতে হবে বিভিন্ন রঙের শিফন সুতো। বেঁধে নেওয়ার পর ছোটো ব্রাশ দিয়ে ফুলটিকে ভালো করে আছড়ে নিতে হবে।

এরপর চার দিকটা সমান ভাবে গোল করে কেটে নিতে হবে। পেছনে একটি রঙিন রিবন ব্যবহার করা যায়। তা কাগজের মাধ্যমে আঠা দিয়েই আটকাতে হবে।

এরপর সাজানোর পালা। সাজানোর জন্য বাজারে নানান রকমের পুঁতি ও স্টোন বা জরি পাওয়া যায়। সেগুলিকে আঠার মাধ্যমে রাখির ওপর বসিয়ে সুন্দর করে সাজিয়ে নেওয়া যায়। তা হলেই তৈরি শিখন সুতোর রাখি।

সাম্প্রতিকতম

স্থুলতায় সন্তানধারণে কী প্রভাব পড়ছে, কী তথ্য উঠে এল গবেষণায়

সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় দেখা গেছে, স্থুলতা বা অতিরিক্ত ওজনের কারণে মস্তিষ্কের হাইপোথ্যালামাস অংশ শুক্রাণুর...

খরচ বেড়েছে মোবাইলের, স্মার্টফোনের ডেটা ব্যবহার কীভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখবেন

ভারতের প্রায় সমস্ত টেলিকম অপারেটরই প্রিপেড ও পোস্টপেড মোবাইল কানেকশনের দাম ১৫% পর্যন্ত বাড়িয়েছে।...

২০২৪ সালের নিট-ইউজি পরীক্ষা বাতিলের আবেদন খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট

সুপ্রিম কোর্ট ২০২৪ সালের নিট-ইউজি পরীক্ষা বাতিলের আবেদন খারিজ করেছে। প্রধান বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ জানিয়েছে, পরীক্ষায় সামগ্রিক পদ্ধতিগত লঙ্ঘনের প্রমাণ নেই। তবে কিছু অনিয়ম ঘটেছে মেনে নিয়েছে শীর্ষ আদালত।

দুর্গাপুজো কমিটিগুলির জন্য সরকারি অনুদান বৃদ্ধি, বিদ্যুৎ বিলে বাড়ছে ছাড়ও, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দুর্গাপুজো কমিটিগুলির জন্য অনুদান বাড়ানোর ঘোষণা করেছেন। চলতি বছর ৪৩ হাজার ক্লাবকে ৮৫ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হবে, যা ২০২৫ সালে এক লক্ষ টাকায় পৌঁছাবে। বিদ্যুৎ বিলে ৭৫ শতাংশ ছাড়ের কথাও ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন

বড়দিনে উৎসব মুখর কলকাতা, ভিড় উপচে পড়ল পার্ক স্ট্রিট থেকে চিড়িয়াখানায়

কলকাতা: বড়দিনে জনসমুদ্র উপচে পড়ল পার্ক স্ট্রিটের রাস্তায়। বড়দিনের রাতে পার্ক স্ট্রিটের ভিড় যেন...

রাখিবন্ধনে উৎসবে কী ভূমিকা শ্রীকৃষ্ণ ও দ্রৌপদী, শুভ ও লাভ, যম ও যমুনার? এই অজানা কাহিনীগুলি কী জানেন?  

রাখি পূর্ণিমার পবিত্র উৎসব হল ভারতীয় উপমহাদেশের ভাই বোনের প্রেম প্রীতির অন্যতম বন্ধন উৎসব। এই উৎসব যত না উৎসবের আনন্দ তার চেয়েও অনেক বেশি দায়িত্বের।

রাখিবন্ধন উৎসব কেন পালন করা হয়? এই উৎসবের আসল মাহাত্ম্য কী?

ভাই-বোনের সম্পর্কের বন্ধনকে আরও দৃঢ় করতেই রাখি উত্‍সব পালন করা হয়ে থাকে।  রাখির সুতোয় আরও গভীর বন্ধনে আবদ্ধ হয় ভাই-বোনের সম্পর্ক।
ইন্টারভিউয়ে কীরকম শরীরী ভঙ্গিমা থাকা উচিত বাড়তি মেদ ঝরানোর নয়া ট্রেন্ড ‘ওয়াটার ফাস্টিং’ কী?